চট্টগ্রামে মহাসমাবেশ: হেফাজতের ‘গণতওবা’

শুক্রবার বেলা ১০টার থেকে শুরু হয়েছে চট্টগ্রামে হেফাজতে ইসলামের শানে রেসালাত মহাসমাবেশ। হেফাজতের নেতারা জানান, বিকেলে সাভার ট্রাজেডি’র মতো দুর্যোগ-বিপদ থেকে রক্ষা পেতে দেশবাসীর পক্ষ থেকে মহান আল্লাহর কাছে ‘গণতওবা’ (আত্মসংশোধন পূর্বক ক্ষমা প্রার্থনা) করা হবে। তওবা পরিচালনা করবেন সমাবেশের প্রধান অতিথি হেফাজতের আমীর মাওলানা শাহ আহমদ শফী। সকালে আনুষ্ঠানিকভাবে সমাবেশ শুরুর পর বক্তব্য রাখছেন নেতারা। জুমার নামাজের পর হেফাজতের সিনিয়র নেতারা বক্তব্য রাখছেন।

বক্তৃতায় হেফাজতের নেতারা বলেন, “দেশে অপরাধ প্রবণতা ও নাফরমানি ব্যাপকভাবে বেড়ে যাওয়ায় সৃষ্টিকর্তা সাভার ট্রাজেডির মতো শাস্তি দিয়েছেন, জাতি হিসেবে আত্মশুদ্ধির (তওবা) পথ বেছে না নিলে এ রকম আরো বিপদ হওয়ার আশংকা আছে।”

৬ এপ্রিলের ‘ঢাকামুখি লংমার্চ’ কর্মসূচিকে ইঙ্গিত করে নেতারা বলেন, “৬ এপ্রিল সরকারকে হলুদ কার্ড দেখানো হয়েছে, ৫ মে লাল কার্ড দেখানো হবে ইনশাআল্লাহ।”

মহাসমাবেশস্থলের চতুর্দিকে মোতায়েন রয়েছে  পুলিশসহ আইনশৃংখলা রক্ষাকারী বাহিনীর বিপুল সদস্য। মহাসমাবেশ স্থলের চারিদিকে প্রায় অর্ধকিলোমিটার এলাকায় মাইক স্থাপন করা হয়েছে।

উদ্বোধনী অধিবেশনে সভাপতিত্ব করছেন সংগঠনের নায়েবে আমির আল্লামা হাফেজ তাজুল ইসলাম। মাঠ পর্যায়ের নেতাদের পাশাপশি উদ্বোধনী অধিবেশনে  সিনিয়র নেতাদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন মাওলানা মাঈনুদ্দিন রুহি ও মওলানা আজিজুল হক ইসলামাবাদী ।

হেফাজতে ইসলাম বাংলাদেশের আমির আল্লামা মুফতি শাহ আহমদ শফি বিকালে মহাসমাবেশে উপস্থিত থাকবেন এবং সার্বিক পরিস্থিতি ও আগামী ৫ মে ঢাকা অবরোধ কর্মসূচির ওপর গুরুত্বপূর্ণ বক্তব্য রাখবেন বলে আয়োজকরা জানিয়েছেন

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।