শ্রীলংকায় উদ্ধারপ্রাপ্ত ৫৪জন টেকনাফবাসীর ঘরে ঘরে চলছে হাহাকার

শ্রীলংকায় উদ্ধারপ্রাপ্ত ৫৪জন টেকনাফবাসীর ঘরে ঘরে হাহাকার চলছে । গত ১০দিন ধরে তাদের সাথে যোগাযোগ বন্ধ থাকায় পুত্র হারানোর বেদনায় ৪জনের মা এবং ১জনের পিতা গুরুতর অসুস্থ হয়ে পড়েছেন বলে জানা গেছে । কোথায় কি অবস্থায় আছেন, জীবিত আছে না মারা গিয়েছে তাও জানা যাচ্ছেনা । শ্রীলংকায় উদ্ধারপ্রাপ্ত সাবরাং গুচ্ছগ্রামের বাসিন্দা গফুর আলমের পিতা মোঃ হোছন, আলীরডেইলের বাসিন্দা জাফরের পিতা কবির আহমদ ও কুয়াইংছড়িপাড়ার বাসিন্দা রাহমতুল্লার পিতা আলী আহমদ ১৯ফেব্রুয়ারী উক্ত তথ্য নিশ্চিত করেছেন । পুত্র শোকে গুরুতর অসুস্থরা হলেন- আলীরডেইলের বাসিন্দা জাফরের মা জমিলা খাতুন (৫০), কুয়াইংছড়িপাড়ার বাসিন্দা রাহমতুল্লার মা ফিরোজা বেগম (৪৮) ও জাফরের মা আমিনা বেগম (৫৫), গুচ্ছগ্রামের বাসিন্দা গফুর আলমের মা মনোয়ারা বেগম (৩৫) ও ছৈয়দ আলমের পিতা কাদুরা (৬০) । বর্তমানে এরা মৃত্যুশয্যায় ।
১৯ফেব্রুয়ারী সন্ধ্যায় সাবরাং গুচ্ছগ্রামের বাসিন্দা মোঃ হোছন (মোবাইল নং-০১৮৩৩২৭২২৫৮), আলীরডেইলের বাসিন্দা কবির আহমদ ও কুয়াইংছড়িপাড়ার বাসিন্দা আলী আহমদ (০১৮২৯২৯২৩০১) জানান, গত ৩ফেব্রুয়ারী শ্রীলংকা নেভী কতৃক গভীর বঙ্গোপসাগর থেকে ১৩৯জন মালয়েশিয়া যাত্রী উদ্ধারের পর কয়েক দিন এখানকার আতœীয়-স্বজনদের সাথে মোবাইল ফোনে যোগাযোগ ছিল, কিন্ত হঠাৎ করে যোগাযোগ বন্ধ হয়ে গিয়েছে । গত ১০দিন ধরে তাদের কোন খোঁজ-খবর পাওয়া যাচ্ছেনা । এনিয়ে তারা চরম উৎকন্ঠায় রয়েছে । ঘরে ঘরে চলছে হাহাকার । অনেক পরিবারে চলছে কারবালার মাতম । তারা সরকারী উদ্যোগে শ্রীলংকায় উদ্ধার প্রাপ্তদের জরুরী ভিত্তিতে স্বল্প সময়ের মধ্যে ফিরিয়ে আনার দাবী জানিয়েছেন। এদিকে শ্রীলংকায় উদ্ধারপ্রাপ্ত টেকনাফ উপজেলার ৫৪জন বাসিন্দাদের মধ্যে ২৩জনের নামের তালিকা পাওয়া গিয়েছে । এরা হচ্ছে- সাবরাং গুচ্ছগ্রামের বাসিন্দা মোঃ হোছনের পুত্র গফুর আলম (২৫), কাদুরার পুত্র ছৈয়দ আলম (২৩), লাল মোহাম্মদের পুত্র নুরুল আলম (২৪), গোলাম শরীফের পুত্র গফুর আলম (২৩), আলী হোছনের পুত্র গফুর আলম (২৫), দুদুমিয়ার পুত্র ছৈয়দ আলম (২৪), কোয়াংইছড়িপাড়া অলি আহমদের পুত্র রাহামত উল্লাহ (২২),আলী হোছনের পুত্র নজির আহমদ (২৫), কালা মিয়ার পুত্র আবুল হোছন (২৭), নুরুল হকের পুত্র হোছন আহমদ (২৬), আবু সমার পুত্র আবদুল হক (২৮), মুহিবুল্লাহর পুত্র জাফর আহমদ (৩৫), হামিদ হোছনের পুত্র তোফায়েল (২৪),নুরুল ইসলামের পুত্র নুরুল আলম (২৩), আবদুস সালামের পুত্র বণি আমিন (২৮), আলীর ডেইলের কবির আহমদের পুত্র জাফর আলম (২৫), আনু মিয়ার পুত্র ছৈয়দ আলম (২৩), আমিন উল্লাহর পুত্র আলম (২৬), আনু মিয়ার পুত্র আবুল হোছন (২২), দক্ষিণ মুন্ডারডেইলের আবুল হাসেমের পুত্র মোঃ হোছন (৩৪), সাদেক হোসেনের পুত্র জাহাঙ্গীর (২৬),জালাল আহমদের পুত্র আবদু শুক্কুর (৩০),মিঠাপানিরছড়া মৃত কালা মিয়ার পুত্র আবদুল্লাহ(২৫)। এ ব্যাপারে জানতে চাইলে টেকনাফ উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) মোঃ সামছুল ইসলাম মেহেদী বলেন- চোরাই পথে সাগর দিয়ে মালয়শিয়াগামী ১৩৯ যাত্রী শ্রীলংকা নেভী কর্তৃক উদ্ধারের ঘটনা প্রচার মাধ্যম থেকে জানতে পেরেছি। তবে এ ব্যাপারে সরকারী ভাবে এখনও কোন চিঠিপত্র পাওয়া যায়নি।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।