রবিবার, অক্টোবর 24, 2021
রবিবার, অক্টোবর 24, 2021
রবিবার, অক্টোবর 24, 2021
spot_img
Homeউপজেলাচকরিয়ায় বন্দুকযুদ্ধে ইনু বাহিনীর সেকেন্ড ইন কমান্ড নিহত ॥ ডাকাত সদস্য আটক

চকরিয়ায় বন্দুকযুদ্ধে ইনু বাহিনীর সেকেন্ড ইন কমান্ড নিহত ॥ ডাকাত সদস্য আটক

চকরিয়ায় ডাকাতির প্রস্তুতিকালে দীর্ঘ ২ঘণ্টাব্যাপী পুলিশের সাথে বন্দুযুদ্ধে নিহত হয়েছে ডাকাত সর্দার ইনু বাহিনীর সেকেন্ড ইন কমান্ড হিসেবে পরিচিত এক ডাকাত সদস্য। পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে ৩৯রাউন্ড তাজা গুলী ও ২২রাউন্ড গুলীর খোসাসহ ২টি আগ্নেয়াস্ত্র এবং ২টি কিরিচ দা উদ্ধার করে।

 

বন্দুকযুদ্ধে কর্মকর্তা ও দুই পুলিশ সদস্য আহত হয়েছে। আটক করা হয়েছে আহত অবস্থায় এক ডাকাত সদস্যকে। সোমবার ১জুন দিবাগত রাত ১২টার দিকে উপজেলার মেদাকচ্ছপিয়ার ঢালায় এঘটনা ঘটে।

 
পুলিশ জানিয়েছে, সোমবার দিবাগত রাত ১২টার দিকে কক্সবাজার সদর উপজেলার ঈদগাঁও স্টেশন হতে একটি সিএনজি (কক্সবাজার-থ ১১-২০৩১) ভাড়া করে ডাকাত দল। ওই গাড়ি খুটাখালীর চট্টগ্রাম-কক্সবাজার মহাসড়কের উত্তর মেদাকচ্ছপিয়ার ঢালা নামক স্থানে পৌঁছলে ডাকাতির ঘটনা সংঘটিত করতে পাশ্ববর্তী জঙ্গল হতে তাদের সরাঞ্জামাধি গাড়িতে তোলে ডাকাতির প্রস্তুতি নেয়।

 

 

এতে আরোহীদের গতিবিধি সন্দেহজনক হলে গাড়িটি গতিরোধ করে টহলরত পুলিশের আশ্রয় নেয় সিএনজি চালক হুমায়ুন কবির। ওই এলাকার জঙ্গল থেকে ডাকাতদল পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে লক্ষ্য করে আকষ্মিক গুলী ছোঁড়ে। পুলিশও পাল্টা গুলী ছোঁড়ে আত্মরক্ষার চেষ্টা চালায়। শুরু হয় পুলিশ ও ডাকাতদলের মাঝে বন্দুকযুদ্ধ।

 

 

প্রায় ২ঘণ্টব্যাপী এ বন্দুকযুদ্ধ চলে। পরে পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে ডুলাহাজারা ইউনিয়নের ২নং ওয়ার্ড ডুমখালী গ্রামের নুরুল আমিনের পুত্র ইনু বাহনীর সেকেন্ড ইন কমান্ড আলী আজগর (২৫) নামের এক ডাকাত সদস্যদের মৃতদেহ ও আরেক ডাকাত সদস্য একই ইউনিয়নের পূর্ব ডুমখালী গ্রামের মৃত আহমদ শফির পুত্র মোঃ শেখা (২৩)কে আহত অবস্থায় উদ্ধার করে। আহত ডাকাত সদস্য পুলিশ হেফাজতে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিসাধীন রয়েছে।

 
পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে ডাকাতদলের ফেলে যাওয়া দেশীয় তৈরি একটি একনলা লম্বা বন্দুক, একটি পাইপ গান, ৩৯রাউন্ড তাজা গুলী, ২২রাউন্ড গুলীর খোসা ও ২টি কিরিচ দা উদ্ধার করে। বন্দুকযুদ্ধে আহত হয়েছে চকরিয়া থানার এসআই আলমগীর, কনস্টেবল নুরুল ইসলাম ও সৃজন পালিত।

 

তারা বর্তমানে চকরিয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসাধীন রয়েছে। অক্ষত অবস্থায় উদ্ধার করা হয়েছে সিএনজি চালক হুমায়ুন কবির (৩০)কে। সে সদর উপজেলার ঈদগাঁও সিকদারপাড়ার জনৈক এজাহার মিয়ার পুত্র বলে জানা গেছে।

 
এদিকে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন কক্সবাজারের সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার (চকরিয়া সার্কেল) মাসুদ আলম, চকরিয়া থানার অফিসার ইনচার্জ প্রভাষ চন্দ্র ধর ও পুলিশ পরিদর্শক মো. কামরুল আজম।

 
অন্যদিকে উদ্ধারকৃত ডাকাতির সরাঞ্জামাধি জব্দ তালিকাকালে উপস্থিত ছিলেন চকরিয়া উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোহাম্মদ সাহেদুল ইসলাম। এসময় থানা পুলিশের বিভিন্ন পর্যায়ের কর্মকর্তাগণ উপস্থিত ছিলেন।

 
এব্যাপারে চকরিয়া থানার অফিসার ইনচার্জ প্রভাষ চন্দ্র ধর বলেন, নিহতের লাশ ময়না তদন্তের জন্য কক্সবাজার সদর হসপাতাল মর্গে প্রেরণ করা হয়েছে। বন্দুকযুদ্ধের ঘটনায় জড়িত দুস্কৃতিকারীদের গ্রেফতার অভিযান এবং সংশ্লিষ্ট আইনে পৃথক ৩টি মামলার প্রক্রিয়া চলছে বলে তিনি জানান।

RELATED ARTICLES
- Advertisment -spot_img

Most Popular

Recent Comments