শনিবার, অক্টোবর 16, 2021
শনিবার, অক্টোবর 16, 2021
শনিবার, অক্টোবর 16, 2021
spot_img
Homeধর্মআজ দিবাগত রাতটিই দোয়া কবুল রাত

আজ দিবাগত রাতটিই দোয়া কবুল রাত

নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি ইরশাদ মুবারক করেন, “পাঁচ রাতে নিশ্চিতভাবে দোয়া কবুল হয়ে থাকে। ১. পবিত্র শাহরুল্লাহিল হারাম রজবুল আছাম্ম মাস উনার পহেলা রাতে ২. পবিত্র শবে বরাতে ৩. পবিত্র শবে ক্বদরে ৪ ও ৫. পবিত্র দুই ঈদ উনাদের দুই রাতে।”

 

আজ দিবাগত রাতটিই পবিত্র শাহরুল্লাহিল হারাম রজবুল আছাম্ম মাস উনার পহেলা রাত। যে রাতে নিশ্চিতভাবে দোয়া কবুল হয়। তাই সকল মুসলিম উম্মাহ উনাদের দায়িত্ব কর্তব্য হচ্ছে- এ মুবারক রাতে পবিত্র মীলাদ শরীফ ও পবিত্র ক্বিয়াম শরীফ পাঠ করে বিশেষভাবে দোয়া-মুনাজাত করা এবং পরের দিন রোযা রাখা।
আর এ বিষয়ে বাংলাদেশ সরকারসহ সকল দেশের সরকারদের জন্য দায়িত্ব কর্তব্য হচ্ছে- মুসলমানগণ যেন এ মুবারক রাতটি ইবাদত ও দোয়া-মুনাজাতে কাটাতে পারেন ও পরের দিন রোযা রাখতে পারেন সেজন্য সম্মানিত পহেলা রজবুল হারাম শরীফ সরকারিভাবে ছুটি ঘোষণা করা।
পবিত্র শাহরুল্লাহিল হারাম রজবুল আছাম্ম মাস উনার মর্যাদা-মর্তবা বলার অপেক্ষা রাখে না। পবিত্র শাহরুল্লাহিল হারাম রজবুল আছাম্ম মাস উনার পহেলা রাতে নিশ্চিতভাবে দোয়া কবুল হয়। তাই সকল মুসলিম উম্মাহ উনাদের দায়িত্ব কর্তব্য হচ্ছে- এ মুবারক রাতে পবিত্র মীলাদ শরীফ ও পবিত্র ক্বিয়াম শরীফ পাঠ করে বিশেষভাবে দোয়া-মুনাজাত করা এবং পরের দিন রোযা রাখা।
মহান আল্লাহ পাক উনার রসূল, নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি এই পবিত্র শাহরুল্লাহিল হারাম রজবুল আছাম্ম মাস উপস্থিত হলে ইবাদত-বন্দেগী বাড়িয়ে দিতেন এবং বেশি বেশি রোযা রাখতেন এবং উম্মতগণ উনাদেরকেও রাতে ইবাদত করার ও দিনে রোযা রাখার জন্য উৎসাহিত করতেন।
যেমন- পবিত্র হাদীছ শরীফ উনার মধ্যে ইরশাদ মুবারক হয়েছে, “যে মুসলমান পুরুষ-মহিলা উনারা মহান আল্লাহ পাক উনার সন্তুষ্টি মুবারক লাভের উদ্দেশ্যে পবিত্র শাহরুল্লাহিল হারাম রজবুল আছাম্ম মাস উনার কোনো এক রাত ইবাদতে কাটাবে এবং দিনে রোযা রাখবে, মহান আল্লাহ পাক তিনি ওই বান্দা-বান্দী উনাদের আমলনামায় পূর্ণ এক বৎসর রাতে ইবাদত করার ও দিনে রোযা রাখার ছওয়াব লিখে দিবেন। সুবহানাল্লাহ!
আজ দিবাগত রাতটিই পবিত্র শাহরুল্লাহিল হারাম রজবুল আছাম্ম মাস উনার পহেলা রাত। যে মহান রাত সম্পর্কে পবিত্র হাদীছ শরীফ উনার মধ্যে ইরশাদ মুবারক হয়েছে, “পাঁচ রাতে নিশ্চিতভাবে দোয়া কবুল হয়ে থাকে। ১. পবিত্র শাহরুল্লাহিল হারাম রজবুল আছাম্ম মাস উনার পহেলা রাতে ২. পবিত্র শবে বরাতে ৩. পবিত্র শবে ক্বদরে ৪ ও ৫. পবিত্র দুই ঈদ উনাদের দুই রাতে।” সুবহানাল্লাহ! অর্থাৎ পবিত্র শাহরুল্লাহিল হারাম রজবুল আছাম্ম মাস উনার পহেলা রাতে নিশ্চিতভাবে দোয়া কবুল হয়।
তাই বান্দা-বান্দী উনাদের উচিত- এ মুবারক রাতে জাগ্রত থেকে যার যা নেক দোয়া, নেক আরজু রয়েছে তা বা’রে ইলাহী উনার নিকট পেশ করা। তবে দৃঢ়তার সাথে খালিছভাবে তা চাইতে হবে। কোনো প্রকার সন্দেহ পোষণ করা যাবে না। ইয়াক্বীন রাখতে হবে, ‘আমার সব দোয়া এবং সব আরজুই মহান আল্লাহ পাক তিনি অবশ্যই কবুল করবেন এবং অবশ্যই পূরণ করে দিবেন।’ এ মুবারক রাতে খাছভাবে পবিত্র মীলাদ শরীফ পাঠ ও পবিত্র ক্বিয়াম শরীফ পাঠ করে তওবা-ইস্তিগফার ও দোয়া-আরজি দ্বারা মুসলমান তার ব্যক্তিগত, সামাজিক ও আন্তর্জাতিকভাবে সব বালা-মুছীবত থেকে সহজেই মুক্তি পেতে পারে।
অথচ মুসলমান এ রাত উনার মর্যাদা-মর্তবা সম্পর্কে সম্পূর্ণই গাফিল। আমরা ইনশাআল্লাহ আমাদের পবিত্র সুন্নতী জামে মসজিদে প্রতি বৎসরের ন্যায় এ বৎসরও রজবুল হারাম শরীফ উনার পহেলা রাতে অর্থাৎ দোয়া কবুলের এ বিশেষ রাতে বাদ ইশা পবিত্র মীলাদ শরীফ পাঠের পর বিশেষ দোয়া-মুনাজাত করবো।
মূলকথা হলো- আজ দিবাগত রাতটিই পবিত্র শাহরুল্লাহিল হারাম রজবুল আছাম্ম মাস উনার পহেলা রাত। যে রাতে নিশ্চিতভাবে দোয়া কবুল হয়। তাই সকল মুসলিম উম্মাহ উনাদের দায়িত্ব কর্তব্য হচ্ছে- এ মুবারক রাতে পবিত্র মীলাদ শরীফ ও পবিত্র ক্বিয়াম শরীফ পাঠ করে বিশেষভাবে দোয়া-মুনাজাত করা এবং দিনে রোযা রাখা।
আর এ বিষয়ে বাংলাদেশ সরকারসহ সকল দেশের সরকারদের জন্য দায়িত্ব কর্তব্য হচ্ছে- মুসলমানগণ যেন এ মুবারক রাতটি ইবাদত ও দোয়া-মুনাজাতে কাটাতে পারেন ও দিনে রোযা রাখতে পারেন সেজন্য সম্মানিত পহেলা রজবুল হারাম শরীফ সরকারিভাবে ছুটি ঘোষণা করা।
RELATED ARTICLES
- Advertisment -spot_img

Most Popular

Recent Comments