মালয়েশিয়ায় ১৫ লাখ কর্মী পাঠাতে সমঝোতায় চুক্তি সই করেছে বাংলাদেশ

বেসরকারিভাবে মালয়েশিয়ায় বড়পরিসরে কর্মী পাঠাতে  ‘জিটুজি প্লাস’ সমঝোতায় সই করেছে বাংলাদেশ। এ চুক্তি অনুযায়ী দেশটিতে কনস্ট্রাকশন, সার্ভিস, প্লান্টেশন, এগ্রিকালচার এবং ম্যানুফ্যাকচারিং খাতে ১৫ লাখ কর্মী যাবে।

 

রাজধানীর ইস্কাটনে প্রবাসী কল্যাণ ভবনে বৃহস্পতিবার সকাল ১০টার দিকে বাংলাদেশের পক্ষে প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থানমন্ত্রী নুরুল ইসলাম বিএসসি ও মালয়েশিয়ার পক্ষে দেশটির মানবসম্পদমন্ত্রী রিচার্ড রায়ট আনক জিম চুক্তিতে সই করেন।

 

সমঝোতা স্মারক সই করার পরে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে মালয়েশিয়ার মানবসম্পদমন্ত্রী রিকার্ড রায়ট আনক জিম বলেন, নতুন এই পদ্ধতিতে মনোপলি (একচেটিয়া) ব্যবসার কোনো সুযোগ নেই।

 

একেকজন কর্মীর ন্যূনতম মজুরি কত হবে এ সংক্রান্ত এক প্রশ্নের জবাবে রিকার্ড রায়ট আনক জিম বলেন, স্থানীয়ভাবে মালয়েশিয়ায় এলাকাভেদে ন্যূনতম মজুরি হলো ৯০০ ও ৮০০ রিঙ্গিত। সে অনুযায়ী মজুরি হবে।

 

অনুষ্ঠানে প্রবাসীকল্যাণমন্ত্রী বলেন, বাংলাদেশের কর্মী পাঠাতে একেক জনের অভিবাসনব্যয় ৩৪,০০০ থেকে ৩৭,০০০ মধ্যে সীমিত রাখা সম্ভব হবে।

 

সমঝোতা স্মারকের ফলে শিগগিরই মালয়েশিয়ায় উল্লেখযোগ্য হারে কর্মসংস্থান সৃষ্টি হবে। আগে শুধু বৃক্ষরোপণে কর্মী নিয়োগের সুযোগ ছিল। এখন সেবা, নির্মাণ, কৃষি, বৃক্ষরোপণ ও অবকাঠামো খাতেও কর্মী নিয়োগের সুযোগ উন্মুক্ত হলো।

 

সমঝোতা স্মারক চুক্তির মেয়াদ হবে পাঁচ বছর। তবে দুই পক্ষের সম্মতিতে তা বাড়ানো যাবে। সরকারের পাশাপাশি বেসরকারি রিক্রুটিং এজেন্সি কর্মী নিয়োগের সঙ্গে সম্পৃক্ত থাকবে। সরকারের তথ্যভান্ডারে নিবন্ধিত কর্মীর তালিকা থেকে কর্মী পাঠানো হবে।

 

এ সময় প্রবাসী কল্যাণ মন্ত্রণালয়ের ভারপ্রাপ্ত সচিব বেগম শামসুন নাহার, কুয়ালালামপুরে নিযুক্ত বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত শহীদুল ইসলামসহ প্রবাসী কল্যাণ মন্ত্রণালয়ের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা এবং মালয়েশিয়ার পক্ষে সে দেশের ডেপুটি সেক্রেটারি জেনারেল (পলিসি অ্যান্ড ইন্টারন্যাশনাল) মোহাম্মদ সাহার দারুসমান, শ্রম বিভাগের মহাপরিচালক মোহাম্মদ জেফরি বিন জোয়াকিম, আন্ডার সেক্রেটারি (লেবার পলিসি ডিভিশন) বেটি হাসান, মানবসম্পদ মন্ত্রণালয়ের বিশেষ কর্মকর্তা রবার্ট দাপান, অ্যাসিসট্যান্ট সেক্রেটারি (লেবার অব পলিসি ডিভিশন) সতিশ শ্রীনিভাসান, স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের আন্ডার সেক্রেটারি (ফরেন ওয়ার্কাস ম্যানেজমেন্ট ডিভিশন) মোহাম্মদ জামরি বিন মাত জাইন এবং ঢাকায় নিযুক্ত মালয়েশিয়ান রাষ্ট্রদূত নূর আশিকান বিনতি মোহাম্মদ তিয়াব উপস্থিত ছিলেন।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।