ঢাকার বাইরে চলছে না বাস - খবর তরঙ্গ
শিরোনাম :

ঢাকার বাইরে চলছে না বাস



অনলাইন ডেস্ক, (খবর তরঙ্গ ডটকম)

নতুন সড়ক আইন সংশোধনের দাবিতে চালক ও শ্রমিকদের অঘোষিত ধর্মঘটের টানা তিন দিন পর আজ কিছু কিছু জেলায় বাস চলাচল স্বাভাবিক হয়েছে। ঢাকা, ময়মনসিংহ, মাদারীপুর, হিলিসহ কয়েক জেলায় আজ সকাল থেকেই বাস চলাচল করতে দেখা গেছে।

তবে খুলনা, বাগেরহাট, ঝিনাইদহ, কুড়িগ্রাম, টাঙ্গাইলসহ অনেক জেলায় আজ চতুর্থ দিনের মতো বাস চলাচল বন্ধ রয়েছে। এসব জেলায় দূরপাল্লার কোনও বাস ছেড়ে যায়নি। অভ্যন্তরীণ রুটেও বাস চলাচল ছিল কম।

এদিকে ট্রাক-কাভার্ডভ্যান পণ্য পরিবহন মালিক-শ্রমিক ঐক্য পরিষদের ডাকা অনির্দিষ্টকালের কর্মবিরতি প্রত্যাহারের পর বৃহস্পতিবার সকালে ঢাকা থেকে পণ্য পরিবহন চলাচল স্বাভাবিক রয়েছে।

সড়ক পরিবহন আইন সংশোধনের দাবিতে বুধবার ঢাকা থেকে কম পরিসরে বাস ছেড়ে গেলেও আজ চলাচল ছিল স্বাভাবিক। আজ সকাল থেকে ঢাকা থেকে দূরপাল্লার বাস ছেড়ে গেছে।

সায়েদাবাদ আন্তঃজেলা বাস-মালিক সমিতির সভাপতি আবুল কালাম বলেন, সায়েদাবাদ থেকে সিলেটসহ পূর্বাঞ্চলের সব পরিবহন ছেড়ে গেছে। কোথাও কোনও সমস্যা নেই। আমি সকাল থেকে সায়েদাবাদ টার্মিনালে রয়েছি। শ্রমিক মালিক সবাই পরিবহন নিয়ে সড়কে নেমেছেন।

শরীয়তপুর
শরীয়তপুরের অভ্যন্তরীণ রুটগুলোতে ঢিলেঢালাভাবে বাস চললেও দূরপাল্লার কোনও বাস ছেড়ে যায়নি। এর ফলে ভোগান্তি পোহাতে হচ্ছে সাধারণ যাত্রীদের। তবে আগামীকাল থেকে বাস চলাচল স্বাভাবিক হবে বলে জানিয়েছেন শ্রমিক নেতারা।

খুলনা
নতুন সড়ক পরিবহন আইন সংশোধনের দাবিতে খুলনায় চতুর্থ দিনের মতো ধর্মঘট পালন করছে বাসচালক ও শ্রমিকরা। বৃহস্পতিবার (২১ নভেম্বর) সকালে খুলনা থেকে কোনও দূরপাল্লার বাস ছেড়ে যায়নি। এছাড়া অভ্যন্তরীণ বেশিরভাগ রুটে বাস চলাচল বন্ধ ছিল। এতে সীমাহীন দুর্ভোগ পোহাচ্ছেন যাত্রীরা।

খুলনা মোটর শ্রমিক ইউনিয়নের সহকারী সম্পাদক মো. জিয়াউর রহমান মিঠু বলেন, খুলনায় এখনও বাস চলাচল শুরু হয়নি। বুধবার রাতে মালিক ও শ্রমিক নেতারা ঢাকায় গেছেন। মন্ত্রণালয়ে ট্রাক মালিক শ্রমিকদের সঙ্গে সভা হয়েছে। আজ সকাল সাড়ে ১০টায় বৈঠক হবে। সেখান থেকে সিদ্ধান্ত হবে।

টাঙ্গাইল
নতুন পরিবহন আইনের কিছু বিধান সংস্কারের দাবিতে টাঙ্গাইলে ধর্মঘট করছে বাসচালক ও শ্রমিকরা। বৃহস্পতিবার সকালে টাঙ্গাইল থেকে কোনও দূরপাল্লার বাস ছেড়ে যায়নি। এতে চরম দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে সাধারণ যাত্রীদের।

টাঙ্গাইল জেলা বাস-মিনিবাস মালিক সমিতির সভাপতি খন্দকার ইকবাল হোসেন বলেন, এখনও বাস চলাচল বন্ধ রয়েছে। আজ ঢাকায় শ্রমিক ফেডারশনের বৈঠক রয়েছে। বাস চলাচলের বিষয়ে ওই বৈঠক থেকে সিদ্ধান্ত হবে।

কুড়িগ্রাম
সড়ক পরিবহন আইন সংশোধনের দাবিতে আজও কুড়িগ্রাম থেকে সব রুটে বাস, মিনিবাস চলাচল বন্ধ রেখেছে পরিবহন শ্রমিকরা। এতে চরম ভোগান্তিতে পড়েছেন সাধারণ যাত্রীরা।

কুড়িগ্রাম কেন্দ্রীয় বাস টার্মিনালে গিয়ে দেখা গেছে, বাস চলাচল না করায় যাত্রীরা ব্যাটারিচালিত অটোরিকশায় করে গন্তব্যে যাওয়ার চেষ্টা করছেন। তবে বেলা ১২টার দিকে বাস স্ট্যান্ডের কাছে পার্কিং করা অটোরিকশা চালকদের ওপর হামলা চালিয়ে তাদর তাড়িয়ে দেয় বাস শ্রমিকরা।

হামলার ব্যাপারে কুড়িগ্রাম সদর থানার ওসি মাহফুজার রহমান বলেন, আমরা ঘটনাস্থলে পুলিশ ফোর্স পাঠাচ্ছি।

জামালপুর
নতুন সড়ক আইন সংশোধনের প্রতিবাদে জামালপুরে বাসচালক ও শ্রমিকদের ধর্মঘট অব্যাহত রয়েছে। বৃহস্পতিবার সকাল থেকে জামালপুর-ময়মনসিংহ সড়কে যান চলাচল স্বাভাবিক হলেও জামালপুর-টাঙ্গাইল সড়কের ধনবাড়ী এলাকায় শ্রমিকরা এখনও তাদের অবরোধ কর্মসূচি চালিয়ে যাচ্ছেন। তারা জামালপুর-টাঙ্গাইল রুটে চলাচলকারী সব ধরনের যান চলাচলে বাধা দিচ্ছে বলে জানা গেছে।

এছাড়া চুয়াডাঙ্গা, নওগাঁ, ঝিনাইদহে চতুর্থ দিনের মতো বাসচালক ও শ্রমিকদের ধর্মঘট অব্যাহত রয়েছে।

তবে কিছু ব্যাতিক্রম লক্ষ্য করা গেছে

ময়মনসিংহ
দুই দিন বন্ধ থাকার পর আজ ময়মনসিংহ থেকে ঢাকা রুটে বাস চলাচল শুরু করেছে। আজ সকাল থেকেই মাসকান্দা কেন্দ্রীয় বাস টার্মিনাল ও পাটগ্রদামব্রিজ সংলগগ্ন আন্তঃজেলা বাস টার্মিনাল থেকে ঢাকাসহ সারা দেশের উদ্দেশে দূরপাল্লার বাস ছেড়ে যতে দেখা গেছে।

জেলা ট্রাফিক পরিদর্শক প্রশাসন মাহবুবুর রহমান জানান, আজ সকাল থেকেই বাস চলাচল শুরু করেছে।
এদিকে যান চলাচল স্বাভাবিক হওয়ায় স্বস্তি ফিরে এসেছে সাধারণ যাত্রীদের।

মাদারীপুর
তিন দিন বন্ধ থাকার পর মাদারীপুরে বাস চলাচল স্বাভাবিক হয়েছে। আজ সকাল থেকে মাদারীপুর থেকে দূরপাল্লার বাস ছেড়ে গেছে। অভ্যন্তরীণ রুটেও বাস চলাচল ছিল স্বাভাবিক। এতে সাধারণ যাত্রীরা স্বস্তির নিঃশ্বাস ফেলছেন।

দিনাজপুর
দাবি মেনে নেওয়ার আশ্বাসে পণ্য পরিবহন শ্রমিকদের ধর্মঘট প্রত্যাহারের ফলে ট্রাক চলাচল শুরু হওয়ায় দিনাজপুরের হিলি স্থলবন্দরের পণ্য পরিবহন ব্যবস্থা স্বাভাবিক হয়েছে। এদিকে টানা পাঁচ দিন পর হিলি বগুড়া পথে বাস চলাচল শুরু হয়েছে।

দিনাজপুর মোটর পরিবহন শ্রমিক ইউনিয়ন হাকিমপুর স্ট্যান্ড কমিটির সদস্য ও চেইন মাস্টার রুঞ্জু হোসেন বলেন, পণ্য পরিবহন শ্রমিকদের দাবি মেনে নেওয়ার আশ্বাসে ধর্মঘট প্রত্যাহারের পরে সড়কের অবস্থা স্বাভাবিক হয়েছে।


এ সম্পর্কিত আরো খবর

বাংলাদেশ এর অন্যান্য খবরসমূহ