কুমিল্লার ৩ উপজেলা উত্তাল: সকল পেশার মানুষ নেমে এসেছে রাস্তায়

কুমিল্লার দণিাঞ্চলের বিএনপির ২ শীর্ষ নেতা নিখোঁজের প্রতিবাদে জেলার লাকসাম, মনোহরগঞ্জ ও নাঙ্গলকোট উপজেলা এখন আন্দোলনে উত্তাল হয়ে উঠেছে। তাদের মুক্তির দাবিতে ১৮ দলীয় জোটের নেতা-কর্মীদের পাশপাশি সকল শ্রেণী-পেশার মানুষ রাস্তায় নেমে এসেছে। ১৮ দলীয় জোটের কেন্দ্রীয় কর্মসূচির সাথে নিখোঁজ হওয়া এ দু’শীর্ষ নেতার মুক্তি আন্দোলন যুক্ত হয়ে এ অঞ্চলের সার্বিক পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণের বাইরে চলে যাচ্ছে।
গত সোমবার থেকে এ অঞ্চলে হিরু-পারভেজ মুক্তি পরিষদের উদ্যোগে লাগাতার হরতাল চলছে। দলীয় সূত্র জানায়, স্থানীয় একটি রাজনৈতিক সহিংস ঘটনার জের ধরে গত ২৭শে নভেম্বর রাতে আইন-শৃংখলা বাহিনীর সদস্যরা লাকসাম উপজেলা বিএনপির সভাপতি সাবেক এমপি সাইফুল ইসলাম হিরু ও পৌরসভা বিএনপির সভাপতি ব্যবসায়ী হুমায়ুন কবির পারভেজসহ ১২ নেতা-কর্মীকে গ্রেপ্তারের পর ১০ জনকে লাকসাম থানায় হস্তান্তর করলেও ওই দু’নেতার ভাগ্যে কি ঘটেছে দীর্ঘ ৯ দিনেও তাদের খোঁজ দিতে পারেনি পুলিশ, র‌্যাব, ডিজিএফআইসহ কোনো সংস্থা। এ নিয়ে এলাকার রাজনৈতিক শিবিরে পুলিশী আতংক বিরাজ করছে।
লাকসামের দু’শীর্ষ নেতার মুক্তির দাবিতে দণি জেলার ৯টি উপজেলায় চলছে ১৮ দলের ডাকে হরতাল, অবরোধ, বিক্ষোভ মিছিল, মানব বন্ধন সাংবাদিক সম্মেলনসহ নানা প্রতিবাদ কর্মসূচি। এ ঘটনায় অত্রাঞ্চলের বিভিন্ন শ্রেণী-পেশার লোকজন আতংকিত- উৎকন্ঠিত হয়ে পড়েছেন। প্রতিবাদ কর্মসূচিতে ব্যবসায়ীরা দোকান-পাট বন্ধ রেখেছেন। বন্ধ রয়েছে প্রায় সকল ধরনের যানবাহন চলাচল। হাট-বাজারে মানুষের উপস্থিতি খুবই নগন্য। সব মিলিয়ে এক গুমট পরিবেশ বিরাজ করছে।
দলীয় নেতা-কর্মীদের পাশাপাশি সকল পেশার মানুষ এ গুমের ঘটনায় সরকার ও প্রশাসনের উপর ক্ষুব্ধ। অবিলম্বে শীর্ষ এ দু’নেতার মুক্তি দাবি করেছেন, দৌলতগঞ্জ বাজার ব্যবসায়ী সমিতির নেতৃবৃন্দসহ বিভিন্ন শাখা সমিতির নেতারা।
এদিকে,  বুধবার বিকেলে স্থানীয় একটি রেস্তোরায় ডাঃ আলী আহমদ মোল্লার সভাপতিত্বে লাকসামের বিশিষ্ট পেশাজীবি নাগরিক পরিষদের ব্যানারে নিখোঁজ সাইফুল ইসলাম হিরু ও হুমায়ুন কবির পারভেজের মুক্তি দাবিতে এক সংবাদ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়। এতে বক্তব্য রাখেন, মুক্তিযুদ্ধকালীন কমান্ডার এডভোকেট আবুল বাশার, এডভোকেট ইউনুছ ভূঁইয়া, লাকসাম প্রেসকাবের সাবেক সভাপতি মোঃ আবদুল কুদ্দুস, এডভোকেট বদিউল আলম সুজন, কাউন্সিলর ইসমাইল হোসেন, ব্যবসায়ী ফিরোজ মাহমুদ, হুমায়ুন কবির কামাল, আবদুর রহমান বাদল, আবুল বাশার প্রমুখ। এ সময় লাকসামে কর্মরত সাংবাদিকবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।