শুক্রবার, অক্টোবর 22, 2021
শুক্রবার, অক্টোবর 22, 2021
শুক্রবার, অক্টোবর 22, 2021
spot_img
Homeচট্টগ্রামজোট প্রার্থীদের বিজয়ী করে স্বৈরাচারী সরকারের সব ষড়যন্ত্রের উপযুক্ত জবাব দিতে হবে

জোট প্রার্থীদের বিজয়ী করে স্বৈরাচারী সরকারের সব ষড়যন্ত্রের উপযুক্ত জবাব দিতে হবে

ইসলামী ছাত্রশিবিরের কেন্দ্রীয় কার্যকরী পরিষদ সদস্য ও চট্টগ্রাম মহানগরী উত্তর সভাপতি নুরুল আমিন অভিযোগ করে বলেন আওয়ামী লীগ সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে পরাজয় নিশ্চিত জেনে জনগণের রায় ছিনিয়ে নেয়ার পাঁয়তারা করছে।

 

এ লক্ষ্যে সরকার দলীয় মেয়র প্রার্থীরা প্রশাসনকে ব্যবহার করে বিরোধী দলের নেতা কর্মীদের হামলা,মামলা ও আটক করার পাশাপাশি পার্শ্ববর্তী জেলা থেকে হাজার হাজার সন্ত্রাসী ও ক্যাডার বাহিনী এনে নগরীর হোটেল,মোটেলসহ বস্তি এলাকা ভরে রেখেছে।

 

এ ব্যাপারে জোটের পক্ষ থেকে রিটার্নিং কর্মকর্তার নিকট অভিযোগ দায়ের করা হলেও তাতে কোন রূপ কর্ণপাত করা হচ্ছে না। তাছাড়া নির্বাচনী আইন কে বৃদ্ধাঙ্গুলি দেখিয়ে আইন শৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা প্রতি রাতেই নির্বাচন সংশ্লিষ্ট বিরোধী রাজনৈতিক কর্মীদের ধরে নেয়ার পাশাপাশি তাদের পরিবারগুলোকেও হয়রানী করছে। নির্বাচনের ফলাফল তাদের পক্ষে নেয়ার সম্ভাব্য সকল অপচেষ্টা অব্যাহত রেখেছে। ভোট কেন্দ্রে যাতে সাধারণ ভোটাররা না যেতে পারে সেজন্য তাদেরকে নানা ভয়-ভীতি দেখানো হচ্ছে।

 

অপরদিকে অবৈধ সরকারের মন্ত্রী, সাংসদরা প্রকাশ্যে দলীয় প্রার্থীদের জন্য ভোট চেয়ে প্রচার প্রচারণা চালালেও কোন অদৃশ্যের চাপের মুখে নির্বাচন কমিশন নির্বিকার থাকছে। এতে করে জনগনের মনে অসংখ্য প্রশ্নের সাথে বিরূপ প্রতিক্রিয়া দেখা দিয়েছে। সুষ্টু ভোট গ্রহণ করার নিশ্চয়তা বিধানের নিমিত্তে বিরোধী দলসহ দেশী-বিদেশী সংগঠনের পক্ষ থেকে সেনাবাহিনী মোতায়েন করার দাবী জানানো হলে তাতে নির্বাচন কমিশন ডিগবাজী খেয়ে তাদের সিদ্ধান্ত থেকে সরে এসেছে। জোটপ্রার্থীদের বিজয়ী করতে অবৈধ সরকারের সাজানো সব ষড়যন্ত্রের সমুচিত জবাব দিতে ভোটের দিন গণতন্ত্রকামী প্রত্যেক নাগরিককে নির্ভয়ে ভোট প্রদানের পর কেন্দ্র পাহারা দেয়ার আহ্বান জানান।

চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে জামায়াত ও ২০ দলীয় জোট সমর্থিত প্রার্থীদের নির্বাচন পরিচালনা কমিটির সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি আজ (২৬/০৪/’১৫) এসব কথা বলেন। নগর উত্তর সেক্রেটারী সালাউদ্দিন মাহমুদ’র পরিচালনায় এতে আরো বক্তব্য রাখেন জামায়াত নেতা মোরশেদুল ইসলাম চৌধুরী, এড.এম এ আলম চৌধুরী, এ কে এম ফরিদ, শিবির নেতা কায়েস মাহমুদ, এম ইলিয়াছ, মাহবুবুর রহমান, নাছির উদ্দীন, এরশাদুল হক,আতাউর শান্ত প্রমুখ।

সমাবেশে বক্তারা বলেন রাষ্ট্র ক্ষমতায় যারাই আসীন হয়েছেন তারা জনগণের সাথে প্রতারণা করে যাচ্ছে। এর ফলে নাগরিককে হারাতে হচ্ছে তাদের সব ধরণের অধিকার। দেশের সর্বত্র পাওয়া যাচ্ছে অধিকার সচেতন মানুষের লাশ আর লাশ। লাশের গন্ধে দেশের বাতাস আজ ভারী হয়ে উঠেছে। মানবতার ধোঁয়া তুলে দেশকে বিভক্ত করে ফায়দা লুঠতে ব্যস্ত বাকশালী আ’লীগ ক্ষমতার লোভে আইন শৃঙ্খলা বাহিনীকে নিজেদের স্বার্থে ব্যবহার করে দেশের শান্তিপূর্ণ পরিবেশকে অস্থিতিশীল করার নেশায় মত্ত রয়েছে।

 

এ লক্ষ্যে বাকশালী অবৈধ সরকারের নির্দেশে পুলিশের কতিপয় উচ্চাভিলাষী কর্মকর্তা হায়েনার মতো বিরোধী মতের লোকজন গুম, খুন, হত্যা করে তাদের আখের গোছাতে নির্লজ্জ সহায়তা করে যাচ্ছে। দেশের মেধাবী শিক্ষার্থীদের হত্যা করে অযুত সম্ভাবনার প্রিয় এ দেশকে মেধা শূণ্য করার গভীর ষড়যন্ত্র করছে ক্ষমতাসীনরা। প্রশাসন ও সন্ত্রাসীদের রক্তচক্ষু উপেক্ষা করে জনগণের মৌলিক অধিকার ফিরিয়ে আনার আন্দোলন হিসেবে সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে সকল পদে জোট সমর্থিত সৎ, যোগ্য,দেশপ্রেমিক নাগরিক অধিকার সচেতন প্রার্থীদের বিজয় নিশ্চিত করার জন্য নগরবাসীর প্রতি আহ্বান জানান। সে সাথে সরকার সমর্থিত নির্বাচনী আইন লংঘনকারী প্রার্থীদের বিরুদ্ধে দয়া না দেখিয়ে যথাযথ ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য সংশ্লিষ্টদের প্রতি জোর দাবী করেন।

RELATED ARTICLES
- Advertisment -spot_img

Most Popular

Recent Comments