চট্টগ্রাম-১২ আসনে ভোটগ্রহণ শুরু, ভোটার উপস্থিতি কম - খবর তরঙ্গ
শিরোনাম :

চট্টগ্রাম-১২ আসনে ভোটগ্রহণ শুরু, ভোটার উপস্থিতি কম



চট্টগ্রাম, (খবর তরঙ্গ ডটকম)

চট্টগ্রাম-১২ (আনোয়ারা-পশ্চিম পটিয়া) আওয়ামী লীগ নেতা আখতারুজ্জামান চৌধুরীর মৃত্যুতে শূন্য হওয়া আসনের উপ-নির্বাচনে ভোটগ্রহণ শুরু হয়েছে। তবে বিরোধী দলের প্রার্থী না থাকায় ভোটার উপস্থিতি খুবই কম রয়েছে। বৃহস্পতিবার সকাল ৮টা ভোটগ্রহণ শুরু হয়। একটানা ভোটগ্রহণ চলবে বিকেল ৪টা পর্যন্ত। এই আসনের মোট ৯০টি কেন্দ্রের মধ্যে ৬০টি আনোয়ারায়, বাকি ৩০টি পশ্চিম পটিয়ায়। ভোটার সংখ্যা ২ লাখ ৫ হাজার ২৫৭ জন ভোটার, যার মধ্যে নারী এক লাখ ২৩ হাজার ৯৬৪ জন, বাকি ১ লাখ ২৬ হাজার ২৯৩ জন পুরুষ।

সকালে বিভিন্ন কেন্দ্র ঘুরে দেখা যায় প্রথম ঘণ্টায় ভোটরদের উপস্থিতি ছিল একেবারেই কম। বিরোধী দলসহ অন্য দলগুলোর প্রার্থী না থাকায় ভোটারদের মধ্যে নির্বাচনী উত্তাপ নেই। অনেকগুলো ভোটকেন্দ্র ছিল প্রায় ফাঁকা।

নির্বাচনে আওয়ামী লীগের মনোনয়নে নৌকা প্রতীক নিয়ে প্রয়াত সাংসদ আখতারুজ্জামান চৌধুরীর ছেলে সাইফুজ্জামান চৌধুরী জাবেদ এবং উদীয়মান সূর্য প্রতীক নিয়ে গণফোরামের উজ্জ্বল ভৌমিক প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন।

সকাল সাড়ে ৮টায় বশিরুজ্জামান স্মৃতি শিক্ষা কেন্দ্রে ভোট দেয়ার পর জাবেদ সাংবাদিকদের বলেন, ‘উপ-নির্বাচনে এমনিতেই উৎসবের আমেজ খুব একটা থাকে না। তবে বেলা বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে ভোটারদের উপস্থিতিও বাড়বে বলে আমি আশা করি।’

গত বছরের ৪ নভেম্বর পাট ও বস্ত্র মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত স্থায়ী কমিটির সভাপতি ও আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য আখতারুজ্জামান চৌধুরী বাবুর মৃত্যুর পর আসনটি শূন্য হয়। এরপর ৯ ডিসেম্বর উপ-নির্বাচনের তফসিল ঘোষণা করে নির্বাচন কমিশন।

জেলা পুলিশ সুপার এ কে এম হাফিজ আকতার জানান, নির্বাচন শান্তিপূর্ণ করতে নিরাপত্তা বাহিনীর চার হাজার সদস্য নিয়োজিত রয়েছেন। এর মধ্যে এক হাজার ৩৫০ জন পুলিশ সদস্য ছাড়াও উপকূলীয় এলাকায় কোস্ট গার্ড ও বিজিবি সদস্যরা রয়েছেন।

এছাড়া, নির্বাচনচলাকালীন ও পরবর্তী সময়ে আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতি স্বাভাবিক রাখতে আড়াইশ’ র্যা ব সদস্য নিয়োজিত থাকছেন বলে জানিয়েছেন র্যা ব-৭ এর অধিনায়ক লে. কমান্ডার মো. সাইফুল করিম।

২৫ জন নির্বাহী ম্যজিস্ট্রেট ও তিনজন বিচারিক ম্যাজিস্ট্রেট সার্বিক বিষয়গুলোর দেখভাল করছেন।


পূর্বের সংবাদ