লাকসামের রাজাপুরে মসজিদ নিয়ে দু’গ্রুপে দ্বন্ব - খবর তরঙ্গ
ব্রেকিং নিউজ :
শিরোনাম :

লাকসামের রাজাপুরে মসজিদ নিয়ে দু’গ্রুপে দ্বন্ব



মোঃ আবুল কালাম, (খবর তরঙ্গ ডটকম)

লাকসাম উপজেলার উত্তরদা ইউনিয়নের উত্তর রাজাপুর এলাকায় একটি মসজিদকে কেন্দ্র করে দু’গ্রুপের মধ্যে দ্বন্ব চলছে। এ ঘটনায় দু’গ্রুপের মাঝে মামলা-পাল্টা মামলার উপদ্রব হয়েছে। এ নিয়ে ওই গ্রামে উত্তেজনা বিরাজ করছে।


জানা গেছে, উপজেলার উত্তরদা ইউনিয়নের রাজাপুর উত্তর পাড়া ভূঁইয়াবাড়ি জামে মসজিদের সভাপতি মোনায়েম হোসেন ভূঁইয়ার বিরুদ্ধে মসজিদের তহবিল তছরুপসহ মসজিদের উন্নয়ন কাজে বাধা দানের অভিযোগ উঠেছে।


অভিযোগকারী হুমায়ুন কবির ভূঁইয়া জানান, কয়েক সপ্তাহ আগে জুমার দিনে কমিটির পক্ষে মোঃ শাহজাহান মসজিদের উন্নয়নে এলাকাবাসীর প্রতি আহবান জানান। এ সময় আমি (হুমায়ুন কবির) দু’টি জানালায় থাই গ্লাস দেয়ার অভিপ্রায় ব্যক্ত করি। ৮/১০ দিন আগে জানালার পুরনো লোহার পাল্লা কেটে নতুন করে থাই গ্লাস বসানোর কাজ শুরু করলে সভাপতি মোনায়েম হোসেন ভূঁইয়া ও তার ছেলে বাহার মিস্ত্রিকে বাধা দেয়। বিষয়টি আমি এলাকার মুরুব্বিদের জানালে তারা আমাকে কাজ বন্ধ রাখার পরামর্শ দেন। তখন জানালার থাই গ্লাসগুলো মসজিদের ভেতরে রেখে দেই। ৫/৭ দিন পর মসজিদ কমিটির সভাপতি থাই গ্লাসগুলো লাগান। আমাকে বাধা দিয়ে পরে কেন লাগালো? এমন প্রশ্নে থাই মিস্ত্রি বলেন, আমার নাম দিয়েই এগুলো লাগিয়েছে। বিষয়টি আমার জানা ছিলনা বলে মিস্ত্রিকে বললে প্রতারণার অভিযোগে তিনি থাইগুলো খুলে পুনরায় মসজিদের ভেতরে রেখে দেন। ইত্যবসরে মসজিদের সভাপতি আমার বিরুদ্ধে জানালা চুরির অপবাদ রটানো শুরু করে।


হুমায়ুন কবির আরো বলেন, মাষ্টার দীন ইসলাম, শাহজাহান, কামাল হোসেন, দেলোয়ার হোসেন, আবুল খায়ের ভূঁইয়াসহ স্থানীয় মুরুব্বিদের সহায়তায় আমরা ইতিমধ্যে মসজিদের ১১শ’ ফুট টাইলসের কাজ করাসহ, আমার নিজ দায়িত্বে ৫ মাস ইমামের বেতন প্রদান এবং মিম্বার করে দিয়েছে। কিন্তু সভাপতি মসজিদের উন্নয়ন না করে তহবিল তছরুপ করছেন। তিনি গত ডিসেম্বর মাসে মাস্টার সরোয়ারের কাছ থেকে মসজিদের উন্নয়নের জন্য সাড়ে ৬ হাজার টাকা এনে মাত্র ৩২শ’ টাকা খরচ করে বাকি টাকা তছরুপ করেন। স্থাণীয়রা জিজ্ঞেস করলে তিনি বাকী টাকা খরচ করে ফেলেছেন বলে স্বীকারও করেন। এছাড়াও গত নভেম্বর মাসে স্পিকারের জন্য টাকা উঠিয়ে তছরুপসহ হিসাব দেয়ার ভয়ে হিসাবের খাতার ১ থেকে ১৮তম পাতা গায়েব করে ফেলেন। এসব কর্মকান্ডের প্রতিবাদ করায় দীর্ঘদিন ধরে সভাপতি আমার ও আমার পরিবারের সদস্যদের বিরুদ্ধে মিথ্যা অভিযোগে থানা ও আদালতে একাধিক মামলা দিয়েছেন। গত ক’দিন আগে প্রতিহিংসাবশত অতর্কিতভাবে আমার চাচি আরবের নেছার (৬৫) মাথা ফাটিয়ে দেয়।
মসজিদ কমিটির সদস্য শাহজাহান বলেন, উভয়ের মাঝে দীর্ঘদিন দ্ব›দ্ব চলে আসছে। তাদের অসহযোগিতার কারণে আমরা গ্রামবাসী চেষ্টা করেও তাদের দ্ব›দ্ব মেটাতে পারিনি।
ওই গ্রামের প্রবীন আবুল খায়ের (৯০) জানান, কয়েকদিন আগে দেখলাম মিস্ত্রি জানালার থাই লাগাচ্ছে। কিন্তু পরদিন দেখি সেগুলো মসজিদের ভেতরে পড়ে আছে।


অভিযোগের বিষয়ে মসজিদ কমিটির সভাপতি মোনায়েম হোসেন ভূঁইয়া জানান, আমার বিরুদ্ধে আনিত অভিযোগগুলো সত্য নয়। বরং হুমায়ুন কবিরসহ কয়েকজন সমাজের কাউকে মানেনা। উপরন্তু সমাজের শৃংখলা নষ্টের জন্য তারা মাত্র ২০/২৫ গজ দূরে আরেকটি মসজিদ নির্মাণ করছে। আর মসজিদের বই-খাতা ক্যাশিয়ারের কাছে থাকে। আমার কাছে থাকে না। মসজিদের জায়গা দখল করায় আমি থানায় মামলা করেছি।
এ ব্যাপারে উত্তরদা ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আলহাজ হারুনুর রশিদ বলেন, বিষয়টি খোঁজ নিয়ে দেখছি। সমাজের স্বার্থে দু’গ্রæপের সাথে কথা বলে দ্ব›দ্ব মেটানোর চেষ্টা করবো।

মোঃ আবুল কালাম
লাকসাম, কুমিল্লা
০১৭১১ ৩১৪৪৩৮
২২/০১/২০২০


কুমিল্লা এর অন্যান্য খবরসমূহ
লাকসাম এর অন্যান্য খবরসমূহ