লাকসামে হত্যা মামলা ঘিরে আসামীদের বাড়ীতে বাদীপক্ষের হামলা - খবর তরঙ্গ
শিরোনাম :

লাকসামে হত্যা মামলা ঘিরে আসামীদের বাড়ীতে বাদীপক্ষের হামলা



লাকসাম প্রতিনিধি, (খবর তরঙ্গ ডটকম)

কুমিল্লার লাকসামে ঘটে যাওয়া একটি হত্যা মামলা ঘিরে আজ শনিবার সকালে আসামী পক্ষের বাড়ীতে বাদীর পক্ষের হামলার অভিযোগ উঠেছে। ঘটনাটি ঘটেছে উপজেলার শ্রীয়াং গ্রামে রাজন ভুইয়া ছাড়াবাড়ী এলাকায়।

অভিযোগ জানা যায়, আজ শনিবার সকালে উপজেলার শ্রীয়াং গ্রামের রাজন ভুইয়া ছাড়াবাড়ী এলাকায় একটি হত্যা মামলা ঘিরে বাদী পক্ষের লোকজন আসামী পক্ষ মৃত আবদুল মালেক, আবদুল আজিজ ও আবু তাহের মরনের বাড়ী ঘরে হামলা চালিয়ে ব্যাপক ভাংচুর ও লুটপাট করার অভিযোগ পাওয়া গেছে।


ক্ষতিগস্থ আবদুল আজিজের স্ত্রী ছালেহা বেগম জানায়, শনিবার সকাল ১০টা দিকে হঠৎ করে মনির হোসেন মনুর পক্ষে ১৫/২০জন লোক দেশীয় অস্ত্র সস্ত্র নিয়ে আমাদের বাড়ীসহ আরো বেশ কিছু বাড়ী ঘরে হামলা ছালিয়ে ভাংচুর-লুটপাট করে সব কিছু নিয়ে গেছে। তবে কেউ কেউ এ ঘটনাকে ষড়যন্ত্র, মিথ্যা ও বানোয়াট উল্লেখ করে মোহাম্মদ হোসেন হত্যা মামলাকে ভিন্ন খাতে প্রবাহিত করতে আসামী পক্ষ পরিকল্পিত ভাবে এ নাটক সাজিয়েছে বলে অভিমত দেন। এ ছাড়া ৩ একর ৫৭ শতক রাজন ভুইয়া ছাড়াবাড়ী ঘিরে স্থানীয় জনপ্রতিনিধি ও রাজনৈতিক ব্যক্তিবর্গের কর্মকান্ড এলাকার জনমনে অনেকটাই প্রশ্ন বিদ্ধ।


উল্লেখ্য শ্রীয়াং গ্রামের রাজন ভুঞার ৩ একর ৫৭ শতক সম্পত্তি ছাড়াবাড়ী ঘিরে আবু তাহের মরণ পক্ষ ও মনির হোসেন মনু পক্ষের প্রায় ৪৮ বছর বিরোধ চলে আসছে। এ নিয়ে উভয় পক্ষের মধ্যে পাল্টা পাল্টি হামলা মামলা অব্যহত রয়েছে। গ্রামবাসী একাদিকবার নানাহ ভাবে চেষ্টা করেও তাদের শান্ত রাখতে পারেনি। ববং দু’পক্ষের মধ্যে হতাহতের ঘটনাও ঘটেছে। এ পর্যন্ত উভয় পক্ষের ২জন করে ৪জনের মৃত্যুও হয়েছে।


স্থানীয় সুত্রে জানায় ওই সম্পত্তির বিরোধ ঘিরে গত বৃহস্পতিবার ভোরে আবু তাহের মরন গ্রæপ অজ্ঞাত বহিরাগত লোকজন মনির হোসেন মনুর পক্ষের লোকজনের বাড়ীতে টেঁটা, বল্লম, চাকু সহ ও দেশীয় অস্ত্র সস্ত্র নিয়ে ৫টি ঘরে হামলা চালিয়ে ঘুমন্ত মানুষদের মারদর সহ বসতঘর ভাংচুর ও লটপাট চালায়। এতে প্রায় ১০জন আহত ও টেঁটাবিদ্ধ হয়ে মোহাম্মদ হোসেন (৩৬) নামে একজন নিহত হলে থানায় ২৪জনকে অভিযুক্ত করে হত্যা মামলার জের ধরে আজ শনিবার আসামী পক্ষের বাড়ীঘরে হামলার ঘটনা ঘটাতে পারে বলে ধারণা করছেন এলাকার লোকজন।


অপর দিকে এ হত্যা মামলা ঘিরে পুলিশ অভিযান চলছে। ফলে আসামীদের বাড়ী ঘর পুরুষ শুন্য এবং এলাকার সর্বত্রই আতংক বিরাজ করছে। পুরো এলাকা যেন ভুতুড়ে নগরীতে পরিনত। শনিবার সকালে পুলিশ অভিযান চালিয়ে এলাকার শাহ আলম মিয়ার পরিত্যাক্ত বাড়ীর বাউন্ডারী ওয়ালের ছিপা থেকে ২টা রাকসা, ৮টি বর্সা, ২টি টেঁটা সহ অনেক গুলো লাঠি শোঠা উদ্ধার করলেও আসামীদের কাউকে এখনো গ্রেপ্তার করতে পারেনি। স্থানীয় ভাবে রাজনৈতিক নোংরা পরিবেশ ও অভ্যান্তরিণ পেশি শক্তির দাফট দুপক্ষের সমস্যা সমাধানের ছাইতে দুইপক্ষ আরো বেপরোয়া হয়ে উঠেছে।


এ ব্যাপারে ওই এলাকায় টহলরত পুলিশ টিমের কাছে জানতে চাইলে তারা এ সম্পর্কে কিছুই জানেনা, কেউ অভিযোগ করলে তদন্ত স্বাপেক্ষে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।


এ সম্পর্কিত আরো খবর

কুমিল্লা এর অন্যান্য খবরসমূহ
পূর্বের সংবাদ