ছাতকে ডাকাতির প্রস্তুতিকালে পিকাপসহ ৭ ডাকাতকে আটক করেছে পুলিশ - খবর তরঙ্গ
শিরোনাম :

ছাতকে ডাকাতির প্রস্তুতিকালে পিকাপসহ ৭ ডাকাতকে আটক করেছে পুলিশ



ছাতক প্রতিনিধি, (খবর তরঙ্গ ডটকম)

ছাতকে ডাকাতির প্রস্তুতিকালে আন্ত:জেলা ডাকাত দলের ৭ সদস্যকে পিকাপ সহ ৭ ডাকাতকে আটক করেছে ছাতক থানার পুলিশ। গত শুত্রুবার রাতে গোবিন্দগঞ্জ সৈয়দেরগাঁও ইউনিয়নের তকিপুর গ্রামে গিয়াস উদ্দিনের বাড়িতে আইসত্রুীম কোম্পানির ঘরে সামনে ভাঙ্গার শব্দ শুনে তার ঘুম ভেঙ্গে যায়। ঘুম থেকে উঠে দেখতে পায় কয়েকজন ব্যক্তি তার ঘরে তালা-ভাঙ্গার চেষ্টা করেছে। এ ঘটনা দেখে মালিক আওয়াজ ও চিৎকার শুনে আশে পাশে লোকজন এগিয়ে আসলে ডাকাতদলের সদস্যা ঘটনাস্থল থেকে পালিয়ে যায়।এ খবর পেয়ে পুলিশ গোবিন্দগঞ্জ-ছাতক সড়কের একটি টাটা পিকাপের চালক জুয়েল মিয়া কে আটক করেছে পুলিশ। তার স্বীকরোক্তিমুলক ও তথ্য নিয়ে তার সহযোগীদের আটকে অভিযান শুরু করেন ছাতক দোয়ারাবাজার সাকেল এএসপি বিল্লাল হোসেন, ইন্সপেক্টর অপারেশন মিজানুর রহমান,এস আই হাবিবুর রহমান পিপিএম ও এস আই মহিন উদ্দিনের নেতৃত্বে গত শনিবার সারাদিন পৃথক পৃথক স্থানে অভিযান শুরু করে সন্ধ্যায় গোপন সংবাদের ভিত্তিতে পুলিশের একটি বিশেষ টিম উপজেলার পৃথক পৃথক স্থানে সারি অভিযান চালিয়ে গোবিন্দগঞ্জ এলাকার চাকলপাড়া,দীঘলী,পুরাতনবাজার ও শিবনগর নোয়াপাড়া গ্রাম থেকে তাদেরকে আটক করতে সক্ষম হয়েছেন।


গ্রেফতারকৃত ডাকাতরা হলো ছৈলাআফজলাবাদ ইউপির শিবনগর-নোয়াপাড়া গ্রামের হানিফ আলীর পুত্র রইছ আলী(৩০) একই ইউপির দীঘলী মাঝ পাড়া জালাল মিয়ার পুত্র হোসেন আহমদ(২০) দীঘলী পুরতান বাজারে চেরাগ আলীর পুত্র টাটা পিকাপ চালক জুয়েল মিয়া (২৫) গোবিন্দগঞ্জ সৈয়দগাও ইউনিয়নের চাকলপাড়া গ্রামের কালাম উদ্দিনের পুত্র সুমন মিয়া (১৯)একই ইউপির চাকলপাড়া গ্রামের মাসুক মিয়ার পুত্র রাকিব(১৮) চাকলপাড়া গ্রামের মৃত আলীর পুত্র মাহবুর মিয়া (১৮) একই গ্রামে সমছুমিয়ার পুত্র ফরহাদ মিয়া(১৮)সহ ৭ জন আটক করেছে পুলিশ। এছাড়া এঘটনায়সহ গোবিন্দগঞ্জ বাজারে স্বর্নের দোকানে ডাকাতির এ ঘটনায় জড়িত থাকার কথা স্বীকার করেন ।


গোবিন্দগঞ্জ বাজারে ডাকাতির এ ঘটনার জড়িত ডাকাত রইছ আলী (৩৫) হোসাইন আহমদ(১৮)অবশেষে পুলিশ কে আটক করেন, গ্রেফতারকৃত ডাকাত হোসাইন আহমদের স্বীকারোক্তি ও তথ্য মতে তার বসতঘর থেকে ডাকাতির ঘটনায় লুন্ঠিত ০৪টি রোপার চেইন ও একটি আংটি উদ্ধার করেছে পুলিশ । এ সময় তাদের কাছ থেকে লোহা ও তালা কাটার লম্বা যন্ত্র, ধারালো চাকু, দা, চাইনীজ কুড়াল উদ্ধার করা হয়। আটককৃতদের বিরুদ্ধে বিভিন্ন থানায় ডাকাতিসহ একাধিক মামলা রয়েছে।


এ ব্যাপারে থানায় মামলা দায়ের করা হয়েছে। একটি টাটা পিকাপ উদ্ধার ও জব্দ করেছে পুলিশ।গত বোরবার সকালে তাদের সুনামগঞ্জ আদালতে পাঠিয়ে দেয়া হয়েছে । এঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন থানার অফিসার ইনচার্জ মোহাম্মদ নাজিম উদ্দিন।


উপজেলা এর অন্যান্য খবরসমূহ
ছাতক এর অন্যান্য খবরসমূহ
জেলা এর অন্যান্য খবরসমূহ
সুনামগঞ্জ এর অন্যান্য খবরসমূহ
পূর্বের সংবাদ