ঝিনাইদহের কালীগঞ্জের দুইনেতার বিরোধের প্রভাব হাটবাজারে

ঝিনাইদহের কালীগঞ্জের  আওয়ামী লীগের দুই নেতার বিরোধের প্রভাবে বড় বাজার থেকে মুখ ফিরিয়ে নিচ্ছে পাইকাররা। কালীগঞ্জ উপজেলার হাট ইজারা ও আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে বেশ কিছুদিন ধরে স্থানীয় আ’লীগের বিবাদমান দুটি গ্র“পের মধ্যে মারমুখি পরিস্থিতি চলে আসছে। এ ঘটনার জের ধরে গত মাসের পহেলা এপ্রিল প্রতিপক্ষের হামলায় স্থানীয় আ’লীগের সাংগাঠনিক সম্পাদক আব্দুর রউফ ওরফে রইফ নিহত হয়। এর পর থেকে দু’গ্র“পের হাট কেন্দ্রিক মহড়া,সংঘর্ষ আরো তীব্র আকার ধারণ করে। যার প্রভাবে দেশের দক্ষিণাঞ্চলের বৃহত সবজি হাট নামে পরিচিত বারোবাজার পাইকার শুন্য হতে চলেছে। দেশের বিভিন্ন এলাকা থেকে আসা পাইকারেরা নিরাপত্তাহীনতায় এ বাজার থেকে মুখ ফিরিয়ে নিচ্ছেন।
ঝিনাইদহের কালীগঞ্জের বারবাজার প্রতি শনি ও মঙ্গলবার এ দু’দিন হাট বসে। দেশের বিভিন্ন এলাকার পাইকারেরা এসে এ ঐতিহ্যবাহী বাজারের সবজি, মাছ, বিভিন্ন ধরনের গোবাদিপশু কিনে গাড়ী ভরে ঢাকা -চট্রগ্রামসহ দেশের বিভিন্ন শহরে নিয়ে যায়। এখান থেকে প্রতি বছর সরকার লক্ষ লক্ষ টাকা রাজস্ব আয় করে থাকে। কিন্ত বর্তমানে বাজার কেন্দ্রিক আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে প্রতি হাটের দিন আওয়ামীলীগের দুগ্র“পে ঘটছে কোন না কোন সহিংস ঘটনা। এতে দুর-দুরান্ত থেকে আসা ক্রেতারা নিরাপত্তাজনিত কারনে হাটে আসতে চাননা বলে ব্যাবসায়ী সুত্রে জানা গেছে।
সুত্রে জানা গেছে,বাজার ইজারা ও আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে স্থানীয় আওয়ামী লীগ নেতা বারবাজার ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান জয়নাল আবেদিন ও ইউনিয়ন পরিষদ মেম্বর ও অপর গ্র“পের আওয়ামী লীগ নেতা আবুল কালাম এর মধ্যে বেশ কিছুদিন ধরে বিরোধ চলে আসছে। উভয় গ্র“প হাট ইজারা পাওয়ার চেষ্টা করলেও এ বছর ১ কোটি ৩ লাখ টাকার ডাক দিয়ে ইজারা পান জয়নাল চেয়ারম্যান গ্র“পের লোকজন। এরপর থেকে উভয় গ্র“প পাল্টাপাল্টি মহড়ার মাধ্যমে বাজার নিজেদের দখল ও নিয়ন্ত্রনে রাখার চেষ্টা করে। এমন অবস্থায় ইজারা পেয়েও টাকা জমা না দেওয়ায় নিয়ম অনুসারে উপজেলা প্রশাসন স্থানীয় ভূমি অফিসের মাধ্যমে বাজার আদায় শুরু করেন। এদিকে হাট পেয়েও তা হাত ছাড়া হয়ে যাওয়ায় চেয়ারম্যান গ্র“পের লোকজনদের মধ্যে ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে। সহিংস হয়ে উঠেছে দু’গ্র“পেরই অনুসারীরা। জের ধরে গত পহেলা এপ্রিল কালাম মেম্বরের অনুসারী ইউনিয়ন আ’লীগের সাংগাঠনিক সম্পাদক আব্দুর রউফ দিনের বেলায় বাজারে বসে থাকা অবস্থায় প্রতিপক্ষের ছোড়া বোমা ও গুলিতে নিহত হন। এ ঘটনায় নিহতের ছেলে জাহিদ হোসেন ইউপি চেয়ারম্যান জয়নাল আবেদীনসহ ২১ জনের নামে হত্যা মামলা দায়ের করার পর বাজারের নিয়ন্ত্রন চলে যায় মেম্বর আবুল কালাম গ্র“পের অনুকুলে।
গত ২৬ এপ্রিল আবুল কালাম মেম্বর কে চেয়ারম্যানের লোকজন সুযোগ বুঝে ধাওয়া করে। এ  খবর এলাকায় ছড়িয়ে পড়লে দু’গ্র“পের মধ্যে উত্তেজনা আরো তীব্রতর হয়ে ওঠে। পর দিন বিকালে উভয় গ্র“পের মধ্যে ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া শুরু হয়। এ সময় উভয় গ্র“প শতাধিক রাউন্ড গুলি ও কমপক্ষে ৫০/৬০টি বোমার বিস্ফোরণ ঘটায়।  আহত হয় কমপক্ষে ১০ জন। গুলি ও বোমা বিস্ফোরনের শব্দে বিস্তর এলাকায় আতংক ছড়িয়ে পড়ে। পরবর্তীতে র‌্যাব ও পুলিশের উর্ধতন কর্মকর্তারা ঘটনাস্থলে পৌছে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনেন। এলাকায় এখনও থমথমে অবস্থা বিরাজ করছে।
জানা গেছে, আলোচিত হাটের ইজারা গত ৩মে সম্পন্ন হয়েছে। নতুন ইজারায় হাট পেয়েছেন কালীগঞ্জে মিল্টন নামের এক ইজারদার। নতুন ইজারা ১ কোটি ৩৬ লক্ষ টাকার বিনিময়ে দেয়া হয়েছে বলে ইজারা কতৃপক্ষ সুত্রে জানা গেছে।

এ ব্যাপারে কালীগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা এরাদুল হক জানান,বারোবাজারে হাটকেন্দ্রিক উত্তেজনা বেশ কিছুদিন চলেছে। আগেই নিয়মতান্ত্রিকভাবে হাট ইজারার কাজ সম্পন্ন হয়। কিন্ত যথাসময়ে টাকা জমা না দেওয়ায় তা বাতিল হয়ে যায়। পরবর্তী পূণঃটেন্ডারের মাধ্যমে গত বৃহস্পতিবার ইজারা ফয়সালা হয়ে গেছে। এখন আশা করছেন হাটকেন্দ্রিক সব সমস্যার সমাধান হবে।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।