নাঙ্গলকোটের বাঙ্গড্ডায় আফজাল ইলেকট্রনিক্স ও বিসমিল্লাহ ব্যাটারী হাউজে দুর্ধর্ষ চুরি - খবর তরঙ্গ
শিরোনাম :

নাঙ্গলকোটের বাঙ্গড্ডায় আফজাল ইলেকট্রনিক্স ও বিসমিল্লাহ ব্যাটারী হাউজে দুর্ধর্ষ চুরি



কেফায়েত উল্লাহ মিয়াজী, স্টাফ রিপোর্টার, (খবর তরঙ্গ ডটকম)

কুমিল্লার নাঙ্গলকোটের বাঙ্গড্ডা বাজারে দুর্ধর্ষ চুরির ঘটনা ঘটেছে। সোমবার দিবাগত রাতের কোন এক সময়ে পূর্ব বাজারের আনা মিয়া ভবনের আফজাল ইলেকট্রনিক্স ও বিসমিল্লাহ ব্যাটারী হাউজে এ চুরির ঘটনা ঘটে। গতকাল মঙ্গলবার ভোরে স্থানীয় লোকজন ফজরের নামাজ পড়ে বের হয়ে ওই প্রতিষ্ঠান গুলো খোলা দেখতে পেয়ে ব্যবসায়ীকে খবর দেয়। এ ঘটনায় প্রতিষ্ঠান গুলোর মালিক একই উপজেলার পেরিয়া ইউনিয়নের দৌলতপুর গ্রামের আবুল কাশেমের ছেলে আফজাল হোসাইন নাঙ্গলকোট থানায় অজ্ঞাতদের বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করেন। চুরির ঘটনার খবরে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন বাঙ্গড্ডা বাজার ব্যবসায়ী সমিতির সভাপতি ও ইউপি চেয়ারম্যান শাহজাহান মজুমদার, সাধারণ সম্পাদক মাস্টার মো: হানিফ, স্থানীয় ইউপি সদস্য ই¯্রাফিল হোসেন ও নাঙ্গলকোট থানা পুলিশ।


ব্যবসায়ী আফজাল হোসাইন বলেন, আমার দোকানের বেশ কয়েকটি তালা ভেঙ্গে নগদ ২ লাখ ৮৩ হাজার টাকা, ৬টি এলইডি টেলিভিশন, ২টি ফ্রিজ, ৮টি বেøন্ডার মেশিন, ৬টি আয়রন মেশিন, বেশ কয়েকটি সিলিংফ্যান ও ব্যাটারী নিয়ে যায়। সবমিলিয়ে চোর দল আমার ৮-১০ লাখ টাকা লুটে নেয়।
এব্যাপারে বাঙ্গড্ডা বাজার ব্যবসায়ী সমিতির সভাপতি ইউপি চেয়ারম্যান শাহজাহান মজুমদার বলেন, পেশাদার চোর দল এ চুরির ঘটনা ঘটিয়েছে বলে আমার মনে হয়। তাছাড়া বাজার পাহারাদারের কিছু অবহেলা থাকতে পারে। সে সক্রিয় থাকলে এমন ঘটনা ঘটতো না।


চুরি হওয়া মার্কেট (আনা মিয়া ভবন) মালিক পাশ্ববর্তি পরিকোট গ্রামের মাহবুব আলম মজুমদার বলেন, পাহারাদারের অবহেলায় এমন ঘটনা ঘটেছে। আমি গত পরশুদিন মাঝরাতে এসেও পাহারাদার বাঙ্গড্ডা গ্রামের আইউব আলীর ছেলে বাবুল মিয়াকে পাইনি। তার এমন দায়িত্ব অবহেলার জন্য এ ঘটনা ঘটেছে।
অভিযোগ তদন্তকারী কর্মকর্তা নাঙ্গলকোট থানা পুলিশের উপ-পরির্দশক (এসআই) মফিজুল ইসলাম বলেন, অভিযোগ পেয়ে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছি। অভিযোগের আলোকে তদন্ত করে ব্যবস্থা গ্রহণ


কুমিল্লা এর অন্যান্য খবরসমূহ
নাঙ্গলকোট এর অন্যান্য খবরসমূহ
লাকসাম এর অন্যান্য খবরসমূহ