দুইদিনের ব্যবধানে নাঙ্গলকোটে করোনা উপসর্গ নিয়ে ৪ জনের মৃত্যু - খবর তরঙ্গ
শিরোনাম :

দুইদিনের ব্যবধানে নাঙ্গলকোটে করোনা উপসর্গ নিয়ে ৪ জনের মৃত্যু



অনলাইন ডেস্ক, (খবর তরঙ্গ ডটকম)

দুইদিনের ব্যবধানে কুমিল্লার নাঙ্গলকোটে করোনা উপসর্গ নিয়ে চারজন মারা যাওয়ার খবর পাওয়া গেছে। গত শুক্রবার ও শনিবার রাতে তারা মারা যায়। নমুনা সংগ্রহ ছাড়া বিশ্বস্বাস্থ্য সংস্থার গাইডলাইন অনুসারে তাদেরকে সর্বোচ্চ সতর্কতায় দাফন করা হয়।


শুক্রবার রাতে করোনা উপসর্গ জ্বর ও শ্বাসকষ্ট নিয়ে মারা যান উপজেলার পেড়িয়া ইউনিয়নের উত্তর শাকতলী গ্রামের সর্দার বাড়ির মৃত আসলাম হোসেনের ছেলে আলমগীর ড্রাইভার (৩৫), পৌরসভার বাতুপাড়া গ্রামের আবুল হাশেমের স্ত্রী রহিমা বেগম (৬৫)। রহিমা বেগম ঢাকার মিরপুর মারা যায়। পরে গ্রমের বাড়িতে এনে দাফন করা হয়।


শনিবার রাতে উপসর্গ নিয়ে যারা মারা গিয়েছেন তারা হলেন, উপজেলার আদ্রা দক্ষিণ ইউনিয়নের পদুয়া গ্রামের মীর হোসেনের ছেলে অটোচালক জাহাঙ্গীর আলম (৩৫) এবং মক্রবপুর ইউনিয়নের বাননগর দক্ষিণপাড়া গ্রামের সাগর হোসেনের ছেলে আলমগীর হোসেন (২৫)।

আদ্রা দক্ষিণ ইউনিয়নের ইউপি সদস্য আবুল বশর বলেন, জাহাঙ্গীর আলম কয়েকদিন জ্বরে আক্রান্ত ছিলেন। কিছুটা সুস্থ হওয়ার পর তিনি অটো চালানোসহ স্বাভাবিক কাজকর্ম করে আসছিল। গত শনিবার সন্ধ্যায় বুকে ব্যাথা ও শ^াসকষ্ট দেখা দিলে লাকসাম হাসপাতালে নেয়ার পথে সে মারা যায়।


মক্রবপুর ইউনিয়নের ইউপি সদস্য ছোয়াব মিয়া বলেন, আলমগীর হোসেন গত শনিবার সন্ধ্যায় চট্টগ্রাম থেকে বাড়ি আসার পর রাতে হঠাৎ বুকে ব্যাথাসহ শ্বাসকষ্ট দেখা দিলে নাঙ্গলকোট উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেয়ার পথে সে মারা যায়।


নাঙ্গলকোট উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) লামইয়া সাইফুল বলেন, করোনা উপসর্গ নিয়ে মারা যাওয়া ব্যক্তিদের বিশ^স্বাস্থ্য সংস্থার গাইডলাইন অনুসারে লাশ দাফনে নিয়োজিত টিমকে পাঠিয়ে তাদের দাফনকার্য সম্পন্ন করেছি।

এদিকে স্থানীয় স্বাস্থ্যবিভাগ করোনা উপসর্গ নিয়ে মারা যাওয়া ব্যক্তিদের নমুনা সংগ্রহ না করায় এলাকার সচেতন মহল চরম ক্ষোভ প্রকাশ করে। এবিষয়ে জানার চেষ্টা করেও উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. দেব দাস দেবের বক্তব্য নেয়া সম্ভব হয়নি।


কুমিল্লা এর অন্যান্য খবরসমূহ
নাঙ্গলকোট এর অন্যান্য খবরসমূহ
পূর্বের সংবাদ