মঙ্গলবার, নভেম্বর 30, 2021
মঙ্গলবার, নভেম্বর 30, 2021
মঙ্গলবার, নভেম্বর 30, 2021
spot_img
Homeরায়পুররায়পুরে ১৮ দলের ভাংচুর আতঙ্কে সিএনজি চালকরা

রায়পুরে ১৮ দলের ভাংচুর আতঙ্কে সিএনজি চালকরা

২০ দলীয় জোটের টানা অবরোধের যুবদল, ছাত্রদল ও জামায়াত-শিবির কর্মীরা লক্ষ্মীপুরের রায়পুর উপজেলার বিভিন্নস্থানে ব্যাপক সিএনজিচালিত অটোরিকশা ভাংচুর করে থাকেন। গত ১২ দিনে রায়পুর থানার সামনেসহ উপজেলা শহরের গুরুত্বপূর্ণ স্থান ও ইউনিয়নের কয়েকটি স্থানে অধশতাধিক সিএনজিচালিত অটোরিকশা ভাংচুর করে অবরোধকারী সমর্থকরা। এতে করে স্থানীয় সিএনজি চালকদের মাঝে আতঙ্ক বিরাজ করছে।

এদিকে স্থানীয় আওয়ামীলীগ ও সিএনজি মালিক সমিতির কয়েকজন নেতারা নাপ্রকাশে অনিচ্ছুক অভিযোগ করেন, রায়পুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মন্জুরুল হক আকন্দকে নাশকতাকারী বিএনপি-জামায়াতের নেতারা টাকা দিয়ে ম্যানেজ করে নিয়েছে। ওসির প্রশ্রয়ের কারনেই থানার সামনে এসে গাড়ী ভাংচুর করে নিরাপদে চলে যায়।

সিএনজি চালক ও সংশ্লিষ্ঠরা জানায়, রায়পুর-লক্ষ্মীপুর সড়কের সোনাপুর, রাখালীয়া, বাস টার্মিনাল, রায়পুর-হায়দরগঞ্জ সড়কের সোলাখালি, রায়পুর-রামগঞ্জ সড়কের জোড়পুল, রায়পুর-ফরিদগঞ্জ সড়কের বোয়ার্ডার বাজার সড়কের আশপাশ এলাকায় গত ১০ জানুয়ারী থেকে শনিবার (২৪ জানুয়ারী) সকাল পর্যন্ত অধশতাধিক সিএনজিচালিত অটোরিকশা ভাংচুর করা হয়েছে। সবশেষ গত বুধবার দুপুরে বাসটার্মিনাল এলাকা থেকে মাথায় হেলমেট পড়া ৬ যুবক লাঠি হাতে নিয়ে এসে থানার সামনে রাখা আটটি সিএনজিচালিত অটোরিকশা ভাংচুরের করে চলে যায়। এঘটনায় ওই দিন সন্ধ্যায় বাস টার্মিনাল এলাকার বিএনপি-জামায়াতের ১১ নেতাকর্মীর নাম উল্লেখ ও অজ্ঞাত আরো ৪ জনকে আসামী করে থানায় একটি মামলা করা হয়। মামলা পরেও পুলিশ কোনো ব্যবস্থা নেয়নি। এরআগে শহরের আলিয়া মাদ্রাসা এলাকায় শিবির নেতা পরানের নেতৃত্বে দৌড় মিছিল থেকে দাড় করিয়ে রাখা কয়েকটি সিএনজিতে হামলা চালানো হয়। এতে কয়েকটির সিএনজির পেছনের অংশ ক্ষতিগ্রস্থ হয়। এঘটনায় পুলিশ কোন শিবির কর্মীকে গ্রেফতার করতে পারেনি।

বামনী ইউনিয়নের সিএনজি চালক মো. মামুন বলেন, এ কোন দেশে বাস করছি। থানার সামনেসহ বিভিন্ন সিএনজি ভাংচুর ও অগ্নিসংযোগ করা হচ্ছে। দেশে কি পুলিশ-প্রশাসন বলতে কিছু নেই?

উপজেলা সিএনজি চালিত অটোরিকশা মালিক সমিতির সভাপতি জামশেদ কবির বাক্কি বিল্লাহ বলেন, পুলিশের রহস্যজনক ভূমিকার কারনে মনে হচ্ছে,‘পুলিশ নাশকতাকারীদের ভয় পায়’। হামলা ও ভাংচুরের ঘটনায় সিএনজি চালক ও যাত্রীরা খুবই আতঙ্কে আছে। মামলার পরেও পুলিশ কোন আসামীকে গ্রেফতার করতে পারেনি।

উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক ইসমাইল খোকন বলেন, নাশকতাকারীরা প্রকাশ্যে ঘুরে বেড়ালেও তাদেরকে গ্রেফতার করছে না। মনে হচ্ছে থানার পুলিশ নাশকতার সুযোগ করে দিচ্ছে। এজন্যবিষয়টি পুলিশ সুপারকেও জানানো হয়েছে।

এ ব্যাপারে রায়পুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মন্জুরুল হক আকন্দ বলেন, ভাংচুরের ঘটনায় আলম ড্রাইভার নামের এক ব্যাক্তি বাদি হয়ে থানায় মামলা করেছেন। এ মামলায় আসামি ধরতে অভিযান চালানো হবে। আগের দু’টি মামলায় বেশ কয়েকজন আসামীকে গ্রেফতার করা হয়েছে। তিনি আরও বলেন, সহিংসতা রোধে আওয়ামীলীগ নেতারা পুলিশকে সহযোগিতা করছে না।

RELATED ARTICLES
- Advertisment -spot_img

Most Popular

Recent Comments