শনিবার, ডিসেম্বর 4, 2021
শনিবার, ডিসেম্বর 4, 2021
শনিবার, ডিসেম্বর 4, 2021
spot_img
Homeজেলাহিরু-হুমায়ুন নিখোঁজের ১৭ মাস পার মামলার তদন্ত প্রতিবেদন দাখিল আগামী ২০ মে

হিরু-হুমায়ুন নিখোঁজের ১৭ মাস পার মামলার তদন্ত প্রতিবেদন দাখিল আগামী ২০ মে

কুমিল্লার লাকসাম উপজেলা বিএনপির সভাপতি সাবেক এমপি আলহাজ সাইফুল ইসলাম হিরু, পৌরসভা বিএনপির সভাপতি হুমায়ুন কবির পারভেজ নিখোঁজ হওয়ার পর গতকাল ২৭ এপ্রিল ১৭ মাস পেরুলো। তাদের ফিরে আসার প্রহর গুনতে গুনতে অনেকটা বিমর্ষ স্বজনরা। প্রিয় নেতাদের হারিয়ে অনেকটা হতবিহ্বল দলীয় নেতা-কর্মীরা।
স্বামীর সন্ধানে দিশেহারা লাকসাম পৌর বিএনপির সভাপতি হুমায়ুন কবির পারভেজের স্ত্রী শাহনাজ বেগম কান্না বিজড়িত কন্ঠে বলেন, ‘১৭ মাস পার হলো, তাও আমার স্বামীর সন্ধান পেলাম না। তিনি বেঁচে আছেন কি না, জানি না। স্বামীর জন্য অপেক্ষার প্রহর গুনতে গুনতে আমার শ্বশুরও চলে গেলেন।

 

আমার সন্তানরা বারবার জানতে চায় ওদের বাবা কোথায়? বাবা আসছে না কেন? সন্তানদের আমি কোনো জবাব দিতে পারি না। সন্তানদের কান্না দেখে নিজেকেও সামলাতে পারি না। আমি অন্ততঃ এটুকু জানতে চাই, আমার স্বামী বেঁচে আছেন কি না।’ সাবেক সংসদ সদস্য লাকসাম উপজেলা বিএনপির সভাপতি সাইফুল ইসলাম হিরুর একমাত্র ছেলে রাফসান ইসলাম বলছিলেন, ‘বাবাকে অপহরণের ১৭ মাস পূর্ণ হলো আজ। কিন্তু বাবা বেঁচে আছেন কি না, জানি না। আমরা আর কত দিন এভাবে বাবার জন্য অপেক্ষায় থাকব?’

 

জানা গেছে, ২০১৩ সালের ২৭ নভেম্বর অপহরণের শিকার হন কুমিল্লার লাকসামের সাবেক এমপি ও উপজেলা বিএনপির সভাপতি মোঃ সাইফুল ইসলাম হিরু। একই সঙ্গে অপহৃত হন লাকসাম পৌর বিএনপির সভাপতি মোঃ হুমায়ুন করিব পারভেজ। গতকাল সোমবার ১৭ মাস পূর্ণ হলো ওই দুই নেতা অপহরণের।

 

এদিকে, বিএনপির ওই দুই নেতাকে অপহরণের পর গুমের অভিযোগে করা পাঁচ র‌্যাব কর্মকর্তার বিরুদ্ধে মামলাটির তদন্ত প্রতিবেদন দেওয়া সম্ভব হয়নি এত দিনেও। তারেক সাঈদকে প্রধান আসামি করে র‌্যাব কর্মকর্তার বিরুদ্ধে করা ওই মামলাটি বর্তমানে তদন্ত করছে পুলিশের অপরাধ তদন্ত বিভাগ (সিআইডি)। আগামী মাসে প্রতিবেদন জমা দেয়ার কথা থাকলেও তা সম্ভব হচ্ছে না বলে জানিয়েছেন তদন্তকারী কর্মকর্তা।

 

মামলা সূত্রে জানা গেছে, গত বছরের ১৮ মে রোববার দুপুরে অপহৃত হুমায়ুন কবির পারভেজের বৃদ্ধ বাবা রঙ্গু মিয়া বাদী হয়ে ওই দুই ব্যক্তিকে অপহরণের পর গুমের অভিযোগ এনে আদালতে মামলা করেন। ওই মামলায় র‌্যাব-১১-এর বাধ্যতামূলক অবসরে যাওয়া সাবেক অধিনায়ক (সিইও) লে. কর্নেল তারেক সাঈদ মোহাম্মদসহ পাঁচজনকে আসামি করা হয়।

 

মামলার অন্য আসামিরা হলেন, র‌্যাব-১১ এর তৎকালীন কুমিল্লার ক্যাম্পের দায়িত্বে থাকা কম্পানি-২ এর মেজর শাহেদ হাসান রাজীব, উপ-সহকারী পরিচালক (ডিএডি) মোঃ শাহজাহান আলী, উপপরিদর্শক কাজী সুলতান আহমেদ ও উপপরিদর্শক অসিত কুমার রায়। আদালত তখন মামলাটি আমলে নিয়ে তদন্ত করে প্রতিবেদন দেয়ার জন্য লাকসাম থানার ওসিকে নির্দেশ দেন। ওই মামলার এজাহারে উল্লেখ করা হয়, ২০১৩ সালের ২৭ নভেম্বর রাতে কুমিল্লার সদর দক্ষিণ উপজেলার হরিশ্চর এলাকা থেকে মোঃ সাইফুল ইসলাম হিরু, মোঃ হুমায়ুন কবির পারভেজ ও লাকসাম পৌর বিএনপির সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক জসিম উদ্দিনকে র‌্যাব আটক করে। পরে ওই রাতেই জসিম উদ্দিনকে লাকসাম থানায় হস্তান্তর করা হয়।

 

কিন্তু হিরু-হুমায়ুনের খোঁজ মেলেনি আজো। মামলায় র‌্যাব তাঁদের অপহরণ করে গুম করেছে বলে দাবি করা হয়। তবে গত বছরের ৩১ আগস্ট ছেলে হারানোর শোক নিয়েই চিরবিদায় নেন হুমায়ুনের বৃদ্ধ বাবা ও মামলার বাদী রঙ্গু মিয়। পরে নিহতের ছোট ছেলে গোলাম ফারুকের আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে আদালত তাকে ওই মামলার বাদী হিসেবে স্থলাভিষিক্ত করেন। সংশ্লি−ষ্ট সূত্রে জানা গেছে, র‌্যাব কর্মকর্তাদের বিরুদ্ধে করা ওই মামলার প্রথম তদন্ত প্রতিবেদন গত বছরের ১৫ অক্টোবর আদালতে দাখিল করে পুলিশ। তদন্ত প্রতিবেদনে উল্লে−খ করা হয়, বাদীপক্ষ বিএনপির দুই নেতাকে র‌্যাব অপহরণ করেছে বললেও তার সত্যতা পাওয়া যায়নি।

 

তবে অজ্ঞাতপরিচয় দুষ্কৃতকারীর তাদের অপহরণ করে থাকতে পারে। তখন পুলিশের ওই প্রতিবেদনের বিরুদ্ধে নারাজি দিয়ে বিচার বিভাগীয় তদন্তের দাবি জানান মামলার বাদী। বাদীপক্ষে ওই মামলার প্রধান আইনজীবী অ্যাডভোকেট মুহাম্মদ বদিউল আলম সুজন জানান, বাদীর নারাজি আবেদনের প্রেক্ষিতে গত ৩ ফেব্র“য়ারি আদালত মামলাটি সিআইডি পুলিশকে তদন্তের নির্দেশ দেন। আগামী ২০ মে এ মামলার তদন্ত প্রতিবেদন দাখিলের দিন ধার্য করা হয়েছে।

 

এ প্রসঙ্গে মামলার বর্তমান তদন্ত কর্মকর্তা পুলিশের অপরাধ তদন্ত বিভাগ (সিআইডি) কুমিল্লার জোনের এএসপি মোঃ জামাল উদ্দিন জানান, ‘মাত্র ১৫-২০ দিন আগে ওই মামলা তদন্তের কপি হাতে পেয়েছি। গতকাল সোমবার বিকেলে উপজেলা বিএনপির সভাপতি সাবেক এমপি আলহাজ সাইফুল ইসলাম হিরু, পৌরসভা বিএনপির সভাপতি হুমায়ুন কবির পারভেজের সুস্থাস্থ্য  ও ফিরে আসার কামনায় দলীয় নেতা-কর্মী ও স্বজনদের অংশগ্রহণে দৌলতগঞ্জ ষ্টেশন জামে মসজিদে মিলাদ মাহফিল ও বিশেষ মুনাজাত অনুষ্ঠিত হয়।

RELATED ARTICLES
- Advertisment -spot_img

Most Popular

Recent Comments