রবিবার, অক্টোবর 24, 2021
রবিবার, অক্টোবর 24, 2021
রবিবার, অক্টোবর 24, 2021
spot_img
Homeজেলাযৌতুক লোভী শ্বশুড় কথিত আনু মেম্বারের লঙ্কা-কান্ড শহরের বৈদ্যঘোনায় প্রতারণার শিকার নববধূ...

যৌতুক লোভী শ্বশুড় কথিত আনু মেম্বারের লঙ্কা-কান্ড শহরের বৈদ্যঘোনায় প্রতারণার শিকার নববধূ ঝর্ণা

শহরের বৈদ্যঘোনায় এক নববধুর সাথে যৌতুক লোভী শ্বশুড় কর্তৃক লঙ্কা কান্ডের ঘটনা ঘটেছে। নববধু র্ঝণার মেহেদীর রং না শুকাতেই ৫ লক্ষ টাকা যৌতুক দাবী করেন স্বামী মানিকের বাবা কথিত আনু মেম্বার। পক্ষান্তরে  ঝর্ণার অসহায় দারিদ্র পরিবার ৫ লক্ষ টাকা যৌতুক দিতে না পারলেও মেয়ের সংসারের সুখের জন্য ২ লক্ষ টাকা যৌতুক দেন মানিকের বাব কথিত আনু মেম্বারের হাতে। সর্বশেষ ১ নভেম্বর কনে পক্ষ মেয়েকে বিবাহত্তোর ফিরা ফিরি করতে সামাজিক রীতি অনুযায়ী নববধু ঝর্ণার শ্বশুড় বাড়ীতে যান।

 

মেহমানদের আতিথীয়তার এক পর্যায়ে যৌতুকের বাকী ৩ লক্ষ টাকাদাবীসহ নানা অজুহাত সৃষ্টি করেন শ্বশুড় আনু। এক পর্যায়ে গোপনে বেরিয়ে আসে শ্বশুড় কর্তৃক অভিনব কায়দায় প্রতারণার নতুন ফাঁদ। এ সময় তা আঁচ করতে পেরে প্রতারক শ্বশুড় কনে পক্ষের লোকজনের সাথে এক লঙ্কা-কান্ডের ঘটনা ঘটায়। লঙ্কা-কান্ডের এক পর্যায়ে বেরিয়ে আসে নববধু ঝর্ণার সাথে প্রতারক শ্বশুড় কর্তৃক স্বর্ণ কেলেংকারীর পিলে চমকানো অজানা তথ্য।

 

এ সময় একের পর এক প্রতারক কথিত আনু মেম্বারের আসল রহস্যের জট খুলতে থাকে।

 

ঘটনার বিবরণে জানাযায়, গত ১৮ অক্টোবর শহরের বৈদ্যঘোনা এলাকার আনোয়ার প্রকাশ আনু মেম্বারের পুত্র মানিকের সাথে কুতুবদিয়ার কৈয়ার বিল এলাকার মৃত নুরুল্লাহ’র কন্যা দিলোয়ারা খানম ঝর্ণার সাথে ইসলামী শরীয়াহ মোতাবেক বিবাহ হয়। ওই সময় ৫ ভরি স্বর্ণ, ৭০ হাজার টাকার কাপড় ও ৫ লক্ষ টাকার দেহমোহর ধার্য করেন উভয় পক্ষের লোকজন। সর্বশেষ সব কিছু মেনেই উভয় পক্ষের সম্মতিক্রমে আনুষ্ঠানিকভাবে এ বিবাহ সম্পন্ন হয়। তবে বিবাহের সময় কনেকে দেওয়া শ্বশুড় বাড়ী কতৃর্ক ৫ ভরি স্বর্ণ ছিল ভাড়া করা।

 

বিবাহের ৩ দিন পর নববধুর কাছ থেকে সমস্ত স্বর্ণ ছিনিয়ে নেয় শ্বশুড় ও তার পরিবারের লোকজন।

 

এ ঘটনা নববধু ঝর্না সম্মাণের ভয়ে কাউকে না জানিয়ে গোপনে সহ্য করে যান। অভ্যান্তরে নেমে আসে নববধু ঝর্ণার উপর অমানুসিক নির্যাতনও। নববধু ঝর্ণার স্বর্ণ ও নির্যাতনের কথা বলতে না বলতে কনে পক্ষের লোকজনের সাথে র্দূব্যবহার করেন আনু মেম্বার। আনু নিজের প্রভাব খাটিয়ে এ ঘটনাকে কেন্দ্র করে চরমভাবে উত্তেজিত হতে থাকে। কনে পক্ষ তা বুঝতে পেরে সরে আসেন এবং পরবর্তী পদক্ষেপ গ্রহণের ব্যবস্থা নেন।

 

কনের অভিভাবক জানান, বিবাহের সময় শ্বশুড় বাড়ী কর্তৃক ৫ ভরি স্বর্ণ র্ধায করা হয়। কিন্তু ভাড়া করা স্বর্ণ দিয়ে প্রতারণার ম্ধ্যামে বিবাহ সম্পন্ন করেন বেয়াই আনু মেম্বার। তার প্রতারণার জন্য এখন আমরা তার বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহনের প্রস্তুতি নিচ্ছি।

 

এ বিষয়ে আনোয়ার প্রকাশ আনু মেম্বারের সাথে কথা হলে তিনি বিভিন্ন অজুহাতে সমস্ত ঘটনা এড়িয়ে গিয়ে বলেন, মেয়েকে স্বর্ণ ছাড়াই নিয়ে যান। না হয় হিসাব নিকাশ করে একে বারে বিবাহ বিচ্ছেদেরও হুমকি দেয়।

 

এলাকাবাসি জানান, আনু একজন প্রতারক। সে নিজেকে মেম্বার পরিচয় দিয়ে এলাকার সাধারণ মানুষের সাথে নানা প্রতারণাসহ বিভিন্ন অপকর্ম চালিয়ে আসছে। তার অপরাধ সমরাজ্যে রয়েছে স্থানীয় কিছু উশৃঙ্খল যুবক।

 

সর্বশেষ তার প্রতারণার শিকার হন পুত্রবধু ঝর্ণা। এলাকাবাসি এ প্রতারকের বিচারদাবী করেন।

RELATED ARTICLES
- Advertisment -spot_img

Most Popular

Recent Comments