বিচারপতি জহুরুলের তলবাদেশ প্রত্যাহার : জেসমিনের জামিন বাতিল

হলমার্ক গ্রুপের চেয়ারম্যান জেসমিন ইসলামের সোনালী ব্যাংকের ঋণ কেলেঙ্কারির ঘটনায় দুদকের দায়ের করা ১১ দুর্নীতি মামলায় জামিন বাতিলের ঘটনায় ঢাকার সিনিয়র বিশেষ জজ মো. জহুরুল হকের তলবাদেশ প্রত্যাহার করেছেন হাইকোর্ট। তবে এ বিষয়ে জারি করা রুলের জবাব দেয়ার বিষয়টি রেখে দেয়া হয়েছে। রোববার দুপুরে বিচারপতি এএইচএম শামসুদ্দিন চৌধুরী ও বিচারপতি মাহমুদুল হকের হাইকোর্ট বেঞ্চ এ আদেশ দেন। গত ৭ ফেব্রুয়ারি বিচারিক আদালত জেসমিন ইসলামের জামিন মঞ্জুর করার পর ১০ ফেব্রুয়ারি সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী ড. ইউনুস আলী আকন্দ হাইকোর্টে একটি আবেদন করেন।

 ওই আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে গত ১৩ ফেব্রুয়ারি হাইকোর্ট ঢাকা মহানগর দায়রা জজ মো. জহুরুল হককে হাইকোর্টে তলব করেন।
এর আগে ১১ ফেব্রুয়ারি জেসমিন ইসলাম যাতে দেশত্যাগ না করতে পারেন, সে জন্য প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে নির্দেশ দেন। এছাড়াও জেসমিন ইসলামের জামিন কেন বাতিল করা হবে না, তা জানতে চেয়ে রুল জারি করা হয়।  আগামী ১৮ ফেব্রুয়ারি তাকে হাইকোর্টে হাজির হতে নির্দেশ দেন।
ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল অমিত তালুকদার বলেন, বিচারিক আদালতে জামিন বাতিলের বিষয়টি হাইকোর্টকে অবহিত করার পর আদালত তলবাদেশ প্রত্যাহার করেন।
গত ৭ ফেব্রুয়ারি জেসমিনকে ১১ মামলায় জামিন দেয়ার পর রোববার দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) পক্ষ থেকে সবগুলো মামলায়ই জামিন বাতিল করার আবেদন করা হয়।
গত বছরের ১৭ অক্টোবর সন্ধ্যা সোয়া ৭টায় মানিকগঞ্জ সার্কিট হাউজের পেছনের একটি বাসা থেকে তাকে আটক করে র‌্যাব।
এরপর তাকে ১১ মামলার মধ্যে রমনা থানার তিনটি মামলায় কয়েক দফায় ১৩ দিনের রিমান্ডে নেয় দুদক।
উল্লেখ্য, বহুল আলোচিত হলর্মাক গ্রুপের ব্যবস্থাপনা পরিচালক তানভীর মাহমুদ ও তার স্ত্রী চেয়ারম্যান জেসমিন ইসলামসহ মোট ২৭ জনকে আসামি করে গত বছরের ৪ অক্টোবর রূপসী বাংলা হোটেল শাখা থেকে হলর্মাক মোট দুই হাজার ৬৮৬ কোটি ১৪ লাখ টাকা আত্মসাৎ করার অভিযোগে ১১টি মামলা করে দুদক। আসামিদের মধ্যে হলমার্কের সাত জন এবং সোনালী ব্যাংকের ২০ জন কর্মকর্তা রয়েছেন।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।