লাকসামে এক ব্যবসায়ীর পরিবারের সদস্যদের অচেতন করে সবর্স্ব লুট - খবর তরঙ্গ
শিরোনাম :

লাকসামে এক ব্যবসায়ীর পরিবারের সদস্যদের অচেতন করে সবর্স্ব লুট



মো: আবুল কালাম, স্টাফ রিপোটার, (খবর তরঙ্গ ডটকম)

কুমিল্লার লাকসামে এক ব্যবসায়ীর পরিবারের সদস্যদের অচেতন করে নগদ টাকা, স্বর্ণালংকারসহ মূল্যবান সামগ্রী লুটে নিয়েছে দুর্বৃত্তরা। গতকাল সোমবার দিবাগত রাত ৩টায় লাকসাম উপজেলা পরিষদ সংলগ্ন শিশুনিকেতনের পাশে আরব আলী মিয়ার বাড়িতে এ ঘটনা ঘটে ।

 

আজ মঙ্গলবার গৃহকর্তা ধান ব্যবসায়ী আবুল কাশেম (৪৫), তার স্ত্রী নাজমা আক্তার (৩৫), ছেলে তানিম (১৪), মেয়ে তমা (১২) ও তন্নিকে (৫) অচেতন অবস্থায় উদ্ধার করে লাকসাম স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেয়া হয়। পরে উন্নত চিকিৎসার জন্য তাদেরকে কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়। খবর পেয়ে লাকসাম থানা পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে।

 

ওই ব্যবসায়ীর শ্যালক ওমর ফারুক, জামাল হোসেনসহ স্থানীয় লোকজনের সাথে কথা বলে জানা গেছে, ওই বাড়িতে ভাড়াটিয়া হিসেবে ধান ব্যবসায়ী আবুল কাশেম পরিবার নিয়ে বসবাস করেন। সোমবার রাতের খাবার খেয়ে অন্য দিনের মত পরিবারের সদস্যরা ঘুমাতে যায়। কিন্তু ওইদিন রাতে ব্যবসায়ীর ছোট মেয়ে তন্নি না খেয়েই ঘুমিয়ে পড়ে। রাত আনুমানিক ৩টার দিকে ৩/৪ জন দুর্বৃত্ত ঘরে প্রবেশ করে বাতি নিভিয়ে দিলে তন্নি মা-বাবাকে ডাকাডাকি করতে থাকলে দুর্বৃত্তরা তার মুখে টিস্যু গুঁজে দেয়। তন্নির সাথে ধস্তাধস্তিকালে তমা ও তানিম টের পেয়ে চিৎকার দেয়। এ সময় তানিম ও তমাকে দুর্বৃত্তরা ছুরি ঠেকিয়ে চেতনানাশক দিয়ে অচেতন করে ফেলে। পরে ঘরে থাকা আলমিরা থেকে নগদ ৭ লাখ ৭০ হাজার টাকা, ৬ ভরি স্বর্ণালংকার ও ৩টি মোবাইলসহ মূল্যবান মালামাল নিয়ে দুর্বত্তরা সটকে পড়ে।

 

আজ মঙ্গলবার সকালে ওই ব্যবসায়ীর শ্যালক জামাল হোসেন ধান কেনার জন্য দুলাইভাইকে ফোন দিয়ে সাড়া না পেয়ে বাড়িতে এসে এ ঘটনা দেখতে পায়। পরে স্থানীয় লোকজনের সহযোগিতায় অচেতন অবস্থায় তাদেরকে হাসপাতালে নিয়ে যায়।

 

এ বিষয়ে লাকসাম থানার ওসি মনোজ কুমার দে বলেন, খবর পেয়ে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছি। হাসপাতালেও পুলিশের একটি টিম পাঠানো হয়েছে। ঘটনাটি তদন্ত করা হচ্ছে। অভিযোগ পেলে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।


এ সম্পর্কিত আরো খবর

কুমিল্লা এর অন্যান্য খবরসমূহ
লাকসাম এর অন্যান্য খবরসমূহ
পূর্বের সংবাদ