কুমিল্লার মুরাদনগরে প্রতিপক্ষ হামলায় গুরতর আহত সুজাত আলীর মৃত্যু

কুমিল্লার মুরাদনগর উপজেলার পুটিয়াজুরীতে মরিচা খালে মাছ ধরাকে কেন্দ্র করে প্রতিপক্ষ মোবারক গ্রুপের হামলায় গুরতর আহত সুজাত আলী (৪০) শুক্রবার রাতে ঢাকায় চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা গেছেন। গত ৫ দিন চিকিৎসাধীন থাকার পর অবশেষে শুক্রবার রাত সাড়ে ৮ টায় ঢাকার সায়েদাবাদস্থ সালাহ উদ্দিন হাসপাতালে তিনি মারা যান। রবিবার নিহত সুজাত আলীর স্ত্রী মর্জিনা বেগম জানান, গত ৩ ফেব্রুয়ারী(রবিবার)দুপুরে বাড়ি থেকে পুটিয়াজুরীর মরিচা খালে মাছ ধরার জন্য জাল নিয়ে যাচ্ছিলেন সুজাত আলী। এ সময় ওই খালের তীরে সরকারি খালের মাছ বিক্রি নিয়ে মোবারক ও পুটিয়জুরী মসজিদ কমিটির মধ্যে দীর্ঘদিন ধরে চলমান দ্বন্দ্বের শিকার হন সুজাত আলী। মোবারক গ্রুপের লোকজন ভেবেছিলেন, সুজাত আলী মাছ ধরতে এসেছেন।

তাই তাকে এলোপাথারী পিটিয়ে মাথায় আঘাত করলে মাটিতে লুটিয়ে পড়ে চিৎকার করতে থাকলে মসজিদ কমিটির লোকজনসহ এলাকার অন্যান্য লোকজন তাকে উদ্ধার করে প্রথমে দেবীদ্বার উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স পরে কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করেন। সেখানেও তার অবস্থার অবনতি হলে পরে ঢাকার সায়েদাবাদের সালাহ উদ্দিন হাসপাতালে তাকে ভর্তি করানো হয়। সাবেক ইউপি সদস্য ও নিহতের চাচা আলী মিয়া জানান, এ ঘটনার সঙ্গে মোবারক গ্রুপের সন্ত্রাসী নোয়কান্দি গ্রামের কিতাব আলীর ছেলে মোয়াজ্জল,জামাল ও হাকিমসহ আরো ১০-১২ জন জড়িত রয়েছে। তাদের বিরুদ্ধে ইতোমধ্যে এ ঘটনায় মুরাদনগর থানায় মামলা দায়ের করলেও পুলিশ তাদের রহস্যজনক কারনে গ্রেফতার করছেনা।

এ ব্যাপারে মুরাদনগর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা(ওসি) মনিরুল ইসলামের সরকারি মোবাইল ফেন নং ০১৭১৩-৩৭৩৬৯৫ তে বার বার কল করেও তিনি ফোন গ্রহন না করায় তার সাথে কথা বলা সম্ভব হয়নি। নিহতের পিতার নাম আলী আহাম্মদ। তিনি উপজেলার দারোরা ইউনিয়নের রতন নগর গ্রামের বাসিন্দা ছিলেন। তার ২ছেলে ও একটি মেয়ে রয়েছে। রবিবার সকালে তার মরদেহ ঢাকা থেকে তার নিজ বাড়ি কুমিল্লার মুরাদনগরের পুটিয়জুরী গ্রামে আনা হয়েছে।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।