সন্ত্রাসীদের গুলিতে পার্বত্য চট্রগ্রামে লারমা গ্রুপের এক কর্মী নিহত

রাঙামাটি জেলার দুর্গম উপজেলা বাঘাইছড়িতে শুক্রবার সকালে সন্ত্রাসীদের গুলিতে পার্বত্য চট্রগ্রাম জনসংহতি সমিতি এমএন লারমা গ্রুপের এক কর্মী নিহত হওয়ার খবর পাওয়া গেছে। এ জন্য জেএসএস সন্তু লারমা গ্রুপকে দায়ী করা হলেও তারা তা অস্বীকার করেছেন।প্রত্যক্ষদর্শী ও পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, বাঘাইছড়ির দুর্গম এলাকা বারিবিন্দুঘাটের একটি চা দোকানে চা খাওয়ার সময় পাঁচ-ছয়জনের একটি সন্ত্রাসী দল দীপেন চাকমাকে (৩০) গুলি করে। গুলিতে ঘটনাস্থলে দীপন চাকমা মারা যান। পরে পুলিশ ও বিডিআর ঘটনাস্থল থেকে গুলিবিদ্ধ লাশ উদ্ধার করে। নিহত ব্যক্তি জেএসএস এমএন লারমা গ্রুপের সদস্য বলে জানা গেছে। নিহতের বাড়ি দুরছড়ি বাজার এলাকায়।
ঘটনার জন্য জেএসএস এমএন লারমা গ্রুপ জেএসএস সন্তু লারমা গ্রুপকে দায়ী করলেও তারা তা অস্বীকার করেছে।
জনসংহতি সমিতির সহ-তথ্য প্রচার সম্পাদক সজীব চাকমা অভিযোগ অস্বীকার করে বলেছেন, “ভিত্তিহীন অভিযোগ করছে। জনসংহতি সমিতি হত্যাকাণ্ডের রাজনীতিতে বিশ্বাসী নয়। এটা সবাই জানে বাঘাইছড়ি পুরো উপজেলায় আমাদের সাংগঠনিক কার্যক্রম নেই বরং ওই এলাকায় দীর্ঘদিন ধরে ইউপিডিএফ ও সংস্কারপন্থীরা সশস্ত্র তৎপরতা চলছে। সম্ভবত এটা তাদের অভ্যন্তরীণ বিরোধের কারণেই ঘটেছে।”
বাঘাইছড়ি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা রফিকুল ইসলাম ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেছেন, “পুলিশ বারিবিন্দুঘাট এলাকা থেকে একটি গুলিবিদ্ধ লাশ উদ্ধার করা করেছে।”

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।