যৌতুকের টাকা না দেয়ায় চৌদ্দগ্রামে সন্তানসহ গৃহবধু নিখোঁজ!

চৌদ্দগ্রামে দাবিকৃত যৌতুকের টাকা না দেয়ায় স্বামী ও শ্বশুড় পক্ষের লোকজনের বিরুদ্ধে সন্তানসহ গৃহবধুকে গোপনস্থানে আটকে রাখার অভিযোগ পাওয়া গেছে। এনিয়ে থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেছে গৃহবধুর বাবা হাজী সিরাজুল হক বাচ্চু।

অভিযোগে জানা গেছে, ৬ বছর আগে শ্রীপুর ইউনিয়নের ছোট কাছনাই গ্রামের আবুল কাশেমের ছেলে মোঃ শাহিনের সাথে চিওড়া ইউনিয়নের চরপাড়ার হাজী সেরাজুল হক বাচ্চুর মেয়ে রাশিদা আক্তারের বিয়ে হয়। তাদের ৫ বছর বয়সী শাওন নামে এক ছেলে সন্তান রয়েছে। বিয়ের পর থেকে শাহিন যৌতুকের টাকার জন্য রাশিদাকে নির্যাতন চালিয়ে আসছে। বিভিন্ন সময় শাহিনকে দুই লাখ টাকা দেয় রাশিদার পরিবার। গত ৬ মাস আগে শাহিন আবার ৫০ হাজার টাকা দাবি করলে রাশিদা অপারগতা প্রকাশ করে। এতে ক্ষীপ্ত হয়ে ১১ মার্চ সোমবার রাতে রাশিদাকে মারধর করে শাহীন ও শ্বশুড় পক্ষের লোকজন। এলাকাবাসীর মাধ্যমে খবর পেয়ে রাশিদার বাবা বাচ্চু ওই গ্রামে গিয়ে তার মেয়ে রাশিদা ও নাতীকে দেখতে পাননি। এসময় শাহিন তাকে হুমকি দিয়ে তাড়িয়ে দেয়। কয়েকদিন ধরে বিভিন্নস্থানে রাশিদাকে খোঁজাখুজি করে না পেয়ে বাচ্চু বাদি হয়ে শাহিন, তার বাবা কাশেম ও বোন পারভীন আক্তারকে আসামী করে একটি অভিযোগ দায়ের করে। সেখানে উল্লেখ করা হয়, রাশিদাকে মারধর শেষে গোপনস্থানে আটকে রাখা হয় অথবা হত্যা করে লাশ গুম করা হয়েছে। চৌদ্দগ্রাম থানা পুলিশ গতকাল শুক্রবার ঘটনাস্থল পরিদর্শনে গেলে শাহিন ও তার পরিবারের লোকজন পালিয়ে যায়।

চৌদ্দগ্রাম থানার এসআই সুলতান বলেন, পুলিশ ঘটনাস্থলে গেলে অভিযুক্তরা পালিয়ে যায়। আশে-পাশের লোকজন জানায়, শাহিনের পরিবারে ঝগড়ার ঘটনায় গৃহবধু তার সন্তানকে নিয়ে চলে যায়।

স্থানীয় ওয়ার্ড মেম্বার আলমগীর হোসেন বলেন, রাশিদার স্বামী শাহিনসহ শ্বশুড় পরিবারকে গৃহবধু ও তার সন্তানকে খুজে বের করার জন্য চাপ সৃষ্টি করা হয়েছে।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।