টেকনাফে উ পন্ডিতা মহাথেরোর অন্ত্যেষ্টিক্রিয়া সম্পন্ন

ধর্মীয় ভাবগাম্ভীর্য ও ২দিন ব্যাপী ব্যাপক অনুষ্ঠানমালার মধ্য দিয়ে আর্ন্তজাতিক খ্যাতিসম্পন্ন বৌদ্ধ ধর্মীয় ব্যক্তিত্ব টেকনাফের হ্নীলা চৌধুরী পাড়া অশোক বৌদ্ধ বিহারাধ্যক্ষ ভদন্ত উ পন্ডিতা মহাথের’র অন্ত্যেষ্টিক্রিয়া গতকাল ৫ এপ্রিল যথাযোগ্য মর্যাদায় সম্পন্ন হয়েছে।
জানা যায়, এ উপলক্ষ্যে শুক্রবার সকাল ৭টায় হ্নীলা চৌধুরী পাড়া রাখাইন পল্লী সংলগ্ন মাঠে জাতীয় ও ধর্মীয় পতাকা উত্তোলণের মধ্যদিয়ে অনুষ্ঠানমালা শুরু হয়। বিপুল সংখ্যক বৌদ্ধ ধর্মালম্বী ভক্তদের উপস্থিতিতে আলং নৃত্য, ভিক্ষু সংঘের পিন্ডদান, সদ্ধর্মালোচনা ও স্মৃতিচারণ সভা শেষে বিকাল সাড়ে ৩টায় অনিত্য গাথা পাঠের পর মরদেহে বাজি দিয়ে অগ্নি প্রজ্জলনের মাধ্যমে অন্ত্যেষ্টিক্রিয়া সম্পন্ন হয়। এতে উপজেলা ভাইস-চেয়ারম্যান এইচএম ইউনুচ বাঙ্গালী, ভারপ্রাপ্ত উপজেলা নির্বাহী অফিসার আবদুল্লাহ আল মামুনসহ স্থানীয় বিশিষ্ট ব্যক্তিবর্গ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন। এদিকে অশোক বৌদ্ধ বিহারের বিহারাধ্যক্ষ উ পন্ডিতা মহাথেরোর অন্ত্যেষ্টিক্রিয়া চলাকালে মৃত দেহে আগুন লাগানোর সময় আতশবাজি লক্ষ্যচ্যুত হয়ে রাস্তা দিয়ে সাইকেল  আরোহী হ্নীলা বাজার পাড়া এলাকার মৃত মোহাম্মদ হানিফের পুত্র জাফর আলম প্রকাশ গুরাইয়ার (২৪) মাথায় আঘাত লাগে। উক্ত যুবক ঘটনাস্থলে গুরুতর আহত হয়ে মাটিতে লুঠিয়ে পড়ে চিৎকার করলেও কোন বৌদ্ধ সম্প্রদায়ের লোকজন তাকে উদ্ধার করে চিকিৎসার জন্য না নেওয়ায় জনমনে ক্ষুদ্ধ প্রতিক্রিয়ার সৃষ্টি হয়।পরে স্থানীয় কতিপয় মুসলিম লোক তাকে উদ্ধার করে স্থানীয় হাসপাতালে চিকিৎসার জন্য নিয়ে যায়। এর পরও রাখাইন নেতারা উক্ত যুবকের সুচিকিৎসার খোঁজ-খবর না নেওয়ায় জনমনে ক্ষুদ্ধ প্রতিক্রিয়ার সৃষ্টি হয়েছে।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।