শুক্রবার, জানুয়ারী 28, 2022
শুক্রবার, জানুয়ারী 28, 2022
শুক্রবার, জানুয়ারী 28, 2022
spot_img
Homeঢাকানারায়ণগঞ্জে বাস-লরি সংঘর্ষ: একই পরিবারের ৪ জন নিহত

নারায়ণগঞ্জে বাস-লরি সংঘর্ষ: একই পরিবারের ৪ জন নিহত

নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁয়ে সোমবার দুপুর সোয়া ১টার দিকে একটি লরির(লং ভেহিক্যাল) সাথে যাত্রীবাহী একটি বাসের মধ্যে সংঘর্ষে একই পরিবারের চারজনসহ ১০ যাত্রী নিহত হয়েছে।এসময় আহত হয়েছে আরো ৩০ জন। এই ঘটনায় ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কে আধঘণ্টা যান চলাচল বন্ধ থাকে। নিহত ১০ জনের মধ্যে ৪ জন একই পরিবারের সদস্য।

তাদের বাড়ি কুমিল্লার চান্দিনায়। এরা হলেন- কাতার প্রবাসী ইলিয়াছ হোসেন (২৮), তার ছেলে ইনান (৮), বড় ভাই মফিজ (৪৭), বড় বোন মিনু আরা (৩৫)। নিহত ইলিয়াছের আরেক ছোট ভাই জাহাংগীর ও ভাতিজা রাজু আহত হয়ে ঢাকা মেডিকেলে চিকিৎসাধীন রয়েছে।

পুলিশ ও আহত যাত্রীরা জানান, রাজধানীর সায়েদাবাদ থেকে চট্টগ্রামগামী সিডিএম পরিবহনের এমডি ইয়াশা নামের একটি বাস বেপরোয়া গতিতে যাওয়ার পথে দুপুর সোয়া একটার দিকে সোনারগাঁ উপজেলার ত্রিবর্দী এলাকায় ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কে একটি লরিকে(লং ভেহিক্যাল) পেছন থেকে ধাক্কা দেয়। এতে যাত্রীবাহী বাসটি দুমড়ে-মুচড়ে যায়। ঘটনাস্থলেই ওই বাসের দুইযাত্রী নিহত হয়। আহত অন্যান্য যাত্রীদের উদ্ধার করে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালসহ স্থানীয় বিভিন্ন হাসপাতালে পাঠানো হয়।

 

এর মধ্যে সোনারগাঁ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে দুইজন ও ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে আরো ৫ জনের মৃত্যু হয়। সড়ক দুর্ঘটনার কারণে ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কে আধাঘণ্টা এক পাশ যানবাহন চলাচল বন্ধ থাকে।

দুর্ঘটনার পর কাঁচপুর হাইওয়ে থানা, পুলিশ, সোনারগাঁ থানা পুলিশ ও ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা উদ্ধার কাজ চালায়। পরে পুলিশ রেকার দিয়ে দুর্ঘটনা কবলিত গাড়িটি সরিয়ে নিলে মহাসড়কে যান চলাচল স্বাভাবিক হয়।

ঢাকা ফায়ার সার্ভিসের উপ-সহকারী পরিচালক মোস্তফা মহসিন জানান, ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা ঘটনাস্থলে পৌঁছেই উদ্ধার কাজ শুরু করে। উদ্ধার কর্মীরা আহতদেরকে দ্রুত হাসপাতালে পাঠাতে সহায়তা করে। তবে তাদের মধ্যে অধিকাংশের অবস্থাই আশংকাজনক।

দুর্ঘটনায় আহত হয়ে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন কুমিল্লার বাসিন্দা অমূল্য কর্মকার জানান, ওই বাসটিতে শতাধিক যাত্রী ছিল। বাসের চালক বেপরোয়া গতিতে চালানোর কারনেই এই দুর্ঘটনা ঘটেছে। দুর্ঘটনায় অধিকাংশ যাত্রীই আহত হয়েছে। এই দুর্ঘটনায় তার স্ত্রীও আহত হয়ে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।

 

দুর্ঘটনায় আহত আবদুর রব বাস চালকের বিরুদ্ধে একই অভিযোগ তুলে জানান, তার পরিবারের পাঁচজন আহত হয়েছেন। বাসের চালক স্বাভাবিক গতিতে গাড়ি চালালে এই দুর্ঘটনা ঘটতো না বলে মন্তব্য করে এই দুর্ঘটনার জন্য তিনি বাসচালককেই সম্পূর্ণভাবে দায়ী করেন।

সোনারগাঁ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোরশেদ আলম, দুর্ঘটনার পর থেকে বাসটির চালক ও হেলপার পলাতক রয়েছে। পুলিশ তাদেরকে গ্রেফতারের চেষ্টা করছে। এ ব্যাপারে হাইওয়ে পুলিশ ও সোনারগাঁ থানা পুলিশের পক্ষ থেকে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

এদিকে এ ঘটনার পর বিকেলে ঢাকা রেঞ্জের ডিআইজি আতিকুল ইসলাম, অতিরিক্ত ডিআইজি আবুল কালাম আজাদ নারায়ণগঞ্জ জেলা পুলিশের কর্মকর্তাদের নিয়ে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন।

RELATED ARTICLES
- Advertisment -spot_img

Most Popular

Recent Comments