নাঙ্গলকোটে ভিন্ন নামে খাল পুনঃখনন করায় আদালতে ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান ও পানি উন্নয়ন বোর্ডের কর্মকর্তাসহ ৩জনের বিরুদ্ধে মামলা - খবর তরঙ্গ
শিরোনাম :

নাঙ্গলকোটে ভিন্ন নামে খাল পুনঃখনন করায় আদালতে ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান ও পানি উন্নয়ন বোর্ডের কর্মকর্তাসহ ৩জনের বিরুদ্ধে মামলা



কেফায়েত উল্লা মিয়াজী, (খবর তরঙ্গ ডটকম)

নাঙ্গলকোটের জোড্ডা পূর্ব ইউনিয়নের আমতলী-মানিকমুড়া খাল বালোগর খাল নাম দিয়ে দ্বিতীয়বার পুনঃ খননের বিরুদ্ধে কুমিল্লার বিজ্ঞ অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিষ্ট্রেট এর আদালতে মামলা দায়ের করা হয়েছে। গত বুধবার (১৮ ডিসেম্বর) মামলাটি দায়ের করেন, ক্ষতিগ্রস্ত কৃষক জোড্ডা পূর্ব ইউনিয়নের দক্ষিণ শ্রীহাস্য গ্রামের হাবিব উল্লাহ। মামলার বিবাদীরা হচ্ছেন, ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান মেসার্স সালেহ আহমেদ (১৯৪/১, হক প্লাজা (২য় তলা), এস.এস.কে রোড, ফেনী)। পানি উন্নয়ন বোর্ড (বাপাউবো) কুমিল্লার উপ-বিভাগীয় প্রকৌশলী মোঃ আবু তালেব ও শাখা কর্মকর্তা মোঃ শাহজাহান ভুঁইয়া


মামলার বিবরণে জানা যায়, হাবিব উল্লাহ তার সম্পত্তিতে ঘর দরজা নির্মাণ করে এবং বিভিন্ন জাতের গাছ রোপণ করে দীর্ঘ এক যুগ যাবত পরিবার নিয়ে বসবাস করে আসছেন। হাবিব উল্লাহর বাড়ির পাশের আমতলী-মানিকমুড়া খালটি কয়েক বছর পূর্বে একবার খনন করে তার অনেক সম্পত্তি খালে পরিণত করা হয়। বিবাদীরা প্রভাব খাটিয়ে আমতলী-মানিকমুড়া খালটির নাম বালোগর নাম দিয়ে হাবিব উল্লাহকে কোন প্রকার নোটিশ না দিয়ে বালুগর খাল পুনঃখননের উদ্যোগ গ্রহণ করে। বিবাদীরা অবৈধভাবে হাবিব উল্লার সম্পত্তির গাছ কেটে, বাড়িঘর ভেঙ্গে জোড় পূর্বক বে-দখল করার বিভিন্ন পায়তারা করছে। প্রকৃতপক্ষে বালুগর খালটি লাকসামে অবস্থিত।


এনিয়ে গত শনিবার (১৪ডিসেম্বর) ৪টি গ্রামের ভুক্তভোগীদের পক্ষ থেকে খালটির পুনঃখননের কাজ বন্ধের দাবিতে নির্বাহী প্রকৌশলী, কুমিল্লা পওর বিভাগ (বাপাউবো) বরাবরে একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন। ঠিকাদারী লোকজনের এধরণের অবৈধ কাজে বাধা প্রদান করায় বিবাদীরা হাবিব উল্লার পরিবারের লোকজনকে হত্যা এবং বাড়িঘর লুটপাট করবে বলে হুমকি দেন। এতে করে মারাত্মক শান্তি ভঙ্গের আশঙ্কাসহ খুন খারাপির সম্ভাবনা রয়েছে।


গত মঙ্গলবার (১৭ডিসেম্বর) দুপুরে বিবাদীরা হাবিব উল্লাহর বসত ঘরের সামনে এসে হাবিব উল্লাহকে মারার জন্য আক্রমন করার চেষ্টা করেন। এসময় তার চিৎকারে পাশ্ববর্তী বাড়ির লোকজন এগিয়ে এসে বিবাদীদের বাধা প্রদান করলে হাবিব উল্লাহকে তার সম্পত্তি হতে বে-দখলের হুমকি প্রদান করে তারা চলে যায়।


গত বুধবার দুপুরে আবার খাল পুনঃ খননের কাজ শুরু করার চেষ্টা করলে এলাকাবাসীর বাধা মুখে কাজ বন্ধ বন্ধ করে দেয়া হয়। খবর পেয়ে থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে কাজ বন্ধ করে দেন।


এবিষয়ে গতকাল বৃহষ্পতিবার নাঙ্গলকোট থানার পরিদর্শক (তদন্ত) আশ্রাফুল ইসলাম বলেন, খাল পুনঃখননের বিষয়ে উপজেলা নির্বাহী অফিসারের নিকট এলাকাবাসীর পক্ষ থেকে একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করে। অভিযোগের ভিত্তিতে আমরা ঘটনাস্থলে গিয়ে কয়েক‘শ ভুক্তভোগী লোকজন ও ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানের লোকজনের উপস্থিতিতে কুমিল্লা পওর এর সার্ভেয়ারের মাধ্যমে খালের সীমানা নির্ধারণ করে কাজ করার জন্য বলে আসি।


এ সম্পর্কিত আরো খবর

কুমিল্লা এর অন্যান্য খবরসমূহ
নাঙ্গলকোট এর অন্যান্য খবরসমূহ
পূর্বের সংবাদ