কুমিল্লায় সেরা তরুণ আয় করদাতার সম্মাননা পেলেন লাকসামের তুহিন - খবর তরঙ্গ
শিরোনাম :

কুমিল্লায় সেরা তরুণ আয় করদাতার সম্মাননা পেলেন লাকসামের তুহিন



নিজস্ব প্রতিনিধি, (খবর তরঙ্গ ডটকম)

কর অঞ্চল কুমিল্লার ৬টি জেলার মোট ৪৯জন সর্বোচ্চ এবং দীর্ঘ সময় ব্যাপী কর প্রদানকারী সম্মানিত কর দাতাদের মধ্যে তরুণ আয়কর দাতার সম্মাননা পেলেন লাকসামে খোরশেদ আলম তুহিন। এছাড়াও বিগত কয়েক বছর তিনি আয়কর সম্মননা পেয়ে আসছেন। আজ বুধবার জাতীয় রাজস্ব বোর্ড হতে সম্মাননা স্মারক প্রদান করা হয়েছে। কুমিল্লার হোটেল নূর জাহানের সম্মেলন কক্ষে অত্যন্ত আনন্দঘন অনুষ্ঠানের মাধ্যমে তাদের হাতে সম্মাননা স্মারক তুলে দেয়া হয়।


অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন কুমিল্লা-৭ আসন (চান্দিনা) থেকে নির্বাচিত জাতীয় সংসদ সদস্য অধ্যাপক আলী আশরাফ। অনুষ্ঠানে কর অঞ্চল কুমিল্লার আওতাধীন কুমিল্লা জেলা ও কুমিল্লা সিটি কর্পোরেশন, ব্রাহ্মণবাড়িয়া, চাঁদপুর, ফেনী, নোয়াখালী, লক্ষীপুর জেলার সর্বোচ্চ এবং দীর্ঘ সময়ব্যাপী কর প্রদানকারী করদাতা এবং অতিথিগণ উপস্থিত ছিলেন।


কর অঞ্চল কুমিল্লার কর কমিশনার এম এম ফজলুল হকের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য ড. এমরান কবির চৌধুরী, কুমিল্লার জেলা প্রশাসক মো: আবুল ফজল মীর।


এ বছর কুমিল্লা সিটি কর্পোরেশন এলাকায় অন্যান্যদের মধ্যে সর্বোচ্চ করদাতা নির্বাচিত হয়েছেন কুমিল্লা-৬ আসনের সংসদ সদস্য ও কুমিল্লা মহানগর আওয়ামীলীগের সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা আ ক ম বাহাউদ্দিন বাহার। তরুণ করদাতাদের মধ্যে উজ্জল কুমার দে এবং মহিলা করদাতাদের মধ্যে ফারহানা বেগম সর্বোচ্চ করদাতা হিসেবে সম্মননা পেয়েছেন।


অনুষ্ঠানে অন্যান্যদের মাঝে বক্তব্য রাখেন কুমিল্লা মহিলা কলেজের সাবেক অধ্যক্ষ বেগম রোকেয়া পুরস্কার প্রাপ্ত প্রফেসর জোহরা আনিছ, এফবিসিসিআইয়ের পরিচালক দেওয়ান সুলতান আহম্মেদ প্রমুখ।স্বাগত বক্তব্য রাখেন অর অঞ্চল কুমিল্লার পরিদর্শী রেঞ্জ-১ সাধন কুমার রায়।


প্রধান অতিথির বক্তব্যে অধ্যাপক আলী আশরাফ এমপি বলেন, একটি দেশের উন্নয়নের ভিত হচ্ছে আয়কর। যে দেশের মানুষ যত বেশি আয়কর প্রদান করে সে দেশ ততো বেশি উন্নত। বাংলাদেশের মানুষ বিশ্বের অন্যান্য দেশের তুলনায় খুবই অল্প আয়কর প্রদান করে। অধিকাংশ মানুষ আয়কর ফাঁকি দেন। দেশের টাকা বিদেশে পাচার করে। তিনি বলেন, দেশের উন্নয়নের জন্য মানুষকে আয়কর দিতে হবে। দেশের প্রতি ভালোবাসা থাকতে হবে। উপজেলা পর্যায়ে আয়কর অফিসার নিয়োগ দিতে হবে। কর প্রদান ব্যবস্থা আরো সহজ করতে হবে। মানুষ যাতে সহজে আয়কর দিতে পারে সেজন্য কর্মকর্তাদের সেই পরিবেশ সৃষ্টি করতে হবে। যদি সুন্দর পরিবেশ সৃষ্টি হয় মানুষ স্বত:স্ফুর্তভাবে তাদের আয়কর প্রদান করবে।


অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করেন উপ কর-কমিশনার জাকিয়া জাফরিন ও সহকারি কর কমিশনার মো: আমিনুল ইসলাম।

অনুষ্ঠান শেষে হেমন্তের আকাশে বেলুন উড়িয়ে কর অঞ্চল কুমিল্লার আয়কর মেলার উদ্বোধন করেন অতিথিগণ। বৃহস্পতিবার থেকে কর অঞ্চল কুমিল্লার কান্দিরপাড়স্থ কর ভবন প্রাঙ্গনে ১৪ থেকে ১৭ নভেম্বর কর মেলা অনুষ্ঠিত হবে। ব্রাহ্মণবাড়িয়া কার্যালয় প্রাঙ্গনে ১৬ থেকে ১৯ নভেম্বর, নোয়াখালীতে বিআরডিবি হল মিলনায়তনে ১৫ থেকে ১৮ নভেম্বর, ফেনীতে ভাষা শহীদ সালাম কমউিনিটি সেন্টারে ১৫ থেকে ১৮ নভেম্বর, চাঁদপুর জেলা ক্রীড়া সংস্থা মিলনায়তনে ১৬ থেকে ১৯ নভেম্বর, লক্ষীপুর জেলা কার্যালয় প্রাঙ্গনে ১৬ থেকে ১৯ নভেম্বর আয়কর মেলা অনুষ্ঠিত হবে। পাশাপাশি উপজেলা পর্যায়ে চৌদ্দগ্রাম কার্যালয় প্রাঙ্গন, কালিরবাজারে ১৪ থেকে ১৫ নভেম্বর, চৌমুহনী কার্যালয়ে ও বেগমগঞ্জে ১৯ থেকে ২০ নভেম্বর, আশুগঞ্জ কার্যালয় প্রাঙ্গন, কলাবাগানে ১৯ থেকে ২০ নভেম্বর, লাকসাম কার্যালয় প্রাঙ্গন হাউজিং এস্টেটে ১৮ থেকে ১৯ নভেম্বর আয়কর মেলা অনুষ্ঠিত হবে।


মেলায় করদাতারা ২০১৯-২০২০ করবর্ষের আয়কর রিটার্ন জমা দিতে পারবেন, নতুন করদাতাগন নতুন ই-টিন নিবন্ধন ও বর্তমান কর দাতাগন পুন:নিবন্ধন করতে পারবেন, মেলায় মহিলা, মুক্তিযোদ্ধা, প্রতিবন্ধী ও প্রবীন করদাতাদের জন্য পৃথক কাউন্টার থাকবে, করদাতাগণ মেলায় স্থাপিত সোনালী, জনতা ও বেসিক ব্যাংকের বুথে তাদের আয়কর জমা দিতে পারবেন, করদাতাগণকে রিটার্ন পূরনে সহায়তা করার জন্য মেলায় হেল্পডেস্ক থাকবে।


কুমিল্লা এর অন্যান্য খবরসমূহ
লাকসাম এর অন্যান্য খবরসমূহ