ম্যাজিস্ট্রেটের সাথে অসৌজন্যমূলক আচরণের দায়ে চৌদ্দগ্রামের ইউপি চেয়ারম্যান মোশারফ হোসেন সাময়িক বরখাস্ত - খবর তরঙ্গ
শিরোনাম :

ম্যাজিস্ট্রেটের সাথে অসৌজন্যমূলক আচরণের দায়ে চৌদ্দগ্রামের ইউপি চেয়ারম্যান মোশারফ হোসেন সাময়িক বরখাস্ত



বারী উদ্দিন আহমেদ বাবর, কুমিল্লা প্রতিনিধি, (খবর তরঙ্গ ডটকম)

পরীক্ষা চলাকালীন সময়ে বিনা অনুমতিতে পরীক্ষাকেন্দ্রে প্রবেশ করে দায়িত্বরত এক্সিকিউটিভ ম্যাজিস্ট্রেটের সঙ্গে অসৌজন্যমূলক আচরণের দায়ে কুমিল্লার চৌদ্দগ্রাম উপজেলার ১ নং কাশীনগর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মোশারফ হোসেনকে সাময়িক বরখাস্ত করেছে স্থানীয় সরকার মন্ত্রনালয়। কাশীনগর আলীম মাদ্রাসা কেন্দ্রে জেডিসি পরীক্ষা ২০১৯ চলাকালে এ ঘটনা ঘটে বলে স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়ের প্রজ্ঞাপনে উল্লেখ করা হয়েছে। তবে ঠিক কোনদিন এ ঘটনা ঘটেছে তার নির্দিষ্ট দিনক্ষণ উল্লেখ করা হয়নি প্রজ্ঞাপনে।


২২ ডিসেম্বর স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়ের উপসচিব মো. ইফতেখার আহম্মেদ চৌধুরী স্বাক্ষরিত প্রজ্ঞাপনে উল্লেখ করা হয়েছে, যেহেতু পরীক্ষা চলাকালে বিনা অনুমতিতে পরীক্ষা কেন্দ্রে প্রবেশ করে সরকারী নির্দেশনা অমান্য এবং এক্সিকিউটিভ ম্যাজিস্ট্রেটের সঙ্গে অসৌজন্যমূলক আচরণ করায় তার দ্বারা ইউনিয়ন পরিষদে ক্ষমতা প্রয়োগ প্রশাসনিক দৃষ্টিকোনে সমীচীন নয় মর্মে সরকার মনে করে। সেহেতু সংশ্লিষ্ট ইউপি চেয়ারম্যান মোশারফ হোসেন কর্তৃক অপরাধমূলক কার্যক্রম পরিষদসহ জনস্বার্থের পরিপন্থী বিবেচনায় স্থানীয় সরকার (ইউনিয়ন পরিষদ) আইন ২০০৯ এর ৩৪ (১) ধারা অনুযায়ী তার স্বীয় পদ থেকে সাময়িক বরখাস্ত করা হলো। এ আদেশ যথাযথ কর্তৃপক্ষের অনুরোধক্রমে জনস্বার্থে জারী করা হলো এবং তা অবিলম্বে কার্যকর হবে।


সাময়িক বরখাস্তাদেশ বিষয়ে জানতে চাইলে স্থানীয় সরকার কুমিল্লার উপ-পরিচালক (ডিডিএলজি) মোহাম্মদ শওকত ওসমান জানান, এক্সিকিউটিভ ম্যাজিস্ট্রেটের সাথে অসৌজন্যমূলক আচরণের অভিযোগে ইউপি চেয়ারম্যান মোশারফ হোসেনকে সাময়িক বরখাস্তের বিষয়টি জেনেছি। তবে এ বিষয়ে এখনো কোন অফিস আদেশ পাইনি।


এ বিষয়ে এক্সিকিউটিভ ম্যাজিস্ট্রেট ও চৌদ্দগ্রাম উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) মো. সাইফুর রহমান বলেন, চলতি বছরে অনুষ্ঠিত জেডিসি পরীক্ষা চলাকালে কাশীনগর আলীম মাদ্রাসা কেন্দ্রে বিনা অনুমতিতে ঢুকে পড়ে ইউপি চেয়ারম্যান মোশারফ হোসেন। এভাবে তার কেন্দ্রে প্রবেশ অনৈতিক জানালে তিনি আমার সাথে অসৌজন্যমূলক আচরণ করেন। পরে বিষয়টি নিয়ে আমি জেলা প্রশাসকের নিকট রিপোর্ট করেছি।


এ ব্যাপারে অভিযুক্ত কাশীনগর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মোশারফ হোসেন মুঠোফোনে বলেন, বিষয়টি জেনে আমি জেলা প্রশাসকের সাথে দেখা করেছি। এই বরখাস্ত আদেশ প্রত্যাহারে আদালতে যাবো। আমি কাশীনগর আলীম মাদ্রাসা পরিচালনা কমিটির সভাপতি হিসেবে কেন্দ্রে প্রবেশ করি। তখন আমাকে ম্যাজিস্ট্রেট সাইফুর রহমান অপমানজনকভাবে মাদ্রাসার অফিস কক্ষে বসে থাকতে নির্দেশ দেয়। পরে অফিস কক্ষেই বসে ছিলাম। বিষয়টি আমি তাৎক্ষনিক স্থানীয় সংসদ সদস্য মুজিবুল হককে জানিয়ে ছিলাম। কোথায় আমি বিচার চাওয়ার কথা, সেখানে আমার বিরুদ্ধেই ব্যবস্থা নেয়া হলো।


উল্লেখ্য, গত ২২ ডিসেম্বর ২০১৯ ইং স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়ের উপসচিব মো. ইফতেখার আহম্মেদ চৌধুরী স্বাক্ষরিত এক প্রজ্ঞাপনে চৌদ্দগ্রাম উপজেলার ১ নং কাশীনগর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মোশারফ হোসেনকে সাময়িক বরখাস্তাদেশ প্রকাশ করা হয়।

        ০১৭১১-০৪১৫৩৮
        ২৪-১২-১৯

কুমিল্লা এর অন্যান্য খবরসমূহ
পূর্বের সংবাদ