লাকসাম রেলওয়ে জংশনে বুকিংকৃত মাছ চুরি: ২ শ্রমিক বহিস্কার

লাকসাম প্রতিনিধি.

লাকসাম রেলওয়ে জংশনে ট্রেনে বুকিংকৃত মাছ চুরির ঘটনায়  ৮ সেপ্টেম্বর ২ জন শ্রমিককে বহিস্কার করা হয়েছে। জানা গেছে, ৭ সেপ্টেম্বর সন্ধ্যায় ময়মনসিংয়ের উদ্দেশ্যে চাঁদপুর থেকে সাগরিকা এক্সপ্রেসযোগে ২২ কার্টুন ইলিশ মাছ লাকসাম রেলওয়ে জংশনে আনা হয়। রাতে ময়মনসিংহগামী নাছিরাবাদ এক্সপ্রেসে মাছের কার্টুনগুলো উঠানোর আগে অনেকগুলো কার্টুন ভেঙ্গে বিপুল সংখ্যক মাছ চুরি হয়। বিষয়টি জানাজানি হলে  ৮সেপ্টেম্বর লাকসাম রেলওয়ে জংশন স্টেশন মাষ্টার পিতু রঞ্জন ভূঁইয়া, ট্রাফিক ইন্সপেক্টর মাসুদ সরওয়ার, কেবিন মাস্টার মোহাম্মদ আলী, জেআরআই তোফাজ্জল হোসেন, লেবার সর্দার জয়নাল আবদীনের উপস্থিতিতে ভিআইপি অডিটরিয়ামে এক জরুরী বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। বৈঠকের সিদ্ধান্ত মতে, জংশনে কর্মরত সকল শ্রমিকদের সতর্কীকরণসহ সাদ্দাম ও চৌধরী নামে ২ শ্রমিককে বহিস্কার করা হয়।

লাকসাম রেলওয়ে থানার ওসি, আবুল খায়ের এ বিষয়ে কিছুই জানেন না বলে মন্তব্য করেন।

লাকসাম রেলওয়ে জংশন স্টেশন মাষ্টার পিতু রঞ্জন ভূঁইয়া জানান, ৪/৫টি মাছ চুরি হয়েছে। বিষয়টি জানার পর আমরা দোষীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিয়েছি।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।