মঙ্গলবার, অক্টোবর 26, 2021
মঙ্গলবার, অক্টোবর 26, 2021
মঙ্গলবার, অক্টোবর 26, 2021
spot_img
Homeজেলাবনপার বিরুদ্ধে স্বাধীনতা বিরোধী শক্তির হুংকার

বনপার বিরুদ্ধে স্বাধীনতা বিরোধী শক্তির হুংকার

‘নামসর্বস্ব’ অনলাইন সম্পাদকদের সঙ্গে তথ্যমন্ত্রী। গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের তথ্যমন্ত্রী। একজন তথ্যমন্ত্রী না জেনে না বুঝে না শুনে সচিবলায়ের মত একটি জায়গায় সভা করবেন। তাওকি হয়। তবে তথ্যমন্ত্রীকে অবজ্ঞা করে বনপাকে অপমান করে।

 

বনপার সদস্যদের অপমান করে সংবাদ প্রকাশের দুঃস্বাহস দেখিয়েছে দালাল , স্বাধীনতা বিরোধী, কু-চক্রি, তেলবাজ, অবৈধ মিডিয়া দ্যা রিপোর্ট ২৪ বেনামের একটি পত্রিকা। পত্রিকাটি শুদু প্রতিষ্ঠান বা মন্ত্রীকেই হেও করেননি সে হেও করেছেন। বনপার সভাপতি শামসুল আলম স্বপনকেও। তার নামে মিথ্যা, বানোয়াট সংবাদ প্রচার করেছে এই পত্রিকাটি।

 

এসময় সভাপতি এর তীব্র নিন্দা জানান এবং আইনি পদক্ষেপ নেয়ার কথা বলেন। ছোট হোক বড় হোক সব অনলাইন গনমাধ্যমেগুলো মধ্যে মিশে আচে ভালবাসা, ঐতিহ্য, আবেগ। দ্যা রিপোর্ট নামের এই অনলাইন গণমাধ্যমটি সেউ আবেগকে পিষিয়ে মারতে চেয়েছে।

 
বনপা! শুধু একটি নামই নয়। একটি আন্দলনের নাম। যে আন্দোলন মিথ্যার বিরুদ্ধে সত্যের আন্দোলন । যে আন্দোলন গণমানুষের আন্দোলন। একটু পিছে ফিরে তাকাই। ২০১২ সাল সেপ্টেম্বর মাস। খবর শীঘ্রই বন্ধ হয়ে যাচ্ছে অনলাইন গনমাধ্যম। এর পর জানাগেল স্বপ্ন শ্রষ্টাদের সৃষ্টি ধ্বংসের পায়তারা করছে এক শ্রেনীর হায়নার দল।

 

যারা ১৯৭১ সালের যুদ্ধের সময়ও এ কাজটি করেছিল। প্রতিবাদে তৈরি হয় ‘বনপা’ নামক সংগঠনটির। একজন দুইজন করে তাৎক্ষনিক প্রায় ৩০০ এর অধিক পোর্টাল যুক্ত হয় এ সংগঠনের সাথে। শুরু হয় কালো অনলাইন নীতিমালার বিরুদ্ধে আন্দলন।

 

এর পর ২০১২ সালের ১৫ অক্টোবর জাতীয় যাদুঘর মিলনায়তন থেকে “বাংলাদেশ অনলাইন নিউজ পোর্টাল এ্যাসেসিয়েশন (বনপা)’র প্রধান উপদেষ্টা প্রযুক্তিবিদ মোস্তাফা জব্বার, বনপা’র প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি শামসুল আলম স্বপন, বনপা’র কেন্দ্রীয় নেতা অধ্যাপক আকতার চৌধুরী,সুভাষ সাহা, কবি মুহিত চৌধুরী, অধ্যাপক জাকির সেলিম, আলী কদর পলাশ, মিজানুর রহমান হেলাল, আমিরুল ইসলাম আসাদ,সোহেল রেজা,তাজবীর সজিব, বিজয় ঘোষ, সেলিম ভান্ডারী, শিমুল খান,আবু চৌধুরী,বিপ্লব কান্তি দে সহ শতাধিক নেতৃবন্দ যৌথভাবে আন্দোলনের ডাক দেন। বনপা’র ডাকে সাড়া দিয়ে দেশের শতশত নিউজ পোর্টাল মালিক/সম্পাদক ও সাংবাদিকরা আন্দোলনে ঝাঁপিয়ে পড়েন। বিদেশ থেকে বাংলায় প্রকাশিত নিউজ পোর্টালের প্রকাশক সম্পাদকরাও বনপা’র আন্দোলনে সম্পৃক্ত হন।

 
এরই প্রেক্ষিতে গণ-মাধ্যম বান্ধব সরকারের সফল তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু অনলাইন গণ-মাধ্যম নীতিমালা-২০১২ বাতিল ঘোষণা করে বাস্তবসম্মত নীতিমালা তৈরী করার জন্য প্রযুক্তিবিদ মোস্তাফা জব্বারকে আহ্বায়ক করে ৬ সদস্য বিশিষ্ট কমিটি গঠন করেন। ওই কমিটিতে সদস্য রাখা হয় বনপা’র কেন্দ্রীয় সভাপতি শামসুল আলম স্বপনকে।

 

তাঁরই প্রস্তাবে ৫ লক্ষ টাকার পরিবর্তে নাম মাত্র রেজিষ্ট্রেশন ফি ধার্যের সুপারিশ করে “অনলাইন গণ-মাধ্যম নীতিমালা-২০১৪”  নামে  সরকারের কাছে জমা প্রদান করা হয়েছে। যা অনুমোদনের অপেক্ষায় প্রহর গুনছে। কিন্তু দু:খজনক হলেও সত্য কালো টাকার মালিক আর অসৎ ব্যক্তিদের উদ্দেশ্য সফল না হলেও তারা বসে নেই।

 

বনপা’র আন্দোলন সফল হতে দেখে তারা ঈর্শান্মীত। এখনো তারা নানা ভাবে ষড়যন্ত্র করে যাচ্ছে । সাধারণ অনলাইন নিউজ পোর্টালের বিরুদ্ধে অবস্থানকারী মুখোশধারী ওই সব শয়তানদের বিষদাঁত ভাঙ্গার প্রত্যয় নিয়ে কাজ করে যাচ্ছে  অনলাইন নিউজ পোর্টাল মালিক সম্পাদকদের জাতীয় সংগঠন  “বাংলাদেশ অনলাইন নিউজ পোর্টাল এ্যাসেসিয়েশন (বনপা)। আর এ কারনেই প্রতিদিন নতুন নতুন নিউজ পোর্টাল সংযুক্ত হচ্ছে বনপা’র নীতিগত আন্দোলনের সাথে। দিন দিন বাড়ছে বনপা’র সদস্য সংখ্যা।

RELATED ARTICLES
- Advertisment -spot_img

Most Popular

Recent Comments