হবিগঞ্জে বড় ভাইয়ের প্রেমের জন্য ছাত্রলীগের হাতে জীবন দিল ছোট ভাই

হবিগঞ্জে প্রেমঘটিত বিষয় নিয়ে সন্ত্রাসী হামলায় জাহাঙ্গীর আলম (১৬) নামে এক কিশোর খুন হয়েছে। হামলায় আহত হয়েছেন জাহাঙ্গীরের বড় ভাই পৌর ছাত্রলীগ নেতা আব্দুল কাদির (২০)। বৃহস্পতিবার রাত ৯টায় সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় জাহাঙ্গীর মারা যান। আহত আব্দুল কাদিরকে হবিগঞ্জ সদর আধুনিক হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

নিহত জাহাঙ্ঘীর আলম বানিয়াচং উপজেলার উত্তর সাঙ্গর গ্রামের শফিক মিয়ার ছেলে। বর্তমানে তার পরিবারের সদস্যরা হবিগঞ্জ শহরের গোসাইনগর এলাকায় বসবাস করছেন।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, দুপুর ১টায় শহরের সরকারি বৃন্দাবন কলেজ ক্যাম্পাসে প্রেমঘটিত বিষয় নিয়ে আহত কাদিরের সঙ্গে হবিগঞ্জ সদর উপজেলার রিচি গ্রামের শিপন মিয়ার (২০) কথা কাটাকাটি হয়।

এ সময় শিপনের পক্ষ নিয়ে জেলা ছাত্রলীগের দপ্তর সম্পাদক সিরাজল ইসলাম শান্ত’র নেতৃত্বে একদল যুবক কাদিরকে বেধড়ক পিটিয়ে আহত করেন।

সঙ্গে সঙ্গে স্থানীয় লোকজন আহত কাদিরকে হবিগঞ্জ সদর আধুনিক হাসপাতালে নিয়ে ভর্তি করেন।

পরে বেলা ২টার দিকে শান্ত, শিপনসহ আরও কয়েক যুবক হাসপাতাল চত্ত্বরে গিয়ে আহত কাদিরের ছোট ভাই নিহত জাহাঙ্গীরকে (১৬) এলোপাতাড়ি কুপিয়ে আহত করে।

দ্রুত জাহাঙ্গীরকে সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে ভর্তি করা হলে রাত ৯টায় সে মারা যায়।

এ ব্যাপারে হবিগঞ্জ সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোজাম্মেল হক  জানান, অভিযোগ পাওয়ার পর হামলাকারীদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।