রাজধানীতে শিক্ষকদের সঙ্গে র‌্যাব-পুলিশের সংঘর্ষ - খবর তরঙ্গ
শিরোনাম :

রাজধানীতে শিক্ষকদের সঙ্গে র‌্যাব-পুলিশের সংঘর্ষ



ঢাকা, (খবর তরঙ্গ ডটকম)

রাজধানীর সচিবালয় এলাকায় আজ বুধবার র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ন (র‌্যাব) ও পুলিশের সঙ্গে নন-এমপিও শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান শিক্ষক-কর্মচারী ঐক্যজোটের শিক্ষকদের সংঘর্ষ হয়েছে। এমপিওভুক্তির দাবিতে শিক্ষকেরা শিক্ষা ও অর্থ মন্ত্রণালয় ঘেরাও কর্মসূচি পালন করার সময় এ ঘটনা ঘটে।
সরজমিনে গিয়ে দেখা যায়, আজ বেলা একটার দিকে প্রেসক্লাবের সামনে থেকে সচিবালয়ের ৫ নম্বর ফটকের সামনে যান আন্দোলনরত শিক্ষকেরা। সেখানে পুলিশ ও র‌্যাবের সদস্যরা প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি করে রেখেছিলেন। আন্দোলনরত শিক্ষকদের সামনে এগোতে তাঁরা বাধা দিলে আন্দোলনকারীরা তাঁদের লক্ষ্য করে ইটপাটকেল ছুড়তে শুরু করেন। এ সময় আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যরা শিক্ষকদের ছত্রভঙ্গ করতে কাঁদানে গ্যাসের শেল ছোড়েন। এতে শিক্ষকেরা পিছু হটে যান। পরে তাঁরা সংঘবদ্ধ হয়ে র‌্যাব ও পুলিশের দিকে ইটপাটকেল ছুড়তে থাকেন। একপর্যায়ে দুই পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষ ও ধাওয়া-পাল্টাধাওয়ার ঘটনা ঘটে। পরে শিক্ষকেরা ছত্রভঙ্গ হয়ে যান।
শিক্ষকেরা সচিবালয় এলাকার আশপাশে জড়ো হওয়ার চেষ্টা চালাচ্ছেন। কাঁদানে গ্যাস ছুড়ে পুলিশ তাঁদের ছত্রভঙ্গ করে দিচ্ছে। গ্যাসের কারণে কয়েকজন শিক্ষক অসুস্থ হয়ে পড়েছেন বলে প্রত্যক্ষদর্শীরা জানিয়েছেন।
পুলিশের রমনা জোনের উপকমিশনার সৈয়দ নুরুল ইসলাম সাংবাদিকদের বলেন, ‘আমরা গতকালের মতো আজও সহনশীলতার পরিচয় দিয়েছি। কিন্তু আপনারা দেখেছেন, তাঁরাই পুলিশকে লক্ষ্য করে ইটপাটকেল নিক্ষেপ করেছেন। একপর্যায়ে পুলিশ আত্মরক্ষার্থে টিয়ার গ্যাসের শেল নিক্ষেপে বাধ্য হয়েছে। আমাদের ধারণা, এ হামলা জামায়াত করেছে। শিক্ষকদের আচরণ এমন হতে পারে না। শিক্ষকদের প্রতি আমাদের যে দুর্বলতা আছে, সেই সুযোগ কাজে লাগিয়ে জামায়াত এ ঘটনা ঘটিয়েছে।’
সংঘর্ষের ঘটনায় রমনা জোনের সহকারী কমিশনার শিবলী নোমানসহ বেশ কয়েকজন পুলিশ সদস্য আহত হয়েছেন বলে দাবি করেছেন সৈয়দ নুরুল ইসলাম।
ছত্রভঙ্গ হয়ে যাওয়ায় আজকের ঘটনা সম্পর্কে আন্দোলনকারী শিক্ষকদের বক্তব্য নেওয়া সম্ভব হয়নি।
আজ সকাল ১০টা থেকে জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনের সড়কে অবস্থান নিয়ে বিক্ষোভ করেন আন্দোলনরত শিক্ষকেরা। পরে তাঁরা সেখান থেকে শিক্ষা ও অর্থ মন্ত্রণালয় ঘেরাওয়ের উদ্দেশে সচিবালয়ের দিকে যান। ঐক্যজোটের পক্ষ থেকে গতকাল মঙ্গলবার শিক্ষা ও অর্থ মন্ত্রণালয় ঘেরাওয়ের কর্মসূচি ঘোষণা করা হয়।
স্বীকৃতিপ্রাপ্ত সব বেসরকারি স্কুল, কলেজ, মাদ্রাসা ও কারিগরি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের এমপিওভুক্তির (বেতন-ভাতা বাবদ মাসিক সরকারি টাকা) দাবিতে কর্মসূচির তৃতীয় দিন আজ।
গতকাল নন-এমপিও শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান শিক্ষক-কর্মচারী ঐক্যজোট মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা অধিদপ্তর (শিক্ষা ভবন) ঘেরাও করতে গেলে পুলিশ বাধা দেয়। পুলিশ কাঁদানে গ্যাস ছুড়ে তাদের ছত্রভঙ্গ করে দেয়।


পূর্বের সংবাদ