লাকসামে জাতীয় দুর্যোগ প্রস্তুতি দিবস পালিত

“দুর্যোগে পাব না ভয়, দুর্যোগ আমরা করবো জয়” এই শ্লোগানকে সামনে রেখে বৃহস্পতিবার লাকসামে জাতীয় দুর্যোগ প্রস্তুতি দিবস পালিত হয়েছে।

 

লাকসাম এডিপি-ওয়ার্ল্ড ভিশন বাংলাদেশের সহযোগিতায় উপজেলার মুদাফরগঞ্জ ইউপি চেয়ারম্যান মো. শাহ আলমের নেতৃত্বে জাতীয় দুর্যোগ প্রস্তুতি দিবস উপলক্ষে ইউনিয়ন দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা কমিটির সদস্য, সমাজভিত্তিক দুর্যোগ কমিটি, শিশু, নারী-পুরুষ ও শিক্ষার্থীসহ এলাকার সাধারন মানুষের স্বতঃস্ফূর্ত অংশগ্রহনে একটি বর্নাঢ্য র‌্যালী বের হয়। র‌্যালীটি চিকুনিয়া গ্রাম থেকে শুরু হয়ে মুদাফরগঞ্জ বাজারে গিয়ে শেষ হয়। র‌্যালী শেষে এক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়।

 

সভায় ইউপি চেয়ারম্যান মো. শাহ আলম বলেন, দুর্যোগ ঝুঁকি প্রশমনে নানাবিধ প্রস্তুতিমূলক কার্যক্রম বাস্তবায়নে লাকসাম এডিপি-ওয়ার্ল্ড ভিশন বাংলাদেশ-এর প্রয়াসকে আমি সাধুবাদ জানাই। লাকসাম এডিপি’র সাথে এরকম একটি জনগুরুত্বপূর্ণ দিবস উদ্যাপন করতে পেরে আমরা খুবই আনন্দিত। একইসঙ্গে দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা বিষয়ে প্রস্তুতির উপর গুরুত্বারোপ করে তিনি সকলকে একযোগে কাজ করারও আহ্বান জানান।

 

লাকসাম এডিপি ম্যানেজার পিন্টু এলবার্ট পিরিছ বলেন, ভৌগলিক অবস্থান, প্রাকৃতিক পরিবেশ ও জনসংখ্যার আধিক্য বাংলাদেশকে বিশ্বের মানচিত্রে অন্যতম প্রধান দুর্যোগ প্রবণ দেশ হিসেবে চিহ্নিত করেছে। প্রাকৃতিক দুর্যোগের মধ্যে ঘূর্ণিঝড়, জলোচ্ছাস, বন্যা, খরা, টর্নেডো এবং নদী ভাঙ্গন অন্যতম।

 

ভূমিকম্পের ঝুঁকি ও জলবায়ূ পরিবর্তন জনিত দুর্যোগ বাংলাদেশের জনগোষ্ঠীকে আরও বিপদাপন্ন করে তুলেছে। বাংলাদেশে এপ্রিল থেকে নভেম্বর মাসে প্রাকৃতিক দুর্যোগের ঘটনা বেশি ঘটে। প্রাকৃতিক দুর্যোগ সম্পূর্ণভাবে নিয়ন্ত্রণ করা সম্ভব নয়। তবে পূর্ব প্রস্তুতি গ্রহণের মাধ্যমে ক্ষয়ক্ষতি সহনীয় পর্যায়ে  এনে জনগণের মনোবল ও সক্ষমতা বৃদ্ধি করা সম্ভব।

 

মুদাফরগঞ্জ ইউপি প্রোগ্রাম অফিসার মিল্টন সরকার বলেন,  বাংলাদেশ দুর্যোগ প্রবণ দেশ হিসেবে প্রাকৃতিক দুর্যোগের মধ্যে ঘূর্ণিঝড়, জলোচ্ছাস, বন্যা, খরা, অন্যতম। তাই পূর্ব প্রস্তুতি গ্রহণের মাধ্যমে দুর্যোগ ঝুঁকি কমিয়ে আনা সম্ভব।

 

অনুষ্ঠানে এডিপি’র দূর্যোগ ব্যবস্থাপনা কর্মকর্তা নিরোধ মন্ডলসহ লাকসাম এডিপির অন্যান্য কর্মকর্তাবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।