ঢাকাগামী তিতাস কমিউটার ট্রেনে ডাকাতি, নিহত ৪জন

ঢাকা-চট্টগ্রাম এবং ঢাকা-সিলেট রেলপথের ব্রাহ্মণবাড়িয়ার সদরের ভাদুঘর এলাকায় চলন্ত ট্রেন থেকে ফেলে চারজনকে হত্যা করেছে দুর্বৃত্তরা। এ ঘটনায় আরও দুজন আহত হয়েছে। বৃহস্পতিবার ভোর ৫টার দিকে ব্রাহ্মণবাড়িয়া রেল স্টেশনের কাছে ভাদুগড় পুরুলিয়া রেলসেতু এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় নিহতদের পরিচয় জানা যায়নি। তবে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন গুরুতর আহত দুজনের মধ্যে একজনের পরিচয় পাওয়া গেছে। তার নাম রুবেল মিয়া, বাড়ি ব্রাহ্মণবাড়িয়ার বিজয়নগর উপজেলার কালাছড়া গ্রামে।

আখাউড়া থেকে ঢাকাগামী তিতাস কমিউটার ট্রেনে ডাকাতি শুরু হয়। এক পর্যায়ে ডাকাত দলের লোকজন ব্রাহ্মণবাড়িয়া পাঘাচং এলাকায় এসে তাকে ট্রেন থেকে ধাক্কা মেরে ফেলে দেয় বলে জানান আহত রুবেল মিয়া।

ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর থানার ওসি আব্দুর রব বলেন, ‘ভোর ৫টার দিকে ভাদুগড় পুরুলিয়া রেলসেতু এলাকায় ট্রেন থামিয়ে যাত্রীবেশী একদল ডাকাত যাত্রীদের অস্ত্রের মুখে জিম্মি করে মালপত্র লুট করেছে বলে খবর শুনেছি।

তিনি জানান, ‘ডাকাতদের বাঁধা দিতে গেলে তারা ছয়/সাতজনকে মারধর করে। একপর্যায়ে এদের মধ্যে চারজনকে হত্যা করে লাশ ট্রেন থেকে ফেলে দেয় তারা। ডাকাতি শেষে সেখানে নেমে যায় ডাকাত দল।’

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।