মানবেতর জীবন-যাপন: এ অবরোধ কাদের জন্য, কিসের জন্য প্রতিবন্ধি¦ বৃদ্ধ ভিক্ষুক’র প্রশ্ন

গত সাতদিন ভিক্ষা করতে না পেরে ক্ষোভে দূঃখে  গত সোমবার সন্ধ্যা ৭টায় লক্ষ্মীপুরের রামগঞ্জ থেকে হাতের তালুতে ভর করে রওনা হয়ে ত্রিশ কিলোমিটার পথ পাড়ি দিয়ে রায়পুর উপজেলার ভূঁইয়ার হাট গ্রামে নিজ বাড়ি যাচ্ছিলেন শারীরিক প্রতিবন্ধি¦ (দু’পা নেই) ৭০ বছরের বৃদ্ধ¦ ভিক্ষুক নুরুল ইসলাম । রাতে পথে কোন যানবাহন না পেয়ে পানপাড়া নামক স্থানের একটি পরিতক্ত্য ঘরে রাত কাটান।  তিনি মঙ্গলবার (৩ ডিসেম্বর) ওই স্থান থেকে ভোরে আবার রওনা হয়ে সকাল ৮টায় রায়পুর বাস টার্মিনাল এলাকার টিএন্ডটি কার্যালয়ের সামনে জামায়াত শিবিরের পিকেটিংয়ে আটকা পড়েন।
এসময় তার সাথে কথা বললে তিনি কেঁদে কেঁদে বলেন, ১৮ দলের নেতাকর্মীদের হরতাল অবরোধের কারণে ভিক্ষা করতে না পেরে তিনি পরিবার পরিজন নিয়ে অর্ধাহারে অনাহারে মানবেতর জীবনযাপন করছেন। এ করুনদশা থেকে নিরিহ গরিবদের উদ্ধারে সবাইকে এগিয়ে আসার আহবান জানিয়েছেন।
ভিক্ষুক আরো বলেন, তিনি গত ৩০ বছর  আগে সড়ক দুর্ঘটনায় দ’ুপা হারিয়ে ভিক্ষা করে স্ত্রী ও দ’ুসন্তান  নিয়ে জীবন-যাপন করছিলেন। কিন্তু বিএনপি জামায়াতের ডাকা টানা হরতাল ও অবরোধের নামে পিকেটিংয়ের কারনে ব্যাবসায়ীরা দোকানপাট বন্ধ করে দিয়েছেন এবং মানুষও রাস্তায় উঠতে পারছেনা । তাই আমিও গত সাতদিন ধরে ভিক্ষা পাইনা। এতে আমি ও আমার পরিবার অর্ধাহারে অনাহারে দিনযাপন করছি। এ হরতাল ও অবরোধ কিসের জন্য? কাদের জন্য? প্রতিবেদকের কাছে এ প্রশ্ন রেখে কাঁদতে কাঁদতে আবার নিজ বাড়ি পৌছানোর উদ্দেশ্যে হাতের তালুতে ভর করে আবার চলতে শুরু করেন।
এসময় ভিক্ষুকের ক্ষোভের বহিঃ প্রকাশে আবুল কাশেম নামের এক জামায়াত নেতা ক্ষুব্ধ হয়ে বলেন, আমাদের যুদ্ধ সরকারের বিরুদ্ধে দরিদ্রদের বিরুদ্ধে নয়। খোঁজ নিয়ে দেখেন এ ভিক্ষুক সুদেও ব্যবসা করছে এবং তার কাছে হাজার হাজার টাকা রয়েছে বলে দাবি করেন।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।