মেডিকেলে ভর্তি পরীক্ষা তুলে দেয়া হবে: স্বাস্থ্যমন্ত্রী আ ফ ম রুহুল হক

নিউজ ডেস্ক, ২৩ নভেম্বর (খবর তরঙ্গ ডটকম)- মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিকের ফলাফলের ভিত্তিতেই আগামীবার থেকে মেডিকেল কলেজে ভর্তি করানো হবে বলে জানিয়েছেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী আ ফ ম রুহুল হক। শুক্রবার সরকারি ও বেসরকারি মেডিকেল ও ডেন্টাল কলেজের ভর্তি পরীক্ষা পরিদর্শনকালে স্বাস্থ্যমন্ত্রী সাংবাদিকদের কাছে এ অবস্থান ব্যক্ত করেন।

তিনি বলেন, শিক্ষার্থীদের ভর্তি পরীক্ষার ভোগান্তি কমাতে তাদের মেধা তালিকার ভিত্তিতে বাছাই করা হবে। ১২ বছর ধরে একজন শিক্ষার্থী যে মেধা অর্জন করছে তার ভিত্তিতে ভর্তি করানো হবে। একটি কেন্দ্রীয় ব্যবস্থাপনার মাধ্যমে এটা করা সম্ভব।

এদিকে, শুক্রবার মাত্র আট হাজার ৪৯৩ আসনের বিপরীতে ৫৮ হাজার ৭২৩ জন শিক্ষার্থী মেডিকেল ও ডেন্টল কলেজগুলোর ভর্তি পরীক্ষায় অংশ নেন।

শুক্রবার সকালে ১০টা থেকে ১১টা পর্যন্ত ২০১২-১৩ শিক্ষাবর্ষের মেডিকেল ও ডেন্টাল কলেজের ভর্তি পরীক্ষা নেয়া হয়। দেশের ৩৩টি পরীক্ষা কেন্দ্রে এক ঘণ্টার এমসিকিউ পদ্ধতিতে এ পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়েছে।

২২টি সরকারি মেডিকেল কলেজে দুই হাজার ৮১১ এবং ৫৩টি বেসরকারি মেডিকেলে চার হাজার ২৪৫টি আসন রয়েছে। এ ছাড়া নয়টি সরকারি ডেন্টাল কলেজ ও মেডিকেল কলেজ ডেন্টাল ইউনিটে ৫৬৭টি আসন রয়েছে। আর ১৪টি বেসরকারি ডেন্টাল ইনস্টিটিউটে রয়েছে ৮৭০টি আসন।

স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের পক্ষে এর আগে নকল এড়াতে পরীক্ষা হলে মোবাইল ফোন ও ঘড়ি নিয়ে প্রবেশ নিষিদ্ধ করা হয়। এছাড়া শুধুমাত্র সাধারণ ক্যালকুলেটর নিয়ে পরীক্ষার্থীদের প্রবেশের কথা বলা হয়।

প্রতিটি কেন্দ্রে এ পরীক্ষা তদারকির জন্য উচ্চ পর্যায়ের কমিটি করা হয়।  কমিটিতে মন্ত্রী, প্রতিমন্ত্রী, সিনিয়র সচিব, অতিরিক্ত সচিব, যুগ্ম সচিব এবং স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয়ের অনেক জ্যেষ্ঠ কর্মকর্তা ছিলেন বলে জানা গেছে।

গত ১২ আগাস্ট স্বাস্থ্যমন্ত্রী আ ফ ম রুহুল হক এবার থেকে কোনো ভর্তি পরীক্ষা নয়, এসএসসি ও এইচএসসির জিপিএ’র ভিত্তিতে মেডিকেল ও ডেন্টালে শিক্ষার্থী ভর্তি করা হবে বলে ঘোষণা দেন।

স্বাস্থ্যমন্ত্রীর ওই ঘোষণার পরপর তার বিরুদ্ধে সারা দেশে আন্দোলন শুরু করে মেডিকেল ভর্তিচ্ছুরা। তাদের আন্দোলনের মুখে সিদ্ধান্ত থেকে সরে আসে সরকার। তবে আগামী বছর থেকে মেধার ভিত্তিতে ভর্তি সম্পন্ন করা হবে বলে জানানো হয়।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।