মনোহরগঞ্জে আদালতে নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে জোর পূর্বক ঘর নির্মাণের অভিযোগ

রবিবার কুমিল্লার মনোহরগঞ্জে আদালতে নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে জোর পূর্বক ঘর নির্মাণ করার অভিযোগ পাওয়া গেছে । উপজেলার প্রতাপপুর গ্রামের ইউনুছ আলীর ছেলে আবুল বাশারের বসত ভিটির ঘর ভেঙ্গে আদালতের নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে পার্শ্ববর্তী বাড়ীর মৃত ইদ্রিস মিয়ার ছেলে আবদুর রহমান, আবদুর রব, আমির হোসেনের ছেলে জুলহাস মিয়া, খোরশেদ আলম, জয়নাল আবেদীনের ছেলে শাহজাহান ও আবদুর রহমানের ছেলে শাহ আলম তাদের দল-বল নিয়ে সন্ত্রাসী কায়দায় বসতঘর ও পাকঘর ভেঙ্গে জোরপূর্বক ঘর নির্মান করেন।
সরজমিনে গিয়ে জানা যায়, আবুল বাশারের সাথে জবর দখলকারীদের  সম্পত্তি নিয়ে দ্বীর্ঘ দিন থেকে বিরোধ চরে আসছে। বিজ্ঞ সিনিয়র জুডিসিয়াল  আদালতের নিষেধাজ্ঞা (মামলা নং সি আর ৪২২/১৩, ২৬/০৮/২০১৩) ও এলাকাবাসীর সমযোতার আশ্বাসের পরও  জোর পূর্বক ঘর নির্মাণ করে এবং আবুল বাশারের বসত ঘর ও পাকঘর ভাংচুর করে কয়েক লক্ষ টাকার ক্ষতি সাধন করে।
আবুল  বাশার জানান, মনোহরগঞ্জ থানা পুলিশের  ওসি কে একাধিক বার ফোন করার পরও না আসায় জবরদখলকারীরা  আমার বসত ঘর ও পাকঘর সহ আসবাপত্র ভাংচুর করে কয়েক লক্ষ টাকার ক্ষতি সাধন করে।
এ বিষয়ে স্থানীয় ইউপি মেম্বার শহিদ উল্লাহ জানান, আবুল বাশার ও আবদুর রহমানদের সাথে সম্পত্তি নিয়ে দীর্ঘ দিন মামলা চলে আসছে আমরা ইউপি চেয়ারম্যান সহ একাধিকবার শালিসের মাধ্যমে তা মিমাংসা করার চেষ্টা করে ব্যার্থ হয়েছি।
এসব বিষয়ে মনোহরগঞ্জ থানা পুলিশের অফিসার ইনচার্জ (ওসি) হারুনুর রশিদ জানান, জমি সংক্রান্ত বিষয়ে আদালতের নিষেধাজ্ঞার তদন্ত প্রতিবেদন আদালতে জমা দেওয়া হয়েছে। জবর দখলের বিষয়ে লিখত অভিযোগ দিলে আমরা আইনগত ব্যাবস্থা নিব।
অভিযুক্ত খোরশেদ আলমকে জবর দখলের বিষয়ে মুঠোফোনে জিজ্ঞাসা করলে তিনি বলেন, আপনি ঘটনাস্থলে এসে বক্তব্য নিয়ে জান বলে সংযোগটি কেটে দেন।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।