স্বামী হত্যাকারীদের গ্রেফতার ও কঠোর শাস্তি চান স্ত্রী আসমা - খবর তরঙ্গ
শিরোনাম :

স্বামী হত্যাকারীদের গ্রেফতার ও কঠোর শাস্তি চান স্ত্রী আসমা



কুমিল্লা প্রতিনিধি, (খবর তরঙ্গ ডটকম)

কিভাবে চলবো, কিভাবে খাবো। দু শিশু সন্তানকে কেমনে চালাবো। আমার সব কিছু শেষ হয়ে গেল। জীবন এখন হুমকির মুখে। তার দু-চোখের পানি অঝরে ঝরছে। স্বামীকে হারিয়ে মানসিকভাবে বিপর্যস্ত ও দিশেহারা স্ত্রী আসমা বেগম। কুমিল্লার দাউদকান্দি উপজেলার জামালকান্দি গ্রামের আশু মিয়া বেপারীর ছেলে ফারুক মিয়াকে কুপিয়ে ও পিটিয়ে নিষ্ঠুরভাবে হত্যা করেছে দূর্বৃত্তরা। কান্নায় কথা বলতে পারছিলনা তবুও স্ত্রী আসমা বললো স্বামী হত্যাকারীদের গ্রেফতার ও কঠোর শাস্তি চাই।


মামলার বিবরণে জানা জানা যায় গত ২৬ মে ইদুল ফিতরের পর দিন বাড়ীতে আসার পথে দাউদকান্দি মডেল থানাধীন সোনাকান্দা ও খৈয়াখালীর মধ্যখানে ব্রীজ সংলগ্ন রাস্তার উপর পৌছলে পূর্বে মতবিরোধ থাকায় একই এলাকার মৃত নিজাম মিয়ার ছেলে তারেক জুনায়েদ জনি (৩০), জসিম হাসানের ছেলে সায়মান রিয়াদ জয় (২৬), জিহানুল হক জিদান (২৪), শুভ মিয়া, জিলানী (৪৮), মশিউর রহমান বাশি (৩৮), গরিব নেওয়াজ (৫৫) এজাহার ভূক্ত ১৪ জনসহ অজ্ঞাত নামা আরো ৪-৫ জন ধারালো অস্ত্র দ্বারা শরীরের বিভিন্ন স্থানে কুপিয়ে ও পিটিয়ে ফারুক মিয়াকে গুরুতর রক্তাক্ত জখম করে। জখমীকে আশংকাজনক অবস্থায় উদ্ধার করে প্রথমে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স ও পরে ঢাকা পঙ্গু হাসপাতাল এবং ২৭ জুন রাতে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। চিকিৎসাধীন থাকা অবস্থায় গত ১০ জুন সকাল ৬টা ৪৮ মিনিটে ফারুক মারা যায়। ফারুক মুরীর কাজ করতো। অভাবী সংসারে নিহত ফারুকের ঘরে ৭ বছর ও ৫ বছরের দুই শিশু পুত্র সন্তান রয়েছে। মামলার বাদী ও নিহতের পিতা আশু মিয়া বেপারী জানায় আসামীরা বেপরোয়া ও দুষ্টু প্রকৃতির লোক। তাদের অন্যায় ও অপকর্মের প্রতিবাদ করায় আমার ছেলেকে কুপিয়ে ও পিটিয়ে নিষ্ঠুরভাবে হত্যা করা হয়।

নিহত ফারুকের স্ত্রী আসমা বেগম সাংবাদিকদেরকে জানায় কিভাবে চলবো, কিভাবে খাবো। দু শিশু সন্তানকে কেমনে চালাবো। আমার সব কিছু শেষ হয়ে গেল। জীবন এখন হুমকির মুখে। তার দু-চোখের পানি অঝরে ঝরছে। স্বামীকে হারিয়ে মানসিকভাবে বিপর্যস্ত ও দিশেহারা স্ত্রী আসমা বেগম। কান্নায় কথা বলতে পারছিলনা তবুও স্ত্রী আসমা বললো স্বামী হত্যাকারীদের গ্রেফতার ও কঠোর শাস্তি চাই, বিচার চাই।


এ বিষয়ে দাউদকান্দি মডেল থানায় ফারুক হত্যা মামলা করা হয়েছে। প্রথমে স্ত্রী আসমা বেগম অভিযোগ দাখিল করেন ও পরে নিহতের পিতা আশু মিয়া বেপারী ১৪ জনকে আসামী করে গং সহ হত্যা মামলা দাখিল করেন। দাউদকান্দি মডেল থানা পুলিশ মামলার এজহারভুক্ত ২ আসামীকে গ্রেফতার করে জেল হাজতে প্রেরণ করেছে। দাউদকান্দি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা জানায় ফারুক হত্যা মামলার আসামীদের গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে। তদন্ত করে ব্যবস্থা নেয়া হবে।


কুমিল্লা এর অন্যান্য খবরসমূহ
পূর্বের সংবাদ