কক্সবাজারে জেলা প্রশাসন ও রিক’র যৌথ উদ্যোগে আন্তর্জাতিক প্রবীণ দিবস পালিত - খবর তরঙ্গ
শিরোনাম :

কক্সবাজারে জেলা প্রশাসন ও রিক’র যৌথ উদ্যোগে আন্তর্জাতিক প্রবীণ দিবস পালিত



সংবাদ বিজ্ঞপ্তি, (খবর তরঙ্গ ডটকম)

কক্সবাজারে নানা আয়োজনে আন্তর্জাতিক প্রবীণ দিবস পালিত হয়েছে। ১ অক্টোবর জাতিসংঘ ঘোষিত এ দিবসে এবাবের প্রতিপাদ্য বিষয় ‘মানবধিকার প্রতিষ্ঠায়, প্রবীণদের স্মরণ-পরম শ্রদ্ধায়’। এ শ্লোগানকে ধারণ করে দেশের অন্যান্য জেলার ন্যায় কক্সবাজারেও পালিত হয়েছে “আন্তর্জাতিক প্রবীণ দিবস। সকালে কক্সবাজার জেলা প্রশাসন-সমাজসেবা অধিদপ্তর ও জাতীয় পর্যায়ের বেসরকারী উন্নয়ন সংস্থা রিসোর্স ইন্টিগ্রেশন সেন্টার (রিক) এর যৌথ উদ্যোগে জেলা প্রশাসক এর কার্যালয়ের সম্মুখ থেকে একটি বর্ণাঢ্য র‌্যালী বের করা হয়। জেলা প্রশাসক মো: কামাল হোসেনের নেতৃত্বে র‌্যালিটি শহরের প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ করে জেলা প্রশাসক কার্যালয়ের সামনে এসে সমাপ্তি ঘোষনা করে র‌্যালিত্তোর এক আলোচনা সভা জেলা প্রশাসকের সম্মেলন কক্ষে অনুষ্ঠিত হয়।

 

সমাজ সেবা অধিদপ্তরের উপপরিচালক প্রীতম কুমার চৌধুরীর সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক মো: মাহিদুর রহমান। সমাজসেবা অধিদপ্তরের সহকারী পরিচালক নাজিম উদ্দিনের সঞ্চালনায় শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন রিসোর্স ইন্টেগ্রেশন সেন্টার (রিক)’র ডেপুটি জেনারেল ম্যানেজার এস.এ হালিম। তিনি বলেন, প্রবীণদের কল্যাণে রিক প্রায় তিন যুগ ধরে বিভিন্ন সেবা মুলক কার্যক্রম চালিয়ে আসছে। রিক প্রবীণদের মানবাধিকার আন্দোলনে বলিষ্ট নেতৃত্ব প্রদানের স্বীকৃতি স্বরুপ আর্ন্তজাতিকভাবে পুরষ্কৃত হয়েছে এবং জাতীয় পর্যায়ে প্রবীণ নীতিমালা প্রণয়ন, প্রবীণদের সিনিয়র সিটিজেনশীপ হিসেবে স্বীকৃতি অর্জনে অগ্রনি ভূমিকা পালন করেছে। প্রবীণদের জাতীয় সংগঠন “জাতীয় প্রবীণ মঞ্চ”র সদস্য সচিব হিসেবে রিক’র পরিচালক আবুল হাসিব খান বর্তমানে গুরুত্বপূর্ণ দায়িত্ব পালন করছেন। এ ছাড়াও রিক তার কর্ম এলাকায় প্রবীণদের নিয়ে সংগঠন তৈরী করে তাদের অধিকার প্রতিষ্ঠায় নিরালসভাবে কাজ করে যাচ্ছে। প্রতি বছরের ন্যায় এ বছরও জেলার মহেশখালী ও উখিয়ায় এ দিবস পালন করেছে।

 

প্রধান অতিথির বক্তব্যে অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক মো: মহিদুর রহমান বলেছেন, সব সময় প্রবীনদের প্রধান্য দেওয়া উচিত। তিনি আরো বলেন, রাষ্ট্রিয় ভাবে সরকার প্রবীণদের সিনিয়র সিটিজেনসীপ হিসেবে স্বীকৃতি ও নিয়মিত ভাতা প্রদান করে আসছে। হাসপাতালে প্রবীণদের জন্য আলদা চিকিৎসা ব্যবস্থা, পরিবহনে আসন সংরক্ষিত করা ও জেলা উপজেলার বিভিন্ন দপ্তরে প্রবীনদের উপেক্ষা না করে সম্মানের চোখে দেখার নির্দেশনা দেন। এছাড়াও কক্সবজার জেলার প্রত্যন্ত অঞ্চলের একান্নবর্তী পরিবার গুলো ভাঙ্গার উপক্রম হয়েছে সে সব পরিবার গুলো অক্ষত রাখাতে কাউন্সিলিং করার জন্য জেলায় কর্মরত এনজিও সংস্থার প্রতিনিধিদের প্রতি আহ্বান জানান। এ সময় অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন, বাংলাদেশ জাতীয় সমাজ কল্যাণ পরিষদের সদস্য কানিজ ফাতেমা মোস্তাক, বেসরকারী উন্নয়ন সংস্থা রিসোর্স ইন্টিগ্রেশন সেন্টার (রিক)’র এরিয়া ম্যানেজার এম. ছালাম উল্লাহ খান, এক্সপেরুল এর নির্বাহী পরিচালক ইঞ্জিনিয়ার কানুন পাল ও শেখ রাসেল পূর্ণবাসন কেন্দ্রের উপ-পরিচালক জেসমিন আক্তার প্রমূখ।


এ সম্পর্কিত আরো খবর

কক্সবাজার এর অন্যান্য খবরসমূহ
পূর্বের সংবাদ