বৃক্ষরোপন অভিযান উপলক্ষে পথচারীদের মাঝে গাছের চারা বিতরণ অনুষ্ঠান

বাংলাদেশ ইসলামী ছাত্রশিবিরের কেন্দ্রীয় কার্যকরী পরিষদ সদস্য ও চট্টগ্রাম মহানগরী উত্তর সভাপতি আহমেদ সাদমান সালেহ বলেন প্রিয় জন্মভূমি বাংলাদেশকে মরুকরণের হাত থেকে রক্ষা করতে হলে আমাদেরকে অধিক পরিমাণে গাছ লাগিয়ে বনায়ন সৃষ্টি করতে হবে। পরিতাপের বিষয় ক্ষমতাসীনরা বিদ্যুৎ উৎপাদনের কথা বলে বিশ্বের বৃহত্তম ম্যানগ্রোভ বন সুন্দরবনকে ধ্বংস করার জন্যে উঠেপড়ে লেগেছে। সরকার দেশের স্বার্থ জলাঞ্জলি দিয়ে ভারতের নগ্ন হস্তক্ষেপে বিদ্যুৎ ঘাটতি মেটানোর নামে পরিকল্পিতভাবে প্রাকৃতিক অপার নেয়ামত এ বনটিকে নস্যাৎ করে দিতে চাইছে। এর ফলে দেশের দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলের মানুষের জীবন যাপনকে দুর্বিসহ করে তোলার পায়তারা করছে যা দেশ ও দশের জন্যে একটি আত্মঘাতি সিদ্ধান্ত ছাড়া আর কিছুই নয়। তাছাড়া প্রতিবেশি ভারত দু’দেশে বিদ্যমান নদীগুলোতে বাঁধ দিয়ে বাংলাদেশকে মরুকরণের দিকে ঠেলে দিচ্ছে।

 

সে সাথে শুকনো মৌসুমে যখন চাষাবাদের জন্য পানির প্রয়োজন পড়ে তখন দেশের উত্তরাঞ্চলে তীব্র খরার সৃষ্টি হয়। আর বর্ষার সময়ে তারা তাদের নদীতে দেয়া বাঁধ খুলে দিয়ে বাংলাদেশকে বন্যার পানিতে ডুবিয়ে রাখে। তাছাড়া দেশে যেভাবে জনসংখ্যা বৃদ্ধি পাচ্ছে তার জন্য ঘর বাড়ি বানাতে গিয়ে মানুষ অধিক হারে বনভূমি উজাড় করে দিচ্ছে। এ কারণেই দেশে প্রতি বছর বিভিন্ন রকম বন্যা, খরা, জলোচ্ছ্বাস, নদী ভাঙ্গন সহ নানা রকম প্রাকৃতিক দুর্যোগ আমাদের জন্য মরার উপর খাড়ার ঘা রূপে প্রতিনিয়ত আঘাত করছে। এসব দুর্যোগের কবল থেকে দেশকে রক্ষা করতে হলে প্রত্যেককে যত বেশি সম্ভব গাছ লাগিয়ে বনায়ন সৃষ্টি করার আহ্বান জানান।

 

ইসলামী ছাত্রশিবির ঘোষিত ‘বৃক্ষরোপণ অভিযান’ উপলক্ষে নগর উত্তর শিবির আয়োজিত গাছের চারা বিতরণ ও রোপন অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি আজ (১৩.০৭.’১৮) এসব কথা বলেন। নগর উত্তর সেক্রেটারী আ স ম রায়হান’র পরিচালনায় এতে আরো বক্তব্য রাখেন শিবির নেতা হাসান এলাহী, আমান উল্লাহ, এম কায়সার, মাসুম বিল্লাহ প্রমুখ। অনুষ্ঠানে বক্তারা বিরূপ পরিবেশের হাত থেকে দেশকে রক্ষার পাশাপাশি নিজেদের পূণ্য ভারী করার জন্য বেশি বেশি গাছ রোপন ও তা সংরক্ষনের জন্য সবাইকে এগিয়ে আসার আহ্বান জানান। শেষে অতিথিবৃন্দ পথচারীদের মাঝে নানা প্রজাতির গাছের চারা বিতরণ করেন।