মহাজোট সরকারের চার বছরে গণমাধ্যমের ওপর কোনো ধরনের হস্তক্ষেপ করা হয়নি: তথ্যমন্ত্রী

ঢাকা, ডিসেম্বর ২৫(খবর তরঙ্গ ডটকম)- বর্তমান মহাজোট সরকারের চার বছরে গণমাধ্যমের ওপর কোনো ধরনের হস্তক্ষেপ করা হয়নি বলে দাবি করেছেন তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু।মঙ্গলবার জাতীয় প্রেসক্লাবে ঢাকা সাব-এডিটরস কাউন্সিল (ডিএসইসি) আয়োজিত বৃত্তি প্রদান ও সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে তথ্যমন্ত্রী এসব কথা বলেন।ইনু বলেন, মহাজোট সরকারের চার বছরে গণমাধ্যমর ওপর আইন ও প্রশাসনের দিক থেকে কোনো ধরনের অদৃশ্য হস্তক্ষেপ করা হয়নি। বরং গণমাধ্যমের পরিধি বৃদ্ধির জন্য গণমাধ্যম সহায়ক আইন করা হয়েছে।তিনি বলেন, সাংবাদিকরা অনেক ঝুঁকি নিয়ে কাজ করছেন। যথাযথ আইনি সুবিধা না পাওয়ায় হয়তো তাদের কিছুটা ক্ষোভ রয়েছে।

গণমাধ্যম ও তথ্য মন্ত্রণালয়কে এক ও অভিন্ন উল্লেখ করে তথ্যমন্ত্রী বলেন, সরকারের দায়িত্ব থাকা অবস্থায় এ বিষয়ে কথা বলা কঠিন, তথ্য মন্ত্রণালয়ে থেকে বলা আরো কঠিন।

তিনি বলেন, উপনিবেশ ও স্বাধীনতা, সামরিক শাসন ও গণতন্ত্র এক নয়। এ দুয়ের মধ্যে ভারসাম্য রক্ষা করা যায় না। আপনাকে হয়তো সামরিক শাসনের পক্ষে, না হয় গণতন্ত্রের পক্ষে থাকতে হবে।

বিরোধীদলীয় নেত্রী খালেদা জিয়াকে উদ্দেশ্য করে ইনু বলেন, ‘একজন নেত্রী সরাসরি যুদ্ধাপরাধীদের বাঁচানোর জন্য হরতালের ডাক দেন। তাদের জন্যই সাংবাদিকরা বিপদে পড়েন।’

তিনি বলেন, সম্প্রতি জঙ্গিবাদ, মৌলবাদ ও সাম্প্রদায়িক শক্তি মাথাচাড়া দিয়ে উঠছে। এক্ষেত্রে ভারসাম্য রক্ষার নামে তাদের যাতে কোনো সুযোগ না দেয়া হয়।

তিনি বলেন, অতীতে গণমাধ্যম যেমন গণতন্ত্রের পক্ষে ছিল, ভবিষ্যতেও গণমাধ্যম গণতন্ত্রের পক্ষে থাকবে। গণমাধ্যমের ওপর কোনো বাধা আসলে নিজের বুক পেতে দেবেন বলেও প্রতিশ্রুতি দেন তথ্যমন্ত্রী।

সংগঠনের সভাপতি মো. আল-মামুনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে অন্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন- দৈনিক সমকালের সম্পাদক গোলাম সারওয়ার, বৈশাখী টেলিভিশনের সিইও ও প্রধান সম্পাদক মনজুরুল আহসান বুলবুল, বিএসবি ফাউন্ডেশনের চেয়ারম্যান লায়ন এমকে বাশার প্রমুখ।

ঢাকা সাব-এডিটরস কাউন্সিলের সাধারণ সম্পাদক আবুল কালাম আযাদ অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।