ইজিবাইক চালকদের কাছে জিম্মি কুবির শিক্ষার্থীরা

কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা ইজিবাইক ভাড়া নিয়ে প্রায়ই বিপাকে পড়েন। বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা নির্ধারীত ভাড়ার চেয়ে বেশি দাবি করেন ও নিয়ে থাকেন। ইজিবাইক চালকেরা শুধু বেশি ভাড়া নিয়েই ক্ষ্যান্ত হন না, তারা শিক্ষার্থীদের সাথে খারাপ আচরন করেন। প্রায়ই শিক্ষার্থীদের গালাগাল করতে দেখা যায়। বিশ্ববিদ্যালয় এলাকাতে দোকানগুলতে পন্যসামগ্রীতে বেশি দাম রাখা হয়। এসব কারনে ক্ষুব্দ বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা, গত ৪ জনুয়ারি একটা ছাগল আহতকে কেন্দ্র করে এলাকাবাসি বিশ্ববিদ্যায়ের শিক্ষার্থীদের মারধর করে, এর জের ধরে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা এলাকার দুটি ঘরে আগুন দেয়। এলাকাবাসীর সাথে শিক্ষার্থীদের দফায় দফায় সংঘর্ষে শিক্ষার্থীসহ প্রায় ১০ জন আহত হয়। পরদিন বিশ্ববিদ্যালয় সম্মেলন কক্ষে সমঝোতা বৈঠকে কোটবাড়ি থেকে বঙ্গবন্ধু হল পর্যন্ত ৮টাকা ইজি ভাড়া সহ সব কিছুর ন্যায্য দাম রাখা হবে বলে সিদ্ধ্যান্ত হয়। কিন্তু বেশির ভাগ চালকেরা এখনও শিক্ষার্থীদের কাছ থেকে বেশি ভাড়া আদায় করে। তারা বিশ্ববিদ্যালয়ের ৫০ গজ আগে শিক্ষার্থীদের নামিয়ে দেয় কিন্তু এখান থেকে বঙ্গবন্ধু হল ও নির্ধারিত স্ট্যান্ড আরও সামনের দিকে। বিশ্ববিদ্যালয়ের ৫ম ব্যাচের শিক্ষার্থী সোহানুর রহমান জানান,‘গত বৃহস্পতিবার আমাদের এক বড় ভাই অসুস্থ হলে এম্বুলেন্স না পেয়ে ইজিবাইক আনতে যাই কিন্তু অসুস্থ ব্যক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র জানার পর ইজিবাইক চালকেরা আসতে অস্বিকৃতি জানায় শত বলার পরও না আসায় আমরা দূর থেকে একটা সি.এন.জি-র ব্যবস্থা করি।’ এ সর্ম্পকে জানতে চাইলে বিশ্ববিদ্যালয় ছএলীগের আহ্বায়ক কমিটির সিনিয়র সদস্য আফজাল সাদিক বলেন,‘এটা তাদের স্বেচ্ছাচারিতামূলক মনভাবের কারন তারা শিক্ষার্থীদের কাছ থেকে মনমত ভাড়া আদায় করে প্রশাসনের নিয়ম কানুনকে তোয়াক্কা না করে।’এ বিষয়ে জানতে চাইলে নাম না প্রকাশের শর্তে এক ইজিবাইক চালক বলেন,‘বেশির ভাগ চালকেরা বেশি ভাড়া আদায় করে ঠিক এবং তারা বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রদের সাথে খারাপ আচরন করে।” বিশ্ববিদ্যালয়ের ৬ষ্ঠ ব্যাচের শিক্ষার্থী ফজলে শাহরিয়ার জানান,‘ভাড়া বেশি নেয় কিন্তু তার থেকেও বড় কথা হল তারা আমাদের সাথে খুবই খারাপ আচরন করে।’

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।