রাজধানীতে পোশাক কারখানায় আগুন: নিহত ৬

রাজধানীর মোহাম্মদপুর বেড়িবাঁধ এলাকার তিন রাস্তার মোড়ের খান মার্কেটের ২য় তলার একটি পোশাক কারখানায় শনিবার বিকেল ৩টায় ফের আগুন লেগে ৬ শ্রমিকের মর্মান্তিক মৃত্যু হয়েছে।এছাড়া এ ঘটনায় আরও ১৫ শ্রমিক আহত ও অসুস্থ হয়ে বিভিন্ন হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন বলে জানা গেছে।নিহত এক শ্রমিকের লাশ ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে এবং বাকি ৫ শ্রমিকের লাশ শিকদার মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে রয়েছে। তারা ধোঁয়ায় অচেতন ও ভবন থেকে লাফিয়ে পড়ে মারা গেছেন বলে প্রাথমিক খবরে জানা গেছে।

জানা গেছে, আগুন থেকে বাঁচতে দোতলা থেকে লাফিয়ে ৭ থেকে ৮ জনসহ মোট ১৫ জন আহত হয়েছেন।

এবিষয়ে  ফায়ার সার্ভিস সদর দপ্তরের উপসহকারী পরিচালক মো. আ. হালিম  জানান রাজধানীর মোহাম্মদপুর বেড়িবাঁধ এলাকার তিন রাস্তার মোড়ের খান মার্কেটের ২য় তলায়  শর্ট সাকিটের  কারণে স্মার্ট ফ্যাশন পোশাক কারখানায় আগুন লাগে।

এসময় ধোঁয়ায় এবং ভবন থেকে লাফিয়ে পড়ে মোট ৬ জন নিহত এবং  ১৫ জন শ্রমিক অসুস্থ ও আহত হন।

তিনি জানান,  ফায়ার সার্ভিসের ৭টি ইউনিট দেড় ঘণ্টার চেষ্টায় আগুন নিয়ন্ত্রণে আনতে সক্ষম হয়।

এদিকে, ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল সূত্রে জানা গেছে,  সেখানে জোছনা (২০) নামে এক শ্রমিক মারা গেছেন। তিনি মোহাম্মদীয়া হাউজিংয়ে থাকতেন। তার বাড়ি ভোলা জেলার বোরহান উদ্দিনে। তার বাবার নাম কাওছার।

এছাড়া আরও এক অজ্ঞাতপরিচয় নারী শ্রমিক অসুস্থ হয়ে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন।

অপরদিকে,শিকদার মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের জরুরি ইউনিটের সামনে রাখা হয়েছে পাঁচজনের লাশ।

এরা হলেন- ঝালকাঠির রাজাপুর থানার কালুদাস কাঠি গ্রামের আলফাজের মেয়ে রাজিয়া (১৫), অজ্ঞাতপরিচয় কিশোরী (১৫), বসিলা বস্তির জাবেদ হোসেনে মেয়ে কোহিনুর (১৫), ভোলার বোরহান উদ্দিন থানার চর গাজীপুর গ্রামের আজিজুল হকের মেয়ে নাসিমা (৩০) ও বোরহান উদ্দিন থানার দেউলা গ্রামের নয়া মিয়ার মেয়ে নাসিমা (১৭)।

তবে ক্ষয়ক্ষতির পরিমাণ এখনও জানা যায়নি।

উল্লেখ্য, গত বছরের ২৪ নভেম্বর আশুলিয়ার নিশ্চিন্তপুর এলাকায় তাজরীন ফ্যাশনস লিমিটেডে অগ্নিকাণ্ডে মোট ১শ ১২ জন মারা যান।

এতে কারখানাটির ৯ তলা ভবনের ৬ তলা পুড়ে যায়। এঘটনার জন্য ২৭ নভেম্বর দেশে শোকদিবস পালন করা হয়। এঘটনায় দেশে-বিদেশে ব্যাপক সমালোচনার ঝড় ওঠে।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।