মে দিবসে শ্রমিকদের বিক্ষোভ: ঘাতক মালিকদের বিচার দাবিতে

বুধবার রাজধানীসহ আশেপাশের এলাকায় সাভারে ধ্বসে পড়া রানা প্লাজার পাঁচ তৈরি পোশাক কারখানার মালিকদের বিচার চেয়ে বিক্ষোভ করেছে শ্রমিকরা। এর আগে মঙ্গলবার প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা শ্রমিকদের ‘মাথা ঠাণ্ডা’ রাখার আহ্বান জানিয়েছিলেন। বাংলাদেশসহ বিশ্বের শিল্প খাতের ইতিহাসে ভয়াবহতম এই দুর্ঘটনায় চারশর বেশি শ্রমিকের লাশ এযাবত ধ্বংসস্তুপ থেকে উদ্ধার করা হয়েছে।  ধসে মৃত শ্রমিকের সংখ্যা কমপক্ষে একহাজার ছাড়াবে বলেই মনে হচ্ছে। ধ্বংসস্তূপে নিখোঁজদের যে হিসাব রয়েছে তাতে আরো অন্তত নয়শত শ্রমিকের দেহ এখনো মেলেনি।

বুধবার রাজধানীসহ উপকন্ঠের এলাকাগুলোকে মে দিবসের শ্রমিক মিছিল-সমাবেশগুলো কার্যত রানা’য় নিহতদের জন্য শোক ও দায়ীদের বিচার দাবির বিক্ষোভে রুপ নেয়।

রাজধানীর গুলিস্তান, মতিঝিল ও জাতীয় প্রেসক্লাব এলাকায় মিছিল করেছে  অনেক শ্রমিক সংগঠন। হাতিরঝিলে বাংলাদেশ গার্মেন্টস ম্যানুফ্যাকচারার্স অ্যান্ড এক্সপোর্টার্স অ্যাসোসিয়েশন বা বিজিএমইএ’র ভবনের সামনে অবস্থান কর্মসূচি পালন করছে কয়েকটি সংগঠন।

শিল্পাঞ্চল নারায়ণগঞ্জ, গাজীপুর ও আশুলিয়া জুড়েও অনেক বিক্ষোভ মিছিল হয়েছে।  এছাড়া উদ্ধারকাজে গাফিলতি ও লাশ গুম করার অভিযোগ তুলে বিক্ষোভ দেখিয়েছেন সাভারে রানা প্লাজার কাছে সমবেত স্বজন হারানো মানুষ।


সম্পাদনা: শামীম ইবনে মাজহার,নিউজরুম এডিটর

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।