মঙ্গলবার, অক্টোবর 26, 2021
মঙ্গলবার, অক্টোবর 26, 2021
মঙ্গলবার, অক্টোবর 26, 2021
spot_img
Homeকুমিল্লাকুমিল্লার দুর্দান্ত চতুর্থ জয়

কুমিল্লার দুর্দান্ত চতুর্থ জয়

চলমান বিপিএলের ২০তম ম্যাচে মুখোমুখি লড়াইয়ে নামে মাশরাফি বিন মর্তুজার রংপুর রাইডার্স এবং তামিম ইকবালের কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্স। রংপুরকে ১৪ রানে হারিয়ে টানা চতুর্থ জয় তুলে নিয়েছে কুমিল্লা। চার জয়ে ৮ পয়েন্ট নিয়ে দুইয়ে চলে আসে ভিক্টোরিয়ান্সরা। এক পয়েন্ট বেশি নিয়ে শীর্ষে সাকিবের ঢাকা।

শনিবার (১৮ নভেম্বর) মিরপুর শের-ই-বাংলা জাতীয় স্টেডিয়ামে সন্ধ্যা ৬টায় মাঠে নামে দুই দল। টস জিতে আগে ফিল্ডিংয়ের সিদ্ধান্ত নেন রংপুরের দলপতি মাশরাফি। নির্ধারিত ওভারে ৬ উইকেট হারিয়ে কুমিল্লা ১৫৩ রান তোলে। জবাবে, রংপুর ৭ উইকেট হারিয়ে তোলে ১৩৯ রান।

টানা চার ম্যাচ জিততে কুমিল্লার ওপেনিংয়ে নামেন তামিম ইকবাল এবং লিটন দাস। ১৯ বলে চারটি চারের সাহায্যে ২১ রান করে বিদায় নেন তামিম। ১১ বলে ১১ রান করে তামিমের পথে ফেরেন লিটন। তিন নম্বরে নামা ইমরুল কায়েস দলকে টানতে থাকেন। ৩২ বল খেলে করেন ৪৭ রান। তার ইনিংসে ছিল চারটি বাউন্ডারি আর দুটি ওভার বাউন্ডারি।

জস বাটলার (১ রান) নিজেকে মেলে ধরার আগেই সাজঘরে ফেরেন। শোয়েব মালিক ৯ রান করে রানআউট হন। মারলন স্যামুয়েলস ৩৪ বলে চারটি চার আর একটি ছক্কায় করেন ৪১ রান। মোহাম্মদ সাইফুদ্দিন ১৬ রান করে অপরাজিত থাকেন।

রংপুরের স্পিনার সোহাগ গাজী ৪ ওভারে ২৪ রান দিয়ে উইকেট শূন্য থাকেন। দলপতি মাশরাফি ৪ ওভারে ২২ রান খরচায় নেন দুটি উইকেট। রুবেল হোসেন ৪ ওভারে ৪৫ রানের বিনিময়ে নেন ১টি উইকেট। নাজমুল ইসলাম, রবি বোপারা কোনো উইকেট না পেলেও থিসারা পেরেরা ৪ ওভারে ২৬ রান দিয়ে তুলে নেন দুটি উইকেট।

১৫৪ রানের টার্গেটে ব্যাটিংয়ে নেমে রংপুরের আস্থা রাখা দুই ওপেনার বড় ইনিংস খেলতে ব্যর্থ হন। ১৩ বলে তিনটি চারের সাহায্যে ১৭ রান করে বিদায় নেন ক্রিস গেইল। আর ১৪ বলে একটি করে চার ও ছক্কায় ১৩ রান করে সাজঘরে ফেরেন ব্রেন্ডন ম্যাককালাম। কুশল পেরেরা কোনো রান না করেই বিদায় নেন। একই ওভারে রশিদ খান ফিরিয়ে দেন গেইলকে।

শাহরিয়ার নাফিসও (০ রান) নিজেকে খুঁজে পাননি। দলীয় ৩২ রানেই টপঅর্ডারের চার ব্যাটসম্যানকে হারায় রংপুর। সেখান থেকে দলকে টানতে থাকেন মোহাম্মদ মিঠুন আর রবি বোপারা। মিঠুন ২৬ বলে ৩১ রান করে ফেরন।

১১ বলে ১৭ রান করে রানআউট হন দলপতি মাশরাফি। শেষ ওভারে বিদায় নেন থিসারা পেরেরা (১)। রবি বোপারা ৪৮ বলে চারটি চারের সাহায্যে ৪৮ রান করে অপরাজিত থাকেন।

কুমিল্লার স্পিনার রশিদ খান ৪ ওভারে ১৯ রান দিয়ে নেন ২টি উইকেট। মেহেদি হাসান ৪ ওভারে ১৫ রান দিয়ে নেন ২টি উইকেট। পাকিস্তানি পেসার হাসান আলি ৪ ওভারে ৩৯ রান দিয়ে নেন ১টি উইকেট। আল আমিন হোসেন ৪ ওভারে ৩৩ রান দিয়ে নেন ১টি উইকেট। মোহাম্মদ সাইফুদ্দিন ৪ ওভারে ৩০ রান দিয়ে উইকেট পাননি।

এই ম্যাচের মধ্যদিয়ে টানা চার ম্যাচে জয় তুলে নিলো আইকন তামিম ইকবালের কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্স। অপরদিকে, চার ম্যাচের একটিতে জিতেছে মাশরাফির রংপুর রাইডার্স। কাগজে-কলমে সবচেয়ে শক্তিশালী দল গড়েছে রংপুর। যদিও এখন পর্যন্ত নিজেদের ঠিকমতো মেলে ধরতে পারেনি দলটি। তবে দলের সাথে ব্রেন্ডন ম্যাককালাম ও ক্রিস গেইলের মতো বিধ্বংসী ব্যাটসম্যানরা যোগ দিয়েছেন। এদিকে, কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্সের অন্যতম তারকা ক্রিকেটার রশিদ খানের সঙ্গে যোগ দেন পাকিস্তানি অলরাউন্ডার শোয়েব মালিক, পেসার হাসান আলী।

শনিবার (১৮ নভেম্বর) দিনের প্রথম ম্যাচে (১৯তম ম্যাচে) মুখোমুখি হয় ডিফেন্ডিং চ্যাম্পিয়ন ঢাকা ডায়নামাইটস ও গতবারের রানার্সআপ রাজশাহী কিংস। রাজশাহী কিংসকে ৬৮ রানে হারিয়ে শীর্ষে থাকা সাকিবের ঢাকা পয়েন্ট টেবিলে নিজেদের স্থান আরও মজবুত করে। ৬ ম্যাচ খেলে তাদের সংগ্রহ সর্বোচ্চ ৯। অপরদিকে রাজশাহী সমান ম্যাচ খেলে জিতেছে দুটিতে, পয়েন্ট ৪।

কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্স: তামিম ইকবাল (অধিনায়ক), ইমরুল কায়েস, মারলন স্যামুয়েলস, শোয়েব মালিক, জস বাটলার, লিটন দাশ (উইকেটরক্ষক), মোহাম্মদ সাইফুদ্দিন, আল আমিন হোসেন, হাসান আলী, রশিদ খান, মেহেদী হাসান।

রংপুর রাইডার্স: ব্রেন্ডন ম্যাককালাম, ক্রিস গেইল, রবি বোপারা, থিসারা পেরেরা, মাশরাফি বিন মর্তুজা (অধিনায়ক), মোহাম্মদ মিঠুন (উইকেটরক্ষক), রুবেল হোসেন, সোহাগ গাজী, শাহরিয়ার নাফিস, নাজমুল ইসলাম, কুশল পেরেরা।

RELATED ARTICLES
- Advertisment -spot_img

Most Popular

Recent Comments