রবিবার, অক্টোবর 24, 2021
রবিবার, অক্টোবর 24, 2021
রবিবার, অক্টোবর 24, 2021
spot_img
HomeUncategorizedজয়পুরহাটের পাঁচবিবিতে সর্বস্ব হারিয়ে নিঃস্ব ৭ পরিবার

জয়পুরহাটের পাঁচবিবিতে সর্বস্ব হারিয়ে নিঃস্ব ৭ পরিবার

জয়পুরহাটের পাঁচবিবিতে চাকুরী দেওয়ার নামে চকারী প্রার্থীদেরকে ভূয়া নিয়োগ পত্র ধরিয়ে দিয়ে লক্ষ লক্ষ টাকা হাতিয়ে নিয়ে চম্পট দিলো প্রতারক চক্র। চাকুরীর পাবার আশায় চাকুরী প্রার্থীরা নিজের (জায়গা জমি বিক্রি করে টাকা দেওয়া) সর্বস্ব হারিয়ে এখন মানবতের জীবন যাপন করছেন।

 

জানা যায়, দিনাজপুরের হাকিমপুর উপজেলার বোয়ালাদাড় গ্রামের মৃত নজরুল ইসলামের পুত্র মোঃ ফজলুর রহমানের সঙ্গে জয়পুরহাটের পাঁচবিবি উপজেলার পাড়ইল গ্রামের আয়েজ উদ্দিনের পুত্র মোঃ ফরহাদ হোসেনেকে একটি  বে-সরকারী কোম্পানীতে চাকুরীর দেওয়ার সুবাদে পরিচয় হয়। এই সুবাদে গত ১০ ই অক্টোবর দৈনিক ইত্তেফাকে প্রকাশিত বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর বে-সামরিক পদের একটি নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি হাতে দিয়ে চাকুরী প্রার্থী খুজে দিতে বলে।

 

চাকুরী নামক সোনার হরিণটি পাবার আশায় ফরহাদ সহ এলাকার আরো ৬ /৭জন ব্যক্তি আগ্রহ প্রকাশ করলে ফজলুর রহমান পদ অনুযায়ী ৫/৬ লক্ষ টাকা চুক্তি করে। সবাইকে চুক্তি অনুয়ায়ী টাকা জোগার করতে বলে। দালালদের কথায় তারা বাড়ীতে এসে তাদের চুক্তি মোতাবেক কেউ জমি বিক্রি,  কেউ সুদের উপর ঋনের টাকা গ্রহন সহ যে ভাবে পারে টাকা জোগার করে।

 

এরপর ফজলুর রহমান তাদের কে (চাকুরী প্রার্থী ব্যক্তিদের) ঢাকায় নিয়ে গিয়ে তার সহযোগী সাতক্ষীরা জেলার সাইফুলের সঙ্গে পরিচয় করিয়ে দেন।

 

প্রতারক সাইফুল এর অন্যান্য সহযোগি মাগুরা জেলার শরিফ, জাকারিয়া, সুমন, মালেক মুছা, রানা, আলম নিজেদেরে সেনাবাহিনীর বড় কর্মকর্তা পরিচয় দিয়ে তাদের ৭ জনের মধ্যে চাকুরী দেওয়ার আশ্বাস প্রদান করেন। সেই অনুযায়ী গত ২৬/১০/২০১৫ ইং তারিখে একটি প্রাইভেট কারের  মধ্যে ৩ জন চাকুরী প্রার্থীর পরীক্ষা নেন। বাঁকী ৪ জনের পরীক্ষা নেওয়া হয় ঢাকার মহাখালীর জাহাদ হোটেলের ১৩ নং রুমে।

 

এরপর ঐ দিনই তাদের কে  গত ০৬/১২/২০১৫ ইং তারিখে জয়পুরহাটের পাঁচবিবি উপজেলার পাড়ইল গ্রামের আয়েজ উদ্দিনের পুত্র ফরহাদ হোসেন কে মমেনশাহী সি এম এস, বছির উদ্দিনের পুত্র মোঃ মীর কাশেম কে কাদিরাবাদ সেনানিবাস, দয়ারামপুর  নাটোর ক্যান্টমেন্টে, চট্টগ্রামের বিএম ভাটিয়ালী অফিসার ইউনিটে আবুল কালামের পুত্র জাহাঙ্গীর, ওহেদুল ইসলামের পুত্র মোঃ ফরিদ হোসেন,  দড়িপাড়া গ্রামের আজাদুল ইসলামের পুত্র গোলজার হোসেন চট্টগ্রামের বি এস ডি সেনানিবাসে, গাজীপুরের রাজেন্দ্রপুর অর্ডিনেন্স রের্কড স্কুল সেন্টারে মোসলেম উদ্দনের পুত্র আবু তালেব, বাবুল হোসেনের পুত্র আবু মুছা, গোলাম মোস্তফার পুত্র নবীর হোসেন ও একই উপজেলার ওবাইদুল হোসেনকেসহ ১৫০/২০০ জনকে বিভিন্ন ক্যান্টমেন্ট  যোগদানের জন্য নিয়োগ পত্র হাতে ধরিয়ে দিয়ে একেক জনের কাছ থেকে ৫-৭ লক্ষ হাতিয়ে নেয়।

 

চাকুরী প্রার্থীরা যথারীতি নির্ধারিত সময়ে  উল্লেখিত ক্যান্টমেন্টে যোগদানের উদ্দেশ্যে গেলে সেখানকার কর্মকর্তারা তাদের নিয়োগ পত্র দেখে ভুয়া বলে তাদের সঙ্গে থাকা নিয়ে তাদের এক রাত আটকে রেখে পরদিন ছেড়ে দেয়। শুধু তাই নয় এই প্রতারক চক্র এভাবে একই দিনে উত্তরাঞ্চলের মঙ্গা পিরিত জেলার প্রায় ১৫০/২০০ জনের নিকট থেকে টাকা হাতিয়ে নিয়ে নিজের ব্যবহৃত সবার মোবাইল বন্ধ করে রাখেন।

 

উল্লেখ যে, নিযোগপত্র দেওয়ার সময় সকলের নিকট থেকে শিক্ষাগত যোগ্যতার মূল কাগজ পত্র নিয়ে নেন। ফলে এখন অন্য জায়গায়কোন চাকুরীর আবেদন করতে পাচ্ছে না।

RELATED ARTICLES
- Advertisment -spot_img

Most Popular

Recent Comments