মুজিববর্ষে প্রতিটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ‘বঙ্গবন্ধু কর্ণার’ হবে : কক্সবাজার মেয়র মুজিবুর রহমান - খবর তরঙ্গ
শিরোনাম :
উচ্চ মাধ্যমিক বিদ্যলয়ের প্রধান শিক্ষকদের সাথে মতবিনিময়কালে

মুজিববর্ষে প্রতিটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ‘বঙ্গবন্ধু কর্ণার’ হবে : কক্সবাজার মেয়র মুজিবুর রহমান



কক্সবাজার থেকে, (খবর তরঙ্গ ডটকম)

কক্সবাজার সমুদ্র সৈকতে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকীর (মুজিববর্ষ) ক্ষণগণনার ব্যতিক্রমী আয়োজন সফল করতে পৌর এলাকার সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের প্রধান শিক্ষকগণের সাথে মতবিনিময় করেছেন কক্সবাজার পৌরসভার মেয়র মুজিবুর রহমান।


বৃহস্পতিবার সকাল সাড়ে ১১টার দিকে পৌরসভার সম্মেলন কক্ষে অনুষ্ঠিত সভায় মেয়র মুজিবুর রহমান বলেন, নতুন প্রজন্মের শিক্ষার্থীরা যেন জাতির পিতার জন্ম থেকে মৃত্যু পর্যন্ত বর্ণাঢ্য জীবনী সম্পর্কে জানতে পারে সে জন্যে প্রতিটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ‘বঙ্গবন্ধু কর্ণার’ নির্মাণ করা হবে। এছাড়াও মুজিব বর্ষ উপলক্ষে বিভিন্ন প্রচারমূলক নতুন নতুন ইভেন্ট আয়োজনের পাশাপাশি গুণিজনদেরও সংবর্ধনা দেয়া হবে বলে ঘোষনা দেন মেয়র।


এসময় প্যানেল মেয়র-২ হেলাল উদ্দিন কবির, কক্সবাজার সরকারী উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক রামমোহন সেন, সরকারী বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক নাছির উদ্দিন, বায়তুশ শরফ জব্বারিয়া একাডেমির প্রধান শিক্ষক সৈয়দ করিম, পৌর প্রিপ্যার‌্যাটরি উচ্চ বিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক নুরুল ইসলাম, সৈকত বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক সমর চন্দ্র দেবনাথ, এয়ারপোর্ট পাবলিক হাই স্কুলের প্রধান শিক্ষক মোস্তাক আহমদসহ পৌর এলাকার সকল মাধ্যমিক শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষক-প্রতিনিধিগণ বক্তব্য রাখেন। এসময় পৌর কাউন্সিলর কাউন্সিলর আক্তার কামাল আজাদ, মিজানুর রহমান, সাহাব উদ্দিন সিকদার, ওমর ছিদ্দিক লালু, সালাউদ্দিন সেতু, নুর মোহাম্মদ, সংরক্ষিত আসনের কাউন্সিলর ইয়াছমিন আক্তার, জাহেদা আক্তার ও পৌরসভার সচিব রাছেল চৌধুরী।


সভায় ১০ জানুয়ারী কক্সবাজার সমুদ্র সৈকতে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকীর ক্ষণগণনা শুরুর ব্যতিক্রমী আয়োজনে উৎসবমুখরভাবে পৌরসভার সকল কর্মকর্তা-কর্মচারীসহ সংশ্লিষ্ট সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের শতভাগ উপস্থিতি নিশ্চিত করণের উপর গুরুত্বারূপ করা হয়।


এর আগে বুধবার বিকেলে জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে জাতির পিতার জন্মশতবার্ষিকীর ক্ষণগণনার আয়োজনে ১০০টি ফানুস, ১০০টি কবুতর উড়ানো, ১০০টি ছবির প্রদর্শণী ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানসহ বর্ণাঢ্য আয়োজনের নানা কর্মসূচীর কথা জানিয়েছেন কক্সবাজারের জেলা প্রশাসক মো. কামাল হোসেন। একইদিন বিকেলে সমুদ্র সৈকতের ক্ষণগণনার বর্ণাঢ্য অনুষ্ঠানটি সফল করতে জেলা আওয়ামী লীগের পক্ষ থেকেও প্রস্তুতি সভার আয়োজন করা হয়েছিলো।


কক্সবাজার এর অন্যান্য খবরসমূহ