কক্সবাজারে দু’দিনব্যাপী কবিতার শান্তিযাত্রায় বক্তারা মানবিক গুণাবলীর বিকাশ এবং মানবিক শান্তির চর্চা নিশ্চিত করার আহবান - খবর তরঙ্গ
শিরোনাম :

কক্সবাজারে দু’দিনব্যাপী কবিতার শান্তিযাত্রায় বক্তারা মানবিক গুণাবলীর বিকাশ এবং মানবিক শান্তির চর্চা নিশ্চিত করার আহবান



সংবাদ বিজ্ঞপ্তি, (খবর তরঙ্গ ডটকম)

শুধু অনুভবে নয়, বাস্তব পরিধিতে অস্থিরচিত্ততা এ সমাজে বেড়েছে বেশ, নিলর্জ্জ নীতিহীনতার প্রকোপ ছোঁয়াচে রোগের মতো ছড়িয়ে পড়েছে। বিবেকতাড়িত হয়ে নীতিহীনতার বিরুদ্ধে মেরুদÐ-সোজা করে দাঁড়ানোর প্রচেষ্টা যেন দিন দিন কমে যাচ্ছে। বাংলা কবিতা শুধু নয়, বিশ্বের অন্যান্য ভাষার কবিতাও ধারবাহিকতা নিয়ে উজ্জ্বল হয়েছে। কবিতার আঙ্গিক ও বিষয়বস্তুর পরিধি বেড়েছে, তবে তার মধ্যে এক ধরনের সম্পর্ক থেকেই যায়। মানুষের জীবনও চলছে চেতনার প্রবাহ নিয়ে, এই প্রবাহ বিভিন্ন পর্যায়ে বিভিন্ন পরিধিতে ব্যাপ্তি লাভ করলেওÑঅনেক ধারণা কাল পরিবর্তনের পরও একই থেকে যায়।
‘শান্তির পৃথিবী চাই, বঙ্গবন্ধুর বাংলাদেশ চাই’ বাংলাদেশ রাইটার্স ক্লাব ও কবিতাবাংলার যৌথ আয়োজনে ৭ দিনব্যাপী অষ্টাদশ আন্তর্জাতিক লেখক দিবস ২০১৯-২০২০ এর অংশ হিসেবে দরিয়ানগর খ্যাত কক্সবাজারে দু’দিনব্যাপী কবিতার শান্তিযাত্রা ৪ ও ৫ জানুয়ারী ২০২০ অনুষ্ঠিত হয়েছে।


এবারের বাংলাদেশ রাইটার্স ক্লাব ঘোষিত লেখক দিবসের ঘোষণা উঠে আসে জাতি, লিঙ্গ, ধর্ম ও দেশের সীমারেখা নির্বিশেষে শোষণ এবং বৈষম্যের বিপরীতে একটি নিরাপদ ও শান্তিময় বিশ্বের স্বপ্নে আজীবন সোচ্চার থেকে ছিলেন পৃথিবীব্যাপী এমন রাজনৈতিক নেতৃত্বের সংখ্যা অপ্রতুল। বাংলাদেশের জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান তেমন এক ক্ষণজন্মা ব্যক্তিত্ব, যিনি সংগ্রামের ধারাবাহিকতায় একটি দেশের স্বাধিকার অর্জন করেই ক্ষান্ত হননি; বরং নতুন সৃষ্ট একটি দেশের সার্বজনিন চারটি মূলনীতি (জাতীয়তাবাদ, গণতন্ত্র, সমাজতন্ত্র ও ধর্মনিরপেক্ষতা) ভিত্তি করে এমন একটি আদর্শিক রাষ্ট্রীয় কাঠামোর দর্শন প্রবর্তন করেন যার ফলে মানবিক বিকাশ ও মানবিক শান্তির অনুকূল একটি বিশ্বব্যবস্থা তৈরি হবে।


৪ জানুয়ারী শনিবার সকাল ১১টায় কক্সবাজার শহীদ মিনারে দেশী-বিদেশী ও স্থানীয় কবিদের অংশগ্রহণে পুস্পস্তবক অর্পন ও শান্তিযাত্রার মাধ্যমে অনুষ্ঠানমালার উদ্বোধন করবেন কক্সবাজার জেলা প্রশাসক মোঃ কামাল হোসেন। বাংলাদেশ রাইটার্স ক্লাব ও কবিতাবাংলার সভাপতি মুহম্মদ নূরুল হুদার সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত কবিতার শান্তিযাত্রায় বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন কক্সবাজার উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের চেয়ারম্যান লেঃ কর্ণেল (অব) ফোরকান আহমেদ ও বিশিষ্ট শিক্ষাবিদ প্রফেসর সোমেশ্বর চক্রবর্তী।
লেখক দিবসের ঘোষনায় আরও বলা হয়, অষ্টাদশ আন্তর্জাতিক লেখক দিবসে ‘কবিতার শান্তিযাত্রা’ কর্মসূচিতে আমরা পৃথিবীব্যাপী বঞ্চনা এবং বৈষম্যহীন এমন রাষ্ট্রীয় কাঠামো এবং বিশ্বব্যবস্থার প্রতি আস্থা ঘোষণা করছি, যে ব্যবস্থায় জাতিগত পরিচয়কে অক্ষুন্ন রেখে এবং ভৌগলিক সীমানার উর্ধ্বে প্রতিটি মানুষ বৈষম্যহীন বিশ্ব নাগরিকের মর্যাদা পাবে। যে ব্যবস্থায় মানবিক গুণাবলীর বিকাশ এবং মানবিক শান্তির চর্চা নিশ্চিত করার মধ্য দিয়ে বৈশ্বিক শান্তি প্রতিষ্ঠিত হবে। তেমন একটি সদাচারী, ন্যায়ভিত্তিক ও শান্তিময় বিশ্বব্যবস্থার প্রতি আমরা আমাদের দৃঢ় অঙ্গীকার ঘোষণা করা হয়।


উদ্বোধন পরবর্তী র‌্যালি শহীদ বেদি থেকে হুদা কবিতা মঞ্চে গিয়ে শান্তির সমুদ্র স্পর্শের পরে প্রথম পর্বের আনুষ্ঠানিকতা শেষ হয়। সুস্বজ্জিত বাঢ্যযন্ত্রের তালে তালে র‌্যালীতে অংশ নেন বাংলাদেশ ভারত, নেপাল, আর্জেন্টিনা, জার্মানি, মেক্সিকো ও ইতালিরসহ কক্সবাজারের শতাধিক কবি সাহিত্যিকবৃন্দ।


এদিকে একইদিন বিকাল ৩ টায় কক্সবাজার জেলা পরিষদ সম্মেলন কক্ষে অনুষ্ঠিত হয় কবিতা শান্তিযাত্রার আলোচনা ও কবি কণ্ঠে কবিতা পাঠ। আলোচনায় মডারেটরের দায়িত্ব পালন করেন একুশে পদকপ্রাপ্ত জাতিসত্ত¡ার কবি মুহম্মদ নূরুল হুদা। আলোচনায় অংশ নেন আর্জেন্টিনার কবি ঝুনা বারগাদ, জার্মানির তুবিয়াস বারগাদ, নেপালের কিরান ভট্ট, বাংলাদেশের বিশিষ্ট ছড়াকার আসলাম সানি, কক্সবাজারের কবি সিরাজুল হক সিরাজ ও অনুষ্ঠানের অন্যতম সমন্বয়ক কবি মুহম্মদ রিশাদ হুদা।


পরে ছড়াকার আসলাম সানির সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত কবিতা পাঠে অংশ নেন, (জৈষ্ঠতার ভিত্তিতে নয়) আর্জেন্টিনার ঝুনা বারগাদ, জার্মানির তুবিয়াস বারগাদ, নেপালের কিরান ভট্ট, মেক্সিকোর রোজা মারিসল, ভারতের মুহিবুর রহমান, ড. মেঘনাদ ঘোষাল, মৃনাল কান্তি ঘোষ, গার্জি সেন গুপ্ত, চম্পা দাশ, ইশরাত আলী, দীপক সেন, সনজয় ভট্টাচায্য, উল্লাস চট্টোপধ্যায়, অমিত গোস্বামী, বাংলাদেশের মুহম্মদ নূরুল হুদা, আসলাম সানি, কওমোদি নার্গিস, রিশাত হুদা, মাহমুদ হাসান, ফারুক প্রধান, রমজান বিন মোজাম্মেল, ইউসুফ রেজা, নুরিতা নুসরাত খন্দকার, নাছিমা রহমান শিউলি, নাহিদা আশরাফি, কাজী রোজি। কক্সবাজারের কবিদের মধ্যে শিক্ষাবিদ সোমেশ্বর চক্রবর্তী, ইঞ্জিনিয়ার বদিউল আলম, কবি অমিত চৌধুরী, রুহুল কাদের বাবুল, অধ্যাপক দিলওয়ার চৌধুরী, সিরাজুল হক সিরাজ, এডভোকেট প্রতিভা দাশ, শামীম আকতার, আলী প্রয়াস, হাসান মুরাদ ছিদ্দিকী, নিলয় রফিক, আজাদ মনসুর, সিরাজুল কবির বুলবুল, জাহাঙ্গীর হোসাইন, আমিনুল হক আমিন, রবিউল হাসান, ইবনুল আবিদ, সাইয়্যিদ মঞ্জু, মোঃ মনজুর আলম মুন্না, আব্দুল তালিমিয়া, কাজি আনিসুল হক, বাপ্পি সাহা, মোস্তাক আহমদ, ডাঃ মোহন লাল সুশীল, শংকর মল্লিক রানা, রুদ্র সাহাদৎ, আহমদ সোলতান, মিজান মনির, সাঈদ, নোমান মাহমুদ, সাইফুল মোস্তফা, তানবীরুল ইসলাম, আমিনুর রহমান প্রামানিক, অনিল দত্ত, সনজিত শর্মা, বান্দরবনের কবি চৌধুরী বাবুল বড়–য়া, মিল্টন তঞ্চঙ্গা, ভূষনজয় তঞ্চঙ্গা, শুভ জয় তঞ্চঙ্গা। কবিতাপাঠ, দেশি-বিদেশী কবিদের লেখক দিবেসের বিভিন্ন সুভ্যিনিয়র প্রদান, কক্সবাজার পৌরসভার পক্ষ থেকে সকল কবিদের পক্ষে ফুল দিয়ে বরণ করেন পৌরসভার কর্মকর্তা কবি শামীম আকতার এবং ছড়াকার আসলাম সানির জন্মতিথি উপলক্ষে তাঁকে ফুলেল শুভেচ্ছাসহ বিভিন্ন উপহার সমাগ্রি প্রদান অনুষ্ঠানে বিভিন্নমাত্রা যুক্তের মধ্যদিয়ে প্রথম দিনের আনুষ্ঠানিকতা সমাপ্ত হয়। দেশি-বিদেশী কবিদের দুপুরে ও রাতে খাবারের আয়োজন করে কক্সবাজার উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ ও কক্সবাজার পৌরসভা।


অপর দিকে ৫ জানুয়ারী রোববার সকালে দরিয়ানগর শান্তিসৈকতস্থ কবিচ‚ড়ায় কবিতাপাঠ ও শান্তিযাত্রা এবং বিকালে রামু বৌদ্ধমন্দির, রামকোট হয়ে ঈদগাঁওস্থ একুশে পদকপ্রাপ্ত কবি মুহম্মদ নূরুল হুদা’র জন্মভিটায় কবি পরিবারের পক্ষ থেকে ১৪ জন এতিম শিশুদের ভরণপোষণসহ আত্ম মানবতার সেবামূলক গৃহিত বিভিন্ন কার্যক্রম পরিদর্শন শেষে দেশী-বিদেশী ও স্থানীয় কবিবৃন্দ ঢাকা ও কক্সবাজারের উদ্দেশ্যে ফিরতি কবিতাযাত্রায় অংশ নেন।


উল্লেখ্য ৩১ ডিসেম্বর থেকে অষ্টাদশ আন্তর্জাতিক লেখক দিবস-২০১৯ ও কবিতার শান্তিযাত্রা-২০১৯-২০২০ টানা ৭ দিনব্যাপী অনুষ্ঠানের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করেন তথ্যমন্ত্রী হাসান মাহমুদ। অনুষ্ঠানের মধ্যে ঢাকা-নারায়ণগঞ্জ-দরিয়ানগর ও অন্যত্রে ঢাকাস্থ শহীদ মিনারে পুষ্পার্ঘ অর্পণ, লেখক সমাবেশ, শান্তিরপথ, ঘোষণাপত্র পাঠ, তাৎপর্য বয়ান, কবিতার শান্তিযাত্রা উদ্বোধন, শহীদ মিনার, নজরুলের মাজার, স্বোপার্জিত স্বাধীনতা ও শিখা চিরন্তনী হয়ে দেশব্যাপী ও বিশ্বব্যাপী শান্তির প্রতীকী পথচিত্র, বঙ্গবন্ধুর বাংলাদেশ শীর্ষক আলোচনা ও কবিতা পাঠ, লেখকের অধিকার ও কপিরাইট শীর্ষক সেমিনার, শান্তির পৃথিবী চাই শীর্ষক আলোচনা ও কবিতা পাঠসহ নানা অনুষ্ঠানের আয়োজন করে।


কক্সবাজার সাংবাদিক কোষ প্রণেতা, কক্সবাজার সাংবাদিক সংসদ (সিএসএস) এর সভাপতি কবি আজাদ মনসুর’র ইন্টানেটে পাঠানো এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে আরও জানা গেছে, বাংলাদেশ রাইটার্স ক্লাব ও কবিতাবাংলার সভাপতি একুশে পদকপ্রাপ্ত জাতিসত্ত¡ার কবি মুহম্মদ নূরুল হুদার সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত ৬ জানুয়ারী সোমবার সমাপনী অনুষ্ঠান ঢাকাস্থ বিজ্ঞান জাদুঘরে অনুষ্ঠিত হবে। এতে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিষয়ক মন্ত্রী স্থপতি ইয়াফেস ওসমান। কবিতার শান্তিযাত্রার সকল অনুষ্ঠানের সার্বিক তত্ত¡াবধানে ছিলেন ইঞ্জিনিয়ার বদিউল আলম, কবি মুহম্মদ রিশাদ হুদা ও কবি মাহমুদ হাসান


এ সম্পর্কিত আরো খবর

কক্সবাজার এর অন্যান্য খবরসমূহ