মঙ্গলবার, অক্টোবর 26, 2021
মঙ্গলবার, অক্টোবর 26, 2021
মঙ্গলবার, অক্টোবর 26, 2021
spot_img
Homeপিরোজপুরএকদল লোক ইসলামের নামে উদ্ভট কথা বলে সাধারণ মানুষকে ঈমানহারা করছে-স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

একদল লোক ইসলামের নামে উদ্ভট কথা বলে সাধারণ মানুষকে ঈমানহারা করছে-স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

পিরোজপুরের স্বরূপকাঠীর সন্ধ্যা নদীর তীরে অবস্থীত উপমহাদেশের শ্রেষ্ট ধর্মিয় মার্কাস ছারছীনা দরবার শরীফ। প্রতিষ্ঠা লগ্নের শুরু থেকে আজ পর্যন্ত প্রতি বছরের ন্যায় বাংলাদেশ জমইয়তে হিযবুল্লাহ সম্মেলন ও ছারছীনা মাদরাসার তিন দিনব্যাপি ১২৬তম ঈছালে ছওয়াব মাহফিল শেষ হয়েছে।

 
গত বুধবার বাদ আছর শুরু হয়ে শনিবার বাদ যোহর আখেরী মোনাজাতের পূর্বে লাখো লাখো ভক্ত-মুরীদানের উদ্দেশ্যে গুরুত্বপূর্ণ ভাষণে পীর ছাহেব কেবলা বলেন- এ দেশের আনাচে কানাচে শুয়ে আছে হাজার হাজার আউলিয়ায় কেরাম। যাদের আন্তরিক প্রচেষ্টা ও দাওয়াতের কারণেই আজ এদেশে শতকরা ৯০ ভাগ বাসিন্দা মুসলমান। এর পিছনে হক্কানী পীর মাশায়েখদের অবদান অবিস্মরণীয়। তিনি বলেন, আমরা দলীয় রাজনীতি করিনা। কারও সাথে আমাদের গদীর সংঘাত নেই। তবে আমার একটি সংগঠন আছে বাংলাদেশ জমিয়তে হিযবুল্লাহ, যুব হিযবুল্লাহ, ছাত্র হিযবুল্লাহ, ইসলাম ও মুসলমানের বিরুদ্ধে কোন আঘাত আসলে শুধু আমরা কেন! কোন মুসলমানই তা সহ্য করতে পারে না। আমরা ঈমান আমল নিয়ে বাঁচতে চাই। এজন্য প্রয়োজন হক্কানী পীর মাশায়েখদের সোহবতে আসা। কারণ এসব পীর মাশায়েখ সীরাতুল মুস্তাকীম তথা সহজ সরল পথে চলেই আল্লাহ তাআলার নৈকট্য অর্জন করতে সক্ষম হয়েছেন।

 
আজকের এই অশান্ত পৃথিবীতে মানুষ একটু সুখ শান্তির জন্য মানব রচিত মতবাদের পিছনে হন্যে হয়ে ঘুরে বেড়াচ্ছে। তাদের এই প্রচেষ্টা আগাগোড়াই ব্যার্থ। বরং ইহকালীন সুখ শান্তি ও পরকালীন মুক্তির জন্যে আমাদেরকে সীরাতুল মুস্তাকীমের পথে চলতে হবে। আর সীরাতুল মুস্তাকীমের পথ হলো নবী-রসূল ও সাহাবায়ে কেরামদের পথ।

 
পীর ছাহেব কেবলা আরও বলেন, বিশ্বের দিকে দিকে আজ মুসলমানরা মার খাচ্ছে। তারা আজ অবহেলিত ও উপেক্ষিত জাতিতে পরিণত হয়েছে। এর কারণ হলো আমলহীনতা, অশীলতা ও বেহায়াপনা। আজকের মুসলমান আল্লাহকে ভুলে গিয়ে দুনিয়ার জন্য পাগল হয়ে গেছে। নেককাজ বাদ দিয়ে বাদ কাজে আনন্দ খুঁজে পাচ্ছে। এটা একজন খাঁটি মুসলমানের কাজ নয়।

 
পীর ছাহেব কেবলা আরও বলেন, আপনারা পীরের কাছে এসেছেন আল্লাহকে পাওয়ার জন্য, পীরকে নয়। মুরীদ পীরের কাছে কখনো স্বাধীন নয়। যেহেতু আল্লাহকে পাওয়ার জন্য পীরের হাতে হাত রেখেছেন। তাই পীরের প্রতিটি আদেশ-নিষেধ মেনে চললেই আল্লাহকে পাওয়া যাবে।
অপরদিকে ত্বরীকার নেয়ামত লাভ করতে হলে গীবত-কোয়াত, মিথ্যা বলা, পারষ্পরিক শত্র“তা, হিংসা-বিদ্বেষ, আরাম ভক্ষণ, সুদ-ঘুষ, বেপর্দেগী এসব খারাপবদ অভ্যাসগুলো পরিহার করতে হবে। আল্লাহ ও রসূল (সঃ) এর প্রতিটি হুকুম আহকাম মেনে চলাই আমাদের প্রধান কাজ। তাই ছেলে হবে পিতার ন্যায়, মুরীদ হবে পীরের ন্যায় এবং উম্মত হবে প্রিয় নবী (সঃ) এর নমুনায়। তিনি মাহফিলে আগত ভক্ত মুরীদানদের নিজ নিজ সন্তানকে হক্কানী আলেম বানাতে দ্বিনীয়া মাদরাসার শিক্ষায় শিক্ষিত করার আহবান জানান।

 
মাহফিলে ইসলামের মৌলিক বিষয়াবলীর উপর আলোচনা করেন- আমিন মোহাম্মদ গ্র“পের ব্যবস্থাপনা পরিচালক আলহাজ্ব এম. এম. এনামুল হক, মাহফিলে অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, বাংলাদেশ সরকারের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল, পিরোজপুর-১ আসনের সংসদ সদস্য এ. কে. এম. এ আউয়াল, পটুয়াখালী-৩ আসনের সংসদ সদস্য আ. খ. ম. জাহাঙ্গীর হোসাইন, পীর ছাহেব কেবলার বড় জামাতা আলহাজ্ব মির্জা নূরুর রহমান বেগ, স্বরূপকাঠী উপজেলা চেয়ারম্যান মোঃ ওয়াহিদুজ্জামান, স্বরূপকাঠী পৌর মেয়র মোঃ গোলাম কবিরসহ দুর দুরান্ত থেকে আগত অতিথিবৃন্দ।

 
ছারছীনার ১২৬ তম ঈছালে ছওয়াব মাহফিলের শেষ দিনে অর্থাৎ মাহফিলের আখেরী মোনাজাতে স্মরনকালের সর্ববৃহৎ মুসলিদের মিলন মেলায় পরিনত হয় ছারছীনা ময়দান। দেশের প্রতিকুল পরিস্থিতি উপেক্ষা করে প্রত্যন্ত অঞ্চল থেকে বাস, লঞ্চ, ট্রলার, অন্যান্য হাজার হাজার যান বাহন যোগে পীর ভাই, মোহেব্বীন ও ধর্মপ্রাণ মুসলমানগণ গুনাহ মাফের আশায় এবং মরহুম পীর ছাহেব কেবলাদ্বয়ের ও বর্তমান হুজুরের ফয়েজ-তাওয়াজ্জুহ  এবং নেক দোয়া লাভের আশায় ছারছীনার এই পূণ্যভূমিতে হাজির হয়। মাহফিলের সু-বিশাল প্যান্ডেলসহ সন্ধ্যা নদীর উত্তর ও দক্ষিন পার্শ্ব ও মাগুরার আশ-পাশসহ কোথাও তীল ধারনের ঠাই ছিল না। এখানে এত লোকের সমাগম হয় যা কল্পনাতীত।
আখেরী মোনাজাতের পূর্বে মিলাদ ও কিয়ামে ইয়া নবী সালাম আলাইকার সুর ও আমীন-আমীন ধ্বনীতে এবং চোখের পানিতে আকাশ-বাতাস মুখরিত হয়।

বার্তা প্রেরক

তারিখঃ ১৩/০৩/২০১৬ইং

RELATED ARTICLES
- Advertisment -spot_img

Most Popular

Recent Comments