সরকারকে ৭ দিন সময় দিল পেট্রোল পাম্প ও ট্যাঙ্ক লরী মালিক-শ্রমিকরা: দাবি পূরণ

সরকারের দেয়া প্রতিশ্রুতিসহ অন্যান্য দাবি আগামী শনিবারের মধ্যে পূরণ করা না হলে আগামী রোববার থেকে সারা দেশে অনির্দিষ্টকালের জন্য কর্মবিরতি পালন করবে পেট্রোল পাম্প ও ট্যাঙ্ক লরী মালিক-শ্রমিকরা।রোববার দুপুরে রাজধানীর একটি হোটেলে সংবাদ সম্মেলনে এ ঘোষণা দেন বাংলাদেশ পেট্রোল পাম্প ও ট্যাঙ্ক লরী মালিক শ্রমিক ঐক্য পরিষদের আহ্বায়ক মোহাম্মদ নাজমুল হক।তিনি বলেন, ‘আমরা আমাদের ন্যায্য ও যুক্তিসংগত দাবি আদায়ের জন্য দীর্ঘদিন ধরে আন্দোলন করে আসছি। এ বিষয় সংগঠনের পক্ষ থেকে পর পর পাঁচবার কর্মবিরতির ডাক দেয়া হলে সরকার প্রতিবারই দাবি পূরণের আশ্বাস দেয়। কিন্তু নির্দিষ্ট সময় গড়িয়ে যাবার পরও দাবি পূরণ করা হয়নি।

সরকারের এ আচরণ ও উদাসীনতায় জ্বালানি তেল সেক্টরে নিয়োজিত কয়েক লাখ মানুষ হতাশাগ্রস্ত বলে জানান নাজমুল।

তিনি আরো বলেন, ব্যবসায়ীরা এখন পুঁজি হারানোর দ্বারপ্রান্তে, শ্রমিকরা নিদারুণ আর্থিক এবং দৈহিক কষ্টে দিনযাপন করছে। এরুপ অবস্থায় আমাদের পক্ষে জ্বালানি তেলের বিপণন ও পরিবহন চালিয়ে যাওয়া অসম্ভব হয়ে পড়েছে।

নাজমুল হক বলেন, আগামী ১৯ জানুয়ারির মধ্যে সরকার দাবি পূরণ না করলে ২০ তারিখ থেকে সারা দেশে লাগাতার কর্মবিরতি পালন করবে পেট্রোল পাম্প ও ট্যাঙ্ক লরী মালিক-শ্রমিকরা।

প্রধান দাবির মধ্যে রয়েছে- জ্বালানি তেল বিক্রয় কমিশন ডিজেল ৩.৪ শতাংশ এবং পেট্রোল ও অকটেনে ৪ শতাংশ করতে হবে, জ্বালানি তেলের দাম বৃদ্ধি ফলে ট্যাঙ্ক লরী ভাড়া বৃদ্ধি করতে হবে, ট্যাঙ্ক লরী মালিকদের ড্রাইভিং লাইসেন্স ইস্যু এবং নবায়ণ করতে হবে, দুর্ঘটনা বাবধ ট্যাঙ্ক লরী চালকদের পাঁচ লাখ টাকার বীমা প্রথা চালু করতে হবে এবং শ্রমিক নেতা মীর মোকসেদ ও আমির হোসনের বিরুদ্ধে দায়ের মিথ্যা মামলা প্রত্যাহার।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।